ধীরাজ প্রসন্ন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ধীরাজ প্রসন্ন
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামধীরাজ দেবশিভাই প্রসন্ন
জন্ম২ ডিসেম্বর, ১৯৪৭
রাজকোট, গুজরাত, ভারত
ব্যাটিংয়ের ধরনবামহাতি
বোলিংয়ের ধরনবামহাতি মিডিয়াম-ফাস্ট, স্লো লেফট-আর্ম অর্থোডক্স
ভূমিকাবোলার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ১৪৩)
১২ জানুয়ারি ১৯৭৯ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
শেষ টেস্ট২৪ জানুয়ারি ১৯৭৯ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ৯৩
রানের সংখ্যা ২৯৪৩
ব্যাটিং গড় ০.৫০ ২৬.৫১
১০০/৫০ -/- ২/-
সর্বোচ্চ রান ১০৬*
বল করেছে ১২০ ১৯৩৩৭
উইকেট ৩২০
বোলিং গড় ৫০.০০ ২২.২৪
ইনিংসে ৫ উইকেট - ২০
ম্যাচে ১০ উইকেট -
সেরা বোলিং ১/৩২ ৭/৪৬
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং -/- ৬৯/-
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ১৩ জুলাই ২০২০

ধীরাজ দেবশিভাই প্রসন্ন (এই শব্দ সম্পর্কেউচ্চারণ ; গুজরাটি: ધીરજ પરસાણા; জন্ম: ২ ডিসেম্বর, ১৯৪৭) গুজরাতের রাজকোট এলাকায় জন্মগ্রহণকারী সাবেক ভারতীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটারভারত ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৭০-এর দশকের শেষদিকে অত্যন্ত সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে ভারতের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।[১][২][৩]

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ভারতীয় ক্রিকেটে গুজরাত, রেলওয়েজ ও সৌরাষ্ট্র এবং ইংরেজ কাউন্টি ক্রিকেটে ডারহাম দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ বামহাতি মিডিয়াম-ফাস্ট কিংবা স্লো লেফট-আর্ম অর্থোডক্স বোলিং করতেন। এছাড়াও, বামহাতে নিচেরসারিতে ব্যাটিং করতেন ধীরাজ প্রসন্ন

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৯৬৫-৬৬ মৌসুম থেকে ১৯৮২-৮৩ মৌসুম পর্যন্ত ধীরাজ প্রসন্নের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। রঞ্জী ট্রফিতে গুজরাত ও সৌরাষ্ট্র দলের পক্ষে খেলেন। বলকে তিনি উভয়দিক দিয়েই সুইং করানোয় দক্ষতার পরিচয় দেন।

এক দশকের অধিক সময় ঘরোয়া ক্রিকেটে দূর্দান্ত খেলেন। ফলশ্রুতিতে, ১৯৭৮-৭৯ মৌসুমে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে খেলার জন্যে তাকে জাতীয় দলে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। ২৮.৫৬ গড়ে ২২৮৫ রান ও ২২.০৮ গড়ে ১৯৬ উইকেট পান তিনি।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে দুইটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করেছেন ধীরাজ প্রসন্ন। সবগুলো টেস্টই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে খেলেছিলেন তিনি। ১২ জানুয়ারি, ১৯৭৯ তারিখে চেন্নাইয়ে সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। এরপর, ২৪ জানুয়ারি, ১৯৭৯ তারিখে দিল্লিতে একই দলের বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন তিনি। সফররত ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের বিপক্ষে অল-রাউন্ডার হিসেবে আবির্ভূত হন।

সিরিজের দুই টেস্ট খেলার সুযোগ পান তিনি। কিন্তু, ব্যাট কিংবা বল হাতে কোন সফলতার স্বাক্ষর রাখতে ব্যর্থ হন। সবমিলিয়ে তিনি এক রান ও এক উইকেট দখল করেছিলেন।

অবসর[সম্পাদনা]

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ব্যর্থতার পরিচয় দিলেও ঘরোয়া ক্রিকেটে বিস্ময়কর ফলাফল করেন। রঞ্জী ট্রফি প্রতিযোগিতায় শীর্ষস্থানীয় অল-রাউন্ডারের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছিলেন তিনি। কার্যকর বামহাতি মাঝারিসারির ব্যাটসম্যান ও বামহাতি সিম বোলার হিসেবে বেশ সফল হন।

ক্রিকেট খেলা থেকে অবসর গ্রহণের পর উইকেট প্রস্তুতে বিশেষজ্ঞের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছেন। ভারতীয় ক্রিকেট নিয়ন্ত্রণ বোর্ড (বিসিসিআই) কর্তৃক পিচ ও মাঠ কমিটির সদস্য হিসেবে ভারতে দেখাশুনো করছেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. List of India Test Cricketers
  2. "India – Test Batting Averages"। ESPNCricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১৩ জুলাই ২০২০ 
  3. "India – Test Bowling Averages"। ESPNCricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১৩ জুলাই ২০২০ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]