অ্যাপল এ৪

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
অ্যাপল এ৪
Apple A4 Chip.jpg
সাধারণ তথ্য
উদ্বোধন৩ এপ্রিল ২০১০; ১১ বছর আগে (2010-04-03)
বন্ধ করা হয়১০ সেপ্টেম্বর ২০১৩; ৭ বছর আগে (2013-09-10)
নকশাকরণেঅ্যাপল
প্রচলিত প্রস্তুতকারক
পণ্য কোডS5L8930X[১]
কর্মক্ষমতা
সর্বোচ্চ সিপিইউ ক্লক রেট৮০০ মেগাহার্জ থেকে ১ গিগাহার্জ
ক্যাশ
L1 cache32 KB instruction + 32 KB data[২]
L2 cache512 KB[২]
আর্কিটেকচার এবং শ্রেণিবিভাগ
অ্যাপ্লিকেশনমোবাইল
ন্যূনতম বৈশিষ্ট্য আকার৪৫ ন্যানোমিটার
মাইক্রোআর্কিটেকচারএআরএম কর্টেক্স-এ৮
নির্দেশনা সেটARMv7-A
ফিজিক্যাল স্পেসিফিকেশন
কোর
জিপিইউPowerVR SGX535[৩]
ইতিহাস
পূর্বসূরিস্যামসাং এসএল৫৮৯২০
উত্তরাধিকারীঅ্যাপল এ৫

অ্যাপল এ৪ হলো অ্যাপল কর্তৃক ডিজাইন এবং স্যামসাং কর্তৃক প্রস্তুত করা একটি ৩২-বিট প্যাকেজ অন প্যাকেজ (PoP) সিস্টেম অন চিপ (SoC)।[৪][৫] এটি অ্যাপলের নিজস্ব নকশাকৃত প্রথম এসওসি ছিল। অ্যাপল প্রথম প্রজন্মের আইপ্যাডে সর্বপ্রথম এ৪ চিপটি ব্যবহার করেছিল।[৬]

অ্যাপল এ৪ (আইফোন ৪) ধারণকারী কোনো মোবাইল ডিভাইসের জন্য সর্বশেষ অপারেটিং সিস্টেম সংস্করণ হিসেবে অ্যাপল iOS 7.1.2 সরবরাহ করেছিল যা ২০১৪ সালের ৩০ জুন প্রকাশিত হয়েছিল। অ্যাপল এ৪ (দ্বিতীয়-প্রজন্ম অ্যাপল টিভি) ধারণকারী অ্যাপল টিভির জন্য সর্বশেষ অপারেটিং সিস্টেম সংস্করণ হিসেবে Apple TV Software 6.2.1 সরবরাহ করা হয়েছিল যা ২০১৪ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর প্রকাশিত হয়েছিল।

ডিজাইন[সম্পাদনা]

অ্যাপল ইঞ্জিনিয়াররা "অত্যন্ত শক্তিশালী তবুও অত্যন্ত শক্তি সাশ্রয়ী" হওয়ার উপর জোর দিয়ে এ৪ চিপটি ডিজাইন করেছিলেন।[৬] এ৪-এ একটি কোরবিশিষ্ট এআরএম কর্টেক্স-এ৮ কেন্দ্রীয় প্রক্রিয়াকরণ ইউনিট রয়েছে যা স্যামসাং এর ৪৫ ন্যানোমিটার ফ্যাব্রিকেশন প্রক্রিয়ায়[৭] উৎপাদন করা হয়েছিল। স্যামসাং এর সহযোগিতায় এটিতে চিপ ডিজাইনার ইনট্রিন্সিটির (যা পরবর্তীকালে অ্যাপল অধিগ্রহণ করেছিল)[৮] বিকশিত উন্নত কর্মক্ষমতা বর্ধনের প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছিল।[৯] ফলস্বরূপ, সিপিইউটি (হামিংবার্ড) এআরএম এর সরবরাহিত কর্টেক্স-এ৮ ডিজাইনের সাথে পুরোপুরি সামঞ্জস্য রেখে পূর্বের কর্টেক্স-এ৮ সিপিইউগুলির তুলনায় অনেক বেশি ক্লক রেটে চালাতে সক্ষম।[১০] এ৪ সিপিইউতে ব্যবহৃত একই কর্টেক্স-এ৮ স্যামসাংয়ের এস৫পিসি১১০এ০১ SoC তেও ব্যবহৃত হয়েছিল।[১১][১২] এ৪ সিপিইউতে একটি একক-কোরবিশিষ্ট পাওয়ারভিআর এসজিএক্স৫৩৫ গ্রাফিক্স প্রসেসিং ইউনিট (GPU) রয়েছে।[১৩] এ৪ এর ডাই অঞ্চলটির ৫৩.৩ মিমি² অবধি আয়তন দখল করে।[১৩]

প্রথম প্রজন্মের আইপ্যাডের অভ্যন্তরে ব্যবহৃত এ৪ সিপিইউর কর্টেক্স-এ৮ এর ক্লক রেট ১ গিগাহার্টজ। আইফোন ৪ এবং চতুর্থ প্রজন্মের আইপড টাচের অভ্যন্তরে ব্যবহৃত এ৪ এর কর্টেক্স-এ৮ এর ক্লক রেট ৮০০ মেগাহার্টজ (১ গিগাহার্টজ থেকে আন্ডারক্লক করা)। দ্বিতীয় প্রজন্মের অ্যাপল টিভির অভ্যন্তরে ব্যবহৃত এ৪ এর কর্টেক্স-এ৮-এর ক্লক রেট কী তা অজানা।

র‍্যাম সমর্থনের জন্য এ৪ PoP ইনস্টলেশনের পদ্ধতি ব্যবহার করে। প্রথম প্রজন্মের আইপ্যাড, চতুর্থ প্রজন্মের আইপড টাচ এবং দ্বিতীয় প্রজন্মের অ্যাপল টিভিতে ব্যবহৃত এ৪ এর শীর্ষ প্যাকেজটিতে দুটি ১২৮ এমবি এলপিডিডিআর চিপ রয়েছে, যা মোট ২৫৬ এমবি র‌্যাম সরবরাহ করে।[১৪][১৫] আইফোন ৪ এর অভ্যন্তরে ব্যবহৃত এ৪ এর শীর্ষ প্যাকেজটিতে দুটি ২৫৬ এমবি এলপিডিডিআর চিপ রয়েছে, যা মোট ৫১২ এমবি র‌্যাম সরবরাহ করে।[১৬][১৭][১৮] র‌্যামটি এআরএম এর ৬৪-বিট প্রশস্ত এএমবিএ ৩ এএক্সআই বাস ব্যবহার করে এ৪ এর সাথে সংযুক্ত রয়েছে।[১৯]

অ্যাপল এ৪ ব্যবহার করে এমন পণ্য[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

  • অ্যাপলের ডিজাইন করা প্রসেসর, অ্যাপলের ডিজাইন করা এআরএম-ভিত্তিক প্রসেসরের পরিসর
  • PWRficient, পি.এ. সেমি কর্তৃক ডিজাইন করা মাইক্রোপ্রসেসরের একটি সিরিজ। অ্যাপল নিজস্ব কাস্টম চিপ ডিজাইন বিভাগ গঠন করার জন্য পি.এ. সেমি অধিগ্রহণ করেছিল।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. iOS 5.1 code hints at simultaneous A5X and A6 processor development
  2. Cheng, Jacqui (মার্চ ১৪, ২০১১)। "Ars reviews the iPad 2: big performance gains in a slimmer package / The Apple A5"Ars Technica। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ১৩, ২০১১ 
  3. Klug, Brian; Lal Shimpi, Anand (জুন ৩০, ২০১০)। "Apple's iPhone 4: Thoroughly Reviewed"। AnandTech। সংগ্রহের তারিখ সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৩ 
  4. "Updated: Samsung fabs Apple A5 processor"। EETimes.com। মার্চ ১২, ২০১১। ২০১৩-০৫-০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৩-১৫The company conducted a cross-section analysis of the chip that revealed details indicating Samsung made the chip in its 45nm process, the same process and fab Apple used for its previous generation A4 SoC. 
  5. Clark, Don (২০১০-০৪-০৫)। "Apple iPad Taps Familiar Component Suppliers - WSJ.com"। Online.wsj.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৪-১৫ 
  6. "Apple Launches iPad" (সংবাদ বিজ্ঞপ্তি)। Apple। ২০১০-০১-২৭। ৩০ জানুয়ারি ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০১-২৮ 
  7. "Chipworks Confirms Apple A4 iPad chip is fabbed by Samsung in their 45-nm process"। Chipworks। এপ্রিল ১৫, ২০১০। ২১ সেপ্টেম্বর ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  8. Stokes, Jon (২০১০-০৪-২৮)। "Apple purchase of Intrinsity confirmed"। Ars Technica। ২৮ এপ্রিল ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৪-২৮ 
  9. Merritt, Rick। "Samsung, Intrinsity pump ARM to GHz rate"। EETimes.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৪-২৩ 
  10. Keizer, Gregg (২০১০-০৪-০৬)। "Apple iPad smokes past the iPhone 3GS in speed"PC World। ২০ এপ্রিল ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৪-১১ 
  11. Boldt, Paul; Scansen, Don; Whibley, Tim (১৬ জুন ২০১০)। "Apple's A4 dissected, discussed...and tantalizing"। EETimes.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৭-০৭ 
  12. "Microsoft PowerPoint - Apple A4 vs SEC S5PC110A01" (PDF)। ৪ জুলাই ২০১০ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৭-০৭ 
  13. Sept. 13, Kunal Khullar; 2017; P.m, 5:26 (২০১৭-০৯-১৩)। "From A4 to the A11 Bionic: The Evolution of Apple 'A' mobile chips"PCMag India (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৫-১৭ 
  14. "Teardown of Apple's 4th-gen iPod touch finds 256MB of RAM"। Appleinsider.com। ২০১০-০৯-০৮। ১১ সেপ্টেম্বর ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৯-১০ 
  15. "Apple TV 2nd Generation Teardown"। iFixit। ২০১০-০৯-৩০। ২ জানুয়ারি ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০১-০৪ 
  16. "Apple reveals iPhone 4 has 512MB RAM, doubling iPad - report"। Appleinsider.com। ২০১০-০৬-১৭। ৪ জুলাই ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৭-০৭ 
  17. "A Peek Inside Apple's A4 Processor"। iFixit। ২০১০-০৪-০৫। ২০১২-১২-২৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৪-০৬ 
  18. Greenberg, Marc (২০১০-০৪-০৯)। "Apple iPad: no LPDDR2?"। Denali। ২০১২-০৩-১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৪-১৮ 
  19. Merritt, Rick (২০১০-০৪-০৯)। "iPad equipped to deliver richer graphics"। EE Times Asia। ২০১১-০৯-২৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৪-১৪ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]