নীলনদ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(Nile river থেকে পুনর্নির্দেশিত)
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
স্থানাঙ্ক: ৩০°১০′ উত্তর ০৩১°০৬′ পূর্ব / ৩০.১৬৭° উত্তর ৩১.১০০° পূর্ব / 30.167; 31.100
নীল
নদ
The river in Uganda
The river in Uganda
দেশসমূহ ইথিওপিয়া, সুদান, মিশর, উগান্ডা, গণতান্ত্রিক কঙ্গো প্রজাতন্ত্র, কেনিয়া, তানজানিয়া, রুয়ান্ডা, বুরুন্ডি, দক্ষিণ সুদান, ইরিত্রিয়া
নগরসমূহ Jinja, Juba, Khartoum, কায়রো
Primary source White Nile
 - উচ্চতা ২,৭০০ মিটার (৮,৮৫৮ ফিট)
 - স্থানাঙ্ক ০২°১৬′৫৬″ দক্ষিণ ০২৯°১৯′৫৩″ পূর্ব / ২.২৮২২২° দক্ষিণ ২৯.৩৩১৩৯° পূর্ব / -2.28222; 29.33139
Secondary source Blue Nile
 - location Lake Tana, Ethiopia
 - স্থানাঙ্ক ১২°০২′০৯″ উত্তর ০৩৭°১৫′৫৩″ পূর্ব / ১২.০৩৫৮৩° উত্তর ৩৭.২৬৪৭২° পূর্ব / 12.03583; 37.26472
উত্স জনতা near Khartoum
মোহনা
 - অবস্থান Mediterranean Sea, Egypt
 - উচ্চতা ০ মিটার (০ ফিট)
 - স্থানাঙ্ক ৩০°১০′ উত্তর ০৩১°০৬′ পূর্ব / ৩০.১৬৭° উত্তর ৩১.১০০° পূর্ব / 30.167; 31.100 [১]
দৈর্ঘ্য ৬,৮৫৩ কিলোমিটার (৪,২৫৮ মাইল)
প্রস্থ ২.৮ কিলোমিটার (২ মাইল)
অববাহিকা ৩৪,০০,০০০ বর্গকিলোমিটার (১৩,১২,৭৪৭ বর্গমাইল)
প্রবাহ
 - গড় ২,৮৩০ /s (৯৯,৯৪১ ft³/s)
River Nile map.svg

নীলনদ (আরবি: النيل আন-নীল, মিশরীয় আরবি উপভাষায় el neil; প্রাচীন মিশরীয় ভাষা ইতেরু), আফ্রিকা মহাদেশের একটি নদী। এটি বিশ্বের দীর্ঘতম নদী। এর দুইটি উপনদী রয়েছে, শ্বেত নীল নদনীলাভ নীল নদ। এর মধ্যে শ্বেত নীল নদ দীর্ঘতর। শ্বেত নীল নদ আফ্রিকার মধ্যভাগের হ্রদ অঞ্চল হতে উৎপন্ন হয়েছে। এর সর্বদক্ষিণের উৎস হল দক্ষিণ রুয়ান্ডাতে ২°১৬′৫৫.৯২″ দক্ষিণ ২৯°১৯′৫২.৩২″ পূর্ব / ২.২৮২২০০০° দক্ষিণ ২৯.৩৩১২০০০° পূর্ব / -2.2822000; 29.3312000, এবং এটি এখান থেকে উত্তর দিকে তাঞ্জানিয়া, লেক ভিক্টোরিয়া, উগান্ডা, ও দক্ষিণ সুদানের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে। নীলাভ নীল নদ ইথিওপিয়ার তানা হ্রদ থেকে উৎপন্ন হয়ে পূর্ব দিকে প্রবাহিত হয়ে সুদানে প্রবেশ করেছে। দুইটি উপনদী সুদানের রাজধানী খার্তুমের নিকটে মিলিত হয়েছে।

নীলের উত্তরাংশ সুদানে শুরু হয়ে মিশরের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত, প্রায় পুরোটাই মরুভূমির মধ্য দিয়ে। মিশরের সভ্যতা প্রাচীন কাল থেকেই নীলের উপর নির্ভরশীল। মিশরের জনসংখ্যার অধিকাংশ এবং বেশিরভাগ শহরের অবস্থান আসওয়ানের উত্তরে নীলনদের উপত্যকায়। প্রাচীন মিশরের প্রায় সমস্ত সাংস্কৃতিক এবং ঐতিহাসিক গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনাও এর তীরেই অবস্থিত। বিশাল ব-দ্বীপ সৃষ্টি করে নীলনদ ভূমধ্যসাগরে গিয়ে মিশেছে।

বৈশিষ্ট্য[সম্পাদনা]

ইবনে সিনা বলেন,নীল নদের এমন কিছু বৈশিষ্ট্য আছে, যা পৃথিবীর অন্য কোন নদ-নদীর নেই৷

  • প্রথমত : উৎপত্তিস্থল থেকে শেষ প্রান্তের মাঝে এর দূরত্ব সর্বাধিক।
  • দ্বিতীয়ত : তা প্রবাহিত হয় বড় বড় পাথর ও বালুময় প্রান্তেরের উপর দিয়ে, যাতে কোন শ্যাওলা ও ময়লা-আবর্জনা নেই৷
  • তৃতীয়ত : তার মধ্যে কোন পাথরবা কংকর সবুজ হয় না। বলাবাহুল্য যে, নদীটির পানির স্বচ্ছতার কারণেই এই রকম হয়ে থাকে।
  • চতুর্থত: আর সব নদ-নদীর পানি যখন কমে যায়, এর পানি তখন বৃদ্ধি পায় আর অন্যসব নদীর পানি যখন বৃদ্ধি পায়, এর পানি তখন কমে যায়।[২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Nile River at GEOnet Names Server
  2. জিন ও ফেরেসতাদের বিস্ময়কর ইতিহাস : আল্লামা ইবনে কাসির ও আল্লামা জালাউদ্দিন সুয়ূতী :ISBN 978-984-8991-64-0|শিরোনাম= নীল নদের বৈশিষ্ট্য |সংগ্রহের-তারিখ= 29/09/2019}}

বহিসংযোগ[সম্পাদনা]