ধমতরি জেলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ধমতরি জেলা
ছত্তিশগড়ের জেলা
সীতানদী অভ্যারণ্য-য়ের একটি অংশ
সীতানদী অভ্যারণ্য-য়ের একটি অংশ
ছত্তিশগড় রাজ্যের মধ্যে ধমতরি জেলার অবস্থান
ছত্তিশগড় রাজ্যের মধ্যে ধমতরি জেলার অবস্থান
দেশ ভারত
রাজ্যছত্তিসগড়
প্রধান কার্যালয়ধমতরি
তালুকধমতরি, কুরুদ, নগরী
সরকার
 • লোকসভা কেন্দ্রমহাসামুন্দ, কঙ্কর
আয়তন
 • মোট৪,০৮৪ বর্গকিমি (১,৫৭৭ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)
 • মোট৭,৯৯,৭৮১
 • জনঘনত্ব২০০/বর্গকিমি (৫১০/বর্গমাইল)
জনমিতি
 • সাক্ষরতা৯০.০০
সময় অঞ্চলআইএসটি (ইউটিসি+০৫:৩০)
জাতীয় সড়কজাতীয় সড়ক ৩০ (ভারত)
ওয়েবসাইটdhamtari.nic.in

ধমতরি ভারতের ছত্তিসগড় রাজ্যর একটি প্রশাসনিক জেলা। এই জেলাটি ২০°৪২' উত্তর অক্ষাংশ এবং ৮১°৩৩' পূর্ব দ্রাঘিমাতে অবস্থিত। ১৯৯৮ সালে রায়পুর জেলাটিকে বিভক্ত করে ধমতরী, মহাসমুন্দ এবং রায়পুর জেলা গঠিত হয়েছিল।

ধমতারীর বর্তমান জেলাশাসক হলেন শ্রী রজত বানসাল।[১]

ব্যুৎপত্তি[সম্পাদনা]

ধমতরী জেলার নামটি এসেছে "ধম্ম"+"তরাই" থেকে যার অর্থ ধর্মের উপত্যকা। ধম্ম শব্দের উল্লেখ থেকেই এই অঞ্চলের বৌদ্ধ প্রভাব সম্বন্ধে ধারণা করা যায়।

ভূগোল[সম্পাদনা]

জেলার মোট আয়তন ৪০৮৪ বর্গ কিলোমিটার, এবং গড় উচ্চতা সমুদ্রতল থেকে ৩০৫ মিটার। জেলাটি উত্তরে রায়পুর জেলা এবং দুর্গ জেলা, পূর্বে গরিয়াবন্দ জেলা, দক্ষিণে ওড়িশার নবরঙ্গপুর জেলা, দক্ষিণ-পশ্চিমে কোন্দাগাঁও জেলা এবং পশ্চিমে কাঙ্কেরবালোদ জেলা দ্বারা সীমাবদ্ধ। সিলোয়া পর্বত থেকে উতসারিত মহানদী নদীর জেলার মুখ্য নদী। এই অঞ্চলে মহানদী কঙ্কননন্দী, চিত্রোতপলা, নীলোতপলা, মন্দবাহিনী, জৈরথ ইত্যাদি নামে পরিচিত। এর উপনদীগুলি হল সিওনাথ, পৈরী, সন্ডুর, জোয়ান, খারুন এবং শিবনাথ। এই নদীগুলির উপস্থিতির জন্য ধামতরী জেলার জমি উর্বর। এই অঞ্চলের প্রধান ফসল ধান।

রাজ্যের রাজধানী রায়পুর জেলা থেকে ৭৮ কিলোমিটার দূরে।

জাতীয় সড়ক - ৭ রায়পুর - বিজয়নগরম ( অন্ধ্র প্রদেশ ) ধম্তরী জেলা দিয়ে প্রবাহিত।

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

ধমতরীর মূল কৃষিজ ফসল ধান এবং এখানে প্রায় ১৩৬টি রাইস মিল রয়েছে।[২]

রবিশঙ্কর সাগর বাঁধ (গাঙ্গরেল বাঁধ) যা প্রায় ৫৭০ বর্গকিলোমিটার জমি সেচ দেয় এবং রাজ্য রাজধানী রায়পুরের নিরাপদ পানীয় জলের উত্সের মূল সরবরাহ ইউনিট হিসাবে কাজ করে। পাশাপাশি এখান থেকে ভিলাই ইস্পাত কারখানার জন্য জল সরবরাহ করা হয়। এখানে ১০ মেগাওয়াট এবং ১.২ মেগাওয়াটের দুটি জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে।

১০ মেগাওয়াট শক্তিসম্পন্ন জল-বৈদ্যুতিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কাজ চলছে এবং খুব শিগগিরই এটি সম্পন্ন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। ১৯১৪ সালে মাদামসিল্লিতে এশিয়ার প্রথম সাইফন বাঁধ নির্মিত হয়েছিল। মাদামসিল্লি, সন্ডুর বাঁধ ছাড়াও দুধওয়া বাঁধও বড় প্রকল্প।

ভৌগোলিক অঞ্চলের প্রায় ৫২ শতাংশ বনাঞ্চল দ্বারা আচ্ছাদিত। জেলার একটি গ্রীষ্মমণ্ডলীয় জলবায়ু রয়েছে।[৩]

জনসংখ্যার উপাত্ত[সম্পাদনা]

২০১১ সালের জনগণনা অনুসারে ধম্তরী জেলার জনসংখ্যা ৭৯৯,৭৮১ জন,[৪] যা প্রায় কমোরোস রাষ্ট্রের জনসংখ্যার সমান [৫] বা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ডাকোটা রাজ্যের জনসংখ্যার সমান। [৬] জনসংখ্যার বিচারে এটি ভারতের জেলাগুলির মধ্যে ৪৮৫ তম স্থান অধিকার করে (মোট 640 এর মধ্যে )। জেলাটির বর্গকিলোমিটারে জনসংখ্যার ঘনত্ব ২০৯ জন প্রতি বর্গকিলোমিটার (৫৪০ জন/বর্গমাইল) । ২০০১ থেকে ২০১১-এর দশকে এর জনসংখ্যার বৃদ্ধির হার ছিল ১৩.১১%। ধমতরীতে প্রতি ১০০০ পুরুষের জন্য ১ ০১০জন মহিলা রয়েছেন যা জাতীয় গড়ের থেকে অনেক উন্নত এবং সাক্ষরতার হার ৭৮.৩৬%। জনসংখ্যার যথাক্রমে ৭.৩২% মানুষ তফশিলি জাতি ভুক্ত এবং ২৬% মানুষ তফশিলি উপজাতিভুক্ত।

২০১১র জনগণনা অনুসারে ধমতরীর ভাষা

  ছত্তিশগড়ি (৯২.৬৩%)
  হিন্দি (৫.৩১%)
  অন্যান্য (২.০৬%)

ভারতের ২০১১ সালের জনগণনার সময়ে, জেলার ৯২..৬৩% জনগণ ছত্তিশগড়ী এবং ৫.৩১% হিন্দি তাদের প্রথম ভাষা রূপে নিবন্ধন করেছিলেন। [৭]

জেলার তিনটি বিধানসভা আসনের মধ্যে সিহোয়া নির্বাচনী এলাকাটি জেলার জেলায় উল্লেখযোগ্য সংখ্যাগরিষ্ঠ জনগোষ্ঠী সহ ধামতরী ও কুরুদ আসনেও বেশিরভাগ জনসংখ্যার সমন্বয়ে সমগ্র জেলা জুড়ে সংখ্যাগরিষ্ঠ উপজাতির বাসিন্দা।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. http://dhamtari.gov.in
  2. "Dhamtari Government Website"। সংগ্রহের তারিখ ২০০৬-০৯-২২ 
  3. "Dhamtari District NCCR"। ২০০৭-০৯-২৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৬-০৯-২২ 
  4. "District Census 2011"। Census2011.co.in। ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৯-৩০ 
  5. US Directorate of Intelligence। "Country Comparison:Population"। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-১০-০১Comoros 794,683 July 2011 est. 
  6. "2010 Resident Population Data"। U. S. Census Bureau। ২০১৩-১০-১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৯-৩০South Dakota 814,180 
  7. 2011 Census of India, Population By Mother Tongue

 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]