ইভান মাদ্রে

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ইভান মাদ্রে
ইভান মাদ্রে.jpg
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামইভান স্যামুয়েল মাদ্রে
জন্ম২ জুলাই, ১৯৩৪
পোর্ট মোর‍্যান্ট, ব্রিটিশ গায়ানা
মৃত্যু২৩ এপ্রিল, ২০০৯
জর্জটাউন পাবলিক হসপিটাল, গায়ানা
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনলেগ ব্রেক
ভূমিকাবোলার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ১০১)
৫ ফেব্রুয়ারি ১৯৫৮ বনাম পাকিস্তান
শেষ টেস্ট১৩ মার্চ ১৯৫৮ বনাম পাকিস্তান
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা
রানের সংখ্যা ৭৩
ব্যাটিং গড় ১.০০ ৯.১২
১০০/৫০ -/- -/-
সর্বোচ্চ রান ২৮
বল করেছে ২১০ ১,৩০৪
উইকেট - ১৬
বোলিং গড় - ৩৮.৮৭
ইনিংসে ৫ উইকেট - -
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং - ৪/৬১
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ২/- ৫/-
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ১৬ জুন ২০২০

ইভান স্যামুয়েল মাদ্রে (ইংরেজি: Ivan Madray; জন্ম: ২ জুলাই, ১৯৩৪ - মৃত্যু: ২৩ এপ্রিল, ২০০৯) তৎকালীন ব্রিটিশ গায়ানার পোর্ট মোর‍্যান্ট এলাকায় জন্মগ্রহণকারী ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ছিলেন। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৫০-এর দশকের শেষদিকে অত্যন্ত সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ক্রিকেটে ব্রিটিশ গায়ানা এবং ইংরেজ ক্রিকেটে লিঙ্কনশায়ার দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ লেগ ব্রেক বোলার হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, ডানহাতে নিচেরসারিতে ব্যাটিং করতেন ইভান মাদ্রে

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৯৫৪-৫৫ মৌসুম থেকে ১৯৫৭-৫৮ মৌসুম পর্যন্ত ইভান মাদ্রে’র প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। মাঝারিসারির ব্যাটসম্যান ও লেগ ব্রেক বোলার ছিলেন ইভান মাদ্রে। সর্বমোট ছয়টি প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট খেলা নিয়ে তার খেলোয়াড়ী জীবন গড়ে উঠে।

ব্রিটিশ গায়ানার পক্ষে লেগ স্পিনার ইভান মাদ্রে’র প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে। ১৯৫৪-৫৫ মৌসুমে ২০ বছর বয়সে সফররত অস্ট্রেলীয় একাদশের বিপক্ষে অভিষেক ঘটা ঐ খেলায় ৩/১২২ পান। নীল হার্ভে, পিটার বার্জরন আর্চারকে ২৩ ওভার বোলিং করে আউট করতে সক্ষম হন।[১]

১৯৫৬-৫৭ মৌসুমে দুইটিমাত্র খেলায় অংশ নিয়েছিলেন। জ্যামাইকার বিপক্ষে ৮৪ ওভারে ৪/১৬৮ ও পরবর্তীতে চতুর্দলীয় প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত খেলায় ১/১৮ বোলিং পরিসংখ্যান দাঁড় করান।[২] পরবর্তী প্রথম-শ্রেণীর খেলাটি টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক পর্ব ছিল।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে দুইটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করেছেন ইভান মাদ্রে। সবগুলো টেস্টই পাকিস্তান বিপক্ষে খেলেছিলেন তিনি। ৫ ফেব্রুয়ারি, ১৯৫৮ তারিখে পোর্ট অব স্পেনে সফরকারী পাকিস্তান দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। এরপর, ১৩ মার্চ, ১৯৫৮ তারিখে জর্জটাউনে একই দলের বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন তিনি।

১৯৫৭-৫৮ মৌসুমে পাকিস্তান দল ওয়েস্ট ইন্ডিজ গমনে আসে। ফেব্রুয়ারি, ১৯৫৮ সালে পোর্ট অব স্পেনে সফরকারী পাকিস্তান দলের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টের মাধ্যমে অভিষেক ঘটে ইভান মাদ্রে’র। ব্রিটিশ গায়ানা থেকে আগত অপর অফ-স্পিনার ল্যান্স গিবসের সাথে তারও প্রথম টেস্টে অংশগ্রহণের সুযোগ হয়। মাদ্রে মাত্র ১৮ ওভার বোলিং করেছিলেন ও কোন উইকেট পাননি। এছাড়াও, ব্যাট হাতে ১ ও ০ রান তুলেন। তাসত্ত্বেও, স্বাগতিক দল জয়লাভ করতে পেরেছিল।[৩]

তৃতীয় টেস্টে তাকে দলের বাইরে রাখা হয়। ঐ টেস্টেও তার দল বিজয়ী হয়। তবে, ব্রিটিশ গায়ানার সদস্যরূপে প্রস্তুতিমূলক খেলায় সফরকারী পাকিস্তান একাদশের বিপক্ষে হানিফ মোহাম্মদসাঈদ আহমেদের উইকেটসহ চার উইকেট নিয়ে পুণরায় চতুর্থ টেস্টের জন্যে নিজেকে উপযোগী করে তোলেন। জর্জটাউনে নিজ মাঠে ১৬ ওভার বোলিং করেও কোন উইকেট পাননি ও একমাত্র ইনিংসে ২ রান তুলতে পেরেছিলেন।

অবসর[সম্পাদনা]

সব মিলিয়ে দুই টেস্টে তিন রান ও একটিমাত্র উইকেট পেয়েছিলেন। এ খেলার মাধ্যমেই তার প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবনের সমাপ্তি ঘটে। অবসর গ্রহণকালীন তার বয়স ছিল মাত্র ২৪ বছর।

১৯৬৩ থেকে ১৯৬৭ সাল পর্যন্ত মাইনর কাউন্টিজে লিঙ্কনশায়ারের পক্ষে ক্রিকেট খেলেন। সেখানে তিনি ব্যাটসম্যান হিসেবে দারুণ সফল ছিলেন। ১৯৬৪ সালে কেমব্রিজশায়ারের বিপক্ষে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ১৫৪ রান তুলেন। তবে, কোন উইকেট পাননি। ঐ খেলায় তার দল জয়ী হয়েছিল।[৪] এরপর তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করেছিলেন।

২৩ এপ্রিল, ২০০৯ তারিখে ৭৪ বছর বয়সে জর্জটাউন পাবলিক হসপিটালে ইভান মাদ্রে’র দেহাবসান ঘটে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]