ডিক পাওয়ার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ডিক পাওয়ার
Ranji 1897 page 405-2 Pougher.jpg
১৮৯৭ সালের সংগৃহীত স্থিরচিত্রে ডিক পাওয়ার
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামআর্থার ডিক পাওয়ার
জন্ম১৯ এপ্রিল, ১৮৬৫
হাম্বারস্টোন, লিচেস্টার, ইংল্যান্ড
মৃত্যু২০ মে, ১৯২৬
আয়ালস্টোন পার্ক, লিচেস্টার, ইংল্যান্ড
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি ফাস্ট মিডিয়াম
ভূমিকাঅল-রাউন্ডার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
একমাত্র টেস্ট
(ক্যাপ ৮০)
১৯ মার্চ ১৮৯২ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ১৬৩
রানের সংখ্যা ১৭ ৪,৫৫৫
ব্যাটিং গড় ১৭.০০ ১৮.৫৯
১০০/৫০ ০/০ ৫/১৩
সর্বোচ্চ রান ১৭ ১১৪
বল করেছে ১০৫ ২৫,৮৮১
উইকেট ৫৩৫
বোলিং গড় ৮.৬৬ ১৯.০২
ইনিংসে ৫ উইকেট ৩১
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ৩/২৬ ৯/৩৪
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ২/০ ৯৮/০
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯

আর্থার ডিক পাওয়ার (ইংরেজি: Dick Pougher; জন্ম: ১৯ এপ্রিল, ১৮৬৫ - মৃত্যু: ২০ মে, ১৯২৬) লিচেস্টারের হাম্বারস্টোন এলাকায় জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা ইংরেজ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ছিলেন। ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৮৯২ সালে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে ইংল্যান্ডের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ইংরেজ কাউন্টি ক্রিকেটে লিচেস্টারশায়ার দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ অল-রাউন্ডার হিসেবে খেলতেন। ডানহাতে ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি ডানহাতে ফাস্ট মিডিয়াম বোলিং করতেন ডিক পাওয়ার

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৮৮৬ সাল থেকে ১৯০১ সাল পর্যন্ত ডিক পাওয়ারের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। অল-রাউন্ডার হিসেবে যথেষ্ট সুনাম কুড়িয়েছেন। মিডিয়াম পেস বোলিংয়ে দক্ষতার সাথে পেসের বৈচিত্রতা আনয়ণ ঘটাতেন। ১৮৯৪ থেকে ১৯০১ সাল পর্যন্ত লিচেস্টারশায়ারের পক্ষে খেলেছেন।

১৮৯৫ সালে ওভালে প্লেয়ার্সের সদস্যরূপে একটিমাত্র খেলায় অংশ নিয়েছিলেন। ১৮৯৬ সালে লর্ডসে মেরিলেবোন ক্রিকেট ক্লাবের পক্ষে নিজস্ব সেরা মুহূর্ত অতিবাহিত করেন। পাঁচ বলে গড়া তিন ওভারে নিখুঁত স্পিন বোলিং করে কোন রান খরচ না করেই পাঁচ-উইকেট পেয়েছিলেন তিনি। একজন ব্যাটসম্যান অসুস্থতাজনিত কারণে অনুপস্থিত ছিলেন। শেষ ছয় উইকেটে কোন রান যুক্ত হয়নি। ফলশ্রুতিতে সফররত অস্ট্রেলীয় একাদশ মাত্র ১৮ রানে গুটিয়ে যেতে বাধ্য হয়।[১] পাওয়ারের বোলিংয়ের সাথে অপরিচিত থাকায় তারা তার নিচুমূখী ও সম্ভাব্য দৃশ্যতঃ ঘূর্ণায়মান বলকে মোকাবেলা করতে বিভ্রান্তির কবলে পড়েছিল।

১৮৯৬ সালে ডার্বিতে আয়োজক দল ডার্বিশায়ারের বিপক্ষে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ১১৪ রান তুলেন। ১৮৮৭ থেকে ১৯০৯ সাল পর্যন্ত লর্ডসে এমসিসি’র মাঠকর্মী দলের সদস্য ছিলেন। দুইবার আর্থিক সুবিধা গ্রহণের খেলার জন্যে মনোনীত হয়েছিলেন। ১৯০০ সালে লিচেস্টারে লিচেস্টারশায়ার বনাম ইয়র্কশায়ার এবং ১৯১০ সালে লর্ডসে মিডলসেক্স বনাম কেন্টের খেলা ছিল।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

দুইবার বিদেশ গমন করেন। ১৮৮৭-৮৮ মৌসুমে আর্থার শ্রিউসবারি’র নেতৃত্বে অস্ট্রেলিয়া ও ১৮৯১-৯২ মৌসুমে ডব্লিউ. ডব্লিউ. রিডের নেতৃত্ব দক্ষিণ আফ্রিকা যান।

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে একটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করেছেন ডিক পাওয়ার। ১৯ মার্চ, ১৮৯২ তারিখে কেপটাউনে স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। এটিই তার একমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ ছিল।

আম্পায়ার[সম্পাদনা]

ক্রিকেট খেলা থেকে অবসর গ্রহণের পর ৪৯টি প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট খেলায় আম্পায়ারিত্ব করেন। দুইটি বাদে সবগুলো খেলাই ১৯০৩ থেকে ১৯০৯ সালের মধ্যে পরিচালনা করেছিলেন তিনি। ব্যতিক্রমের পর্যায়ে ১৮৮৮-৮৯ মৌসুমে অস্ট্রেলিয়ায় ও অপরটি ১৯২৩ সালে লিচেস্টারশায়ার - ওয়েস্ট ইন্ডিজ একাদশের মধ্যে ছিল।[২] এছাড়াও, জুলাই, ১৯০৪ সালে ইয়র্কশায়ার-কেন্টের মধ্যকার খেলাটি উল্লেখযোগ্য। তবে, সম্পূর্ণ খেলাটি শেষ হতে পারেনি। উইকেটের অপর প্রান্তে দণ্ডায়মান আর্থার শ্রিউসবারির ভ্রাতা উইলিয়াম শ্রিউসবারি প্রথম দিনের পর পিচে অবৈধ হস্তক্ষেপ ঘটানোয় খেলাটি পরিত্যক্ত ঘোষণা করেন।[৩]

ক্রিকেট খেলা থেকে অবসর গ্রহণের পর লিচেস্টারের ওল্ড ক্রিকেট গ্রাউন্ড হোটেল পরিচালনায় অগ্রসর হয়েছিলেন। ২০ মে, ১৯২৬ তারিখে ৬১ বছর বয়সে লিচেস্টারের আয়ালস্টোন পার্ক এলাকায় ডিক পাওয়ারের দেহাবসান ঘটে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Marylebone Cricket Club v Australians in 1896"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-০৯-২৪ 
  2. "Dick Pougher as Umpire in First-Class Matches"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-০৯-২৪ 
  3. "Yorkshire v Kent in 1904"। CricketArchive। ২৯ জুন ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-০৯-২৪ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]