জারহারদাস লাইবেনবার্গ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
জারহারদাস লাইবেনবার্গ
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামজারহারদাস ফ্রেডরিক জোহানেস লাইবেনবার্গ
জন্ম৭ এপ্রিল, ১৯৭২
আপিংটন, উত্তর কেপ, দক্ষিণ আফ্রিকা
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি ফাস্ট-মিডিয়াম
ভূমিকাউইকেট-রক্ষক, উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ২৭০)
২৭ মার্চ ১৯৯৮ বনাম শ্রীলঙ্কা
শেষ টেস্ট৬ আগস্ট ১৯৯৮ বনাম ইংল্যান্ড
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ৩৫)
২২ অক্টোবর ১৯৯৫ বনাম জিম্বাবুয়ে
শেষ ওডিআই২৪ মে ১৯৯৮ বনাম ইংল্যান্ড
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই
ম্যাচ সংখ্যা
রানের সংখ্যা ১০৪ ৯৪
ব্যাটিং গড় ১৩.০০ ২৩.৫০
১০০/৫০ ০/০ ০/০
সর্বোচ্চ রান ৪৫ ৩৯
বল করেছে
উইকেট
বোলিং গড়
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট -
সেরা বোলিং
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১/- ০/-
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০

জারহারদাস ফ্রেডরিক জোহানেস লাইবেনবার্গ (ইংরেজি: Gerhardus Liebenberg; জন্ম: ৭ এপ্রিল, ১৯৭২) উত্তর কেপের আপিংটন এলাকায় জন্মগ্রহণকারী সাবেক দক্ষিণ আফ্রিকান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৯০-এর দশকের মাঝামাঝি সময়কালে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।[১]

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটে ফ্রি স্টেট, গ্রিকুয়াল্যান্ড ওয়েস্ট, অরেঞ্জ ফ্রি স্টেট দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ উইকেট-রক্ষক হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, ডানহাতে উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলাসহ ডানহাতে ফাস্ট-মিডিয়াম বোলিংয়ে পারদর্শী ছিলেন জারহারদাস লাইবেনবার্গ

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৯৮৯-৯০ মৌসুম থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত জারহারদাস লাইবেনবার্গের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। দর্শনীয় ডানহাতি ব্যাটসম্যান ছিলেন জারহারদাস লাইবেনবার্গ। সচরাচর সম্মুখের পায়ে ভর রেখে খেলতেন। খেলোয়াড়ী জীবনের শুরুতে গ্রিকুয়াস দলের পক্ষে প্রথম দুই খেলায় দূর্দান্ত খেলেন। ৮৪ ও ১০৮ রানের ইনিংস খেলেছিলেন তিনি। ১৯৯০ সালে ফ্রি স্টেটে চলে যান। সেখানেও তিনি তার খেলার ধারা অব্যাহত রাখেন। ঐ পর্যায়ে তাকে ইংল্যান্ড গমনার্থে দক্ষিণ আফ্রিকা দলে অন্তর্ভুক্ত করা হয়।

১৯৯৫-৯৬ মৌসুমে নিজস্ব প্রথম দ্বি-শতরানের ইনিংস খেলে সংবাদ শিরোনামে চলে আসেন। কিন্তু, খেলায় ছন্দ হারিয়ে ফেলায় তাকে ১৯৯৭-৯৮ মৌসুম পর্যন্ত জাতীয় দলে খেলার জন্যে অপেক্ষার প্রহর গুণতে হয়।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে পাঁচটিমাত্র টেস্ট ও চারটিমাত্র একদিনের আন্তর্জাতিকে অংশগ্রহণ করেছেন জারহারদাস লাইবেনবার্গ। ২৭ মার্চ, ১৯৯৮ তারিখে সেঞ্চুরিয়নে সফরকারী শ্রীলঙ্কা দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। ৬ আগস্ট, ১৯৯৮ তারিখে লিডসে স্বাগতিক ইংল্যান্ড দলের বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন তিনি।

১৯৯৪ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার সদস্যরূপে ইংল্যান্ড গমনের সুযোগ লাভ করেন। তবে, তাকে কোন টেস্ট খেলায় রাখা হয়নি। এ সফরটি তার জন্যে সুবিধে বয়ে নিয়ে আসেনি। ১৯৯৮ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা দলের সাথে পুণরায় ইংল্যান্ড গমন করেন। সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে তাকে দলে রাখা হয়। চারটি টেস্টে অংশ নিলেও তেমন আশাপ্রদ কোন খেলা উপহার দিতে পারেননি তিনি। ছয় ইনিংসে মাত্র ৫৯ রান তুলেন। কিন্তু, দূর্বলমানের ক্রীড়াশৈলী প্রদর্শনের কারণে টেস্ট দল থেকে তাকে বাইরে রাখা হয়।[২] এরপর আর তাকে টেস্ট দলে রাখা হয়নি।

৩৪.৭৬ গড়ে ৯,৩৮৭ রান তুলে প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবনের সমাপ্তি টানেন। ক্রিকেটের পাশাপাশি অ্যাথলেটিক্স ও টেনিসে দক্ষতার পরিচয় দিয়েছিলেন। নিজ রাজ্যের পক্ষে ঐ দুটো খেলায় প্রতিনিধিত্ব করেছেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Gerhardus Liebenberg"। www.cricketarchive.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০২-০৭ 
  2. "Immovable"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৯ এপ্রিল ২০১৮ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]