জামেয়া মাদানিয়া ইসলামিয়া

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
জামেয়া মাদানিয়া ইসলামিয়া
ধরনকওমি মাদ্রাসা
স্থাপিত৫ জুন ১৯৭৪
প্রতিষ্ঠাতাহাবিবুর রহমান
মূল প্রতিষ্ঠান
দারুল উলুম দেওবন্দ
অধিভুক্তিআল হাইআতুল উলয়া লিল জামিআতিল কওমিয়া বাংলাদেশ
ধর্মীয় অধিভুক্তি
ইসলাম
আচার্যসামীউর রহমান মূসা
শিক্ষায়তনিক ব্যক্তিবর্গ
৫৪ (২০১৬)
শিক্ষার্থী১২৫০ (২০১৬)
অবস্থান
ভি.আই.পি রোড, কাজির বাজার, সিলেট
শিক্ষাঙ্গনশহর
সংক্ষিপ্ত নামকাজির বাজার মাদ্রাসা
ওয়েবসাইটjameamadania.org

জামেয়া মাদানিয়া ইসলামিয়া, কাজির বাজার, সিলেট (সংক্ষেপে কাজির বাজার মাদ্রাসা) সিলেটের কাজির বাজার এলাকায় অবস্থিত একটি কওমি মাদ্রাসা। দারুল উলুম দেওবন্দের মূলনীতিকে সামনে রেখে ধর্মীয় ও আধুনিক শিক্ষার সমন্বয়ে ১৯৭৪ সালের ৫ জুন সিলেটের সুরমা নদীর তীর ঘেষে ছোট্ট ডালিম গাছের নিচে এই মাদ্রাসার গোড়াপত্তন করেন বিখ্যাত আলেম হাবিবুর রহমান। শিক্ষা কার্যক্রম দ্রুত বিস্তারের কারণে ছাত্র সংকুলান না হওয়ায় ১৯৭৯ সালে তৎকালীন সিলেট পৌরসভা কর্তৃক দানকৃত প্রায় এক একর জমির উপর বর্তমান মাদ্রাসাটি স্থানান্তর করা হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের আদলে কওমি মাদ্রাসায় ছাত্র সংসদ প্রতিষ্ঠাসহ নানারকম সংস্কার কার্যক্রম পরিচালনা করে মাদ্রাসাটি, যা কওমি মাদ্রাসায় পূর্বে ছিল না। এই কারণে প্রথম দিকে সমালোচনা হলেও পরবর্তীতে তা বিভিন্ন মাদ্রাসায় অনুসরণ করা হয়। তসলিমা নাসরিন বিরোধী আন্দোলন সহ দেশের বিভিন্ন আন্দোলন-সংগ্রামের সাথে মাদ্রাসাটির নাম ওতপ্রোতভাবে জড়িত। ১৯৮২ সালে কানাইঘাটের বিখ্যাত মুহাদ্দিস মাওলানা মুহাম্মাদ ইসহাককে শায়খুল হাদিস হিসেবে নিয়ােগ দেওয়ার পর এখানে দাওরায়ে হাদিস (মাস্টার্স) চালু হয়। ২০১৬ সালে এই মাদ্রাসার শিক্ষক সংখ্যা ছিল ৫৪ জন, ছাত্র সংখ্যা ১২৫০ এবং কর্মচারী ৩৫।[১][২]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. গোলাম ছরোয়ার, মুহাম্মদ (নভেম্বর ২০১৩)। "বাংলা ভাষায় ফিকহ চর্চা (১৯৪৭-২০০৬): স্বরূপ ও বৈশিষ্ঠ্য বিচার"ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়: ৩১৮। সংগ্রহের তারিখ ২৮ মে ২০২১ 
  2. তাজুল, ইসলাম (২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৬)। "ঐতিহ্যের স্মারক জামেয়া মাদানিয়া কাজির বাজার, সিলেট"কওমি মাদ্রাসা শিক্ষা সংস্কার আন্দোলন (কমাশিসা)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৫-২৭