প্রণব রায়

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
প্রণব রায়
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামপ্রণব রায়
জন্ম (1963-02-10) ১০ ফেব্রুয়ারি ১৯৬৩ (বয়স ৫৬)
কলকাতা, পশ্চিম বাংলা, ভারত
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি মিডিয়াম
ভূমিকাব্যাটসম্যান, আম্পায়ার
সম্পর্কপিতা: পঙ্কজ রায়
কাকাতো ভাই: অম্বর রায়
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ১৫৬)
১৩ জানুয়ারি ১৯৮১ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ টেস্ট৪ ফেব্রুয়ারি ১৯৮১ বনাম ইংল্যান্ড
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ৭২
রানের সংখ্যা ৭১ ৪,০৫৬
ব্যাটিং গড় ৩৫.৫ ৯৮.২৫
১০০/৫০ ০/১ ১৩/১১
সর্বোচ্চ রান ৬০* ২৩০*
বল করেছে ২৩০ ২৪১
উইকেট ৭৯
বোলিং গড় ২৩০ ১৩৪.০০
ইনিংসে ৫ উইকেট - -
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং ৩/১৯
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১/- ৪২/-
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯

প্রণব রায় (এই শব্দ সম্পর্কেউচ্চারণ ; জন্ম: ১০ ফেব্রুয়ারি, ১৯৬১) পশ্চিম বাংলার কলকাতায় জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা ও সাবেক ভারতীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার।[১][২][৩] ভারত ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৮১ সালে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে ভারতের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ভারতীয় ক্রিকেটে বাংলা দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলেছেন। এছাড়াও, ডানহাতে মিডিয়াম বোলিংয়ে পারদর্শী ছিলেন তিনি।

শৈশবকাল[সম্পাদনা]

প্রণব রায়ের পিতা পঙ্কজ রায়ও ভারত দলের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট অঙ্গনে খেলেছেন। ৮ বছর বয়সেই ক্রিকেটের প্রতি গভীর অনুরাগ গড়ে উঠে প্রণব রায়ের। সুন্দর বিশ্বাস তাকে প্রশিক্ষণ দিতেন। সুন্দর ব্যাটিংশৈলীর কারণে তিনি খ্যাতি অর্জন করেন। মুশতাক আলী’র একনিষ্ঠ ভক্ত ছিলেন তিনি।

কলকাতার রামচন্দ্র স্কুলে ভর্তি হন। ৫ বছর বয়সে পিতা পঙ্কজ রায় তাকে ক্রিকেট খেলায় হাতেখড়ি ধরান। ৫ নভেম্বর, ১৯৭৫ তারিখে দূর্ঘটনার কবলে পড়েন। ১২ বছর বয়সী প্রণব রায় বন্ধুদের সাথে খেলতে গিয়ে একপর্যায়ে বল তার মুখে আঘাত করে। তার দাঁত ভেঙে যায় ও নাক দিয়ে রক্ত অঝোর ধারায় পড়তে থাকে। কলকাতার একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হলে অস্ত্রোপচারের প্রয়োজন পড়ে তার।

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৯৭৮-৭৯ মৌসুম থেকে ১৯৯১-৯২ মৌসুম পর্যন্ত প্রণব রায়ের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান হিসেবে বেশ সফলতা পান ও অসম্ভব ধৈর্য্যশক্তির বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়েছেন।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে বিচ্ছিন্ন হলেও অনেকগুলো বছর বাংলা দলের প্রধান মেরুদণ্ডকারীর ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছিলেন। রঞ্জী ট্রফিতে ৪৯.৬৮ গড়ে ৩১৩০ রান তুলেন। ১৯৮৩-৮৪ মৌসুমে আসামের বিপক্ষে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ অপরাজিত ২০৬ রান তুলেছিলেন।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে দুইটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করেছেন প্রণব রায়। ১৩ জানুয়ারি, ১৯৮২ তারিখে চেন্নাইয়ে সফরকারী ইংল্যান্ড দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। এরপর, ৩০ জানুয়ারি, ১৯৮২ তারিখে কানপুরে একই দলের বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন তিনি।

১৯৮১-৮২ মৌসুমে ইংল্যান্ড দল ভারত গমন করেন। উদ্বোধনী ইনিংসে ছয় রান তুলতে তিনি ৮২ মিনিট খরচ করেছিলেন। দ্বিতীয় ইনিংসে অপরাজিত ৬০ রান তুললেও খেলাটি তখন প্রতিদ্বন্দ্বিতাবিহীন অবস্থায় শেষ হয়ে যায়। পরের টেস্টে ব্যর্থ হলেও ১৯৮২ সালে ভারত দলের সাথে ইংল্যান্ড গমন করেছিলেন। তবে, ১২টি প্রথম শ্রেণীর খেলায় অংশ নিয়ে মাত্র ১৭৪ রান তুলতে পেরেছিলেন। এরফলে, টেস্ট দলে আর তাকে রাখা হয়নি।

ক্রিকেট খেলা থেকে অবসর গ্রহণের পর ভারত ক্রিকেট দলের নির্বাচকমণ্ডলীর অন্যতম সদস্য হন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. List of India Test Cricketers
  2. "India – Test Batting Averages"। ESPNCricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 
  3. "India – Test Bowling Averages"। ESPNCricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]