২০১৯ বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব-১৯ নারী আন্তর্জাতিক গোল্ডকাপ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
২০১৯ বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব–১৯ নারী গোল্ডকাপ
২০১৯ বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব-১৯ নারী আন্তর্জাতিক গোল্ডকাপ.png
প্রতিযোগিতার বিবরণ
স্বাগতিক দেশবাংলাদেশ বাংলাদেশ
তারিখ২২ এপ্রিল – ৩ মে ২০১৯
দল৬ (১টি কনফেডারেশন থেকে)
ভেন্যু
চূড়ান্ত অবস্থান
চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ  লাওস ( ১ম শিরোপা)
পরিসংখ্যান
ম্যাচ খেলেছে
গোল সংখ্যা৩৩ (ম্যাচ প্রতি ৪.১৩টি)
উপস্থিতি৩৪,৫৯২ (ম্যাচ প্রতি ৪,৩২৪ জন)
শীর্ষ গোলদাতালাওস এমএস পে ফোমফাকডি (৮টি গোল)
সেরা খেলোয়াড়বাংলাদেশ সানজিদা আক্তার
সেরা গোলরক্ষকবাংলাদেশ মাহমুদা আক্তার
২০২০ →
সর্বশেষ হালনাগাদ: ২৩ এপ্রিল ২০১৯

২০১৯ বাঙ্গামাতা অনূর্ধ্ব–১৯ নারী গোল্ডকাপ হল বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন কর্তৃক আয়োজিত একটি আন্তর্জাতিক যুব নারী ফুটবল টুর্নামেন্ট। এটি বঙ্গমাতা অ–১৯ আন্তর্জাতিক নারী গোল্ডকাপের প্রথম সংস্করণ।[১] ঘূর্ণিঝড় ফণীর কারণে এই আসরের ফাইনাল বাতিল করা হয় ও বাংলাদেশ-লাওসকে যৌথ চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করা হয়।

ড্র[সম্পাদনা]

১২ মার্চ ২০১৯ তারিখে ঢাকার সোনারগাঁওয়ে হোটেল প্যান প্যাসিফিকে ড্র অনুষ্ঠিত হয়। ছয়টি দলকে দুটি গ্রুপে মধ্যে বিভক্ত করা হয়। প্রতিটি গ্রুপের শীর্ষ দুই দল নকআউট পর্যায়ে যোগ্যতা অর্জন করে।

ভেন্যু[সম্পাদনা]

গ্রুপ পর্বে ৯টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়, সেমি ফাইনাল খেলা হয় বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে। স্টেডিয়ামটিতে ৩৬,০০০ হাজার আসনধারণ ক্ষমতা রয়েছে।

অংশগ্রহণকারী দল[সম্পাদনা]

দেশ
 বাংলাদেশ
 সংযুক্ত আরব আমিরাত
 মঙ্গোলিয়া
 লাওস
 কিরগিজিস্তান
 তাজিকিস্তান

গ্রুপ পর্ব[সম্পাদনা]

গ্রুপ এ[সম্পাদনা]

অব দল খে ড্র হা স্বগো বিগো গোপা পয়েন্ট যোগ্যতা অর্জন
 লাওস ১১ +১১ সেমি-ফাইনালে উন্নীত
 মঙ্গোলিয়া −২
 তাজিকিস্তান −৯
উৎস: bff.com.bd
 তাজিকিস্তান০–৩ মঙ্গোলিয়া
প্রতিবেদন
  • গোল ১৩' উন্দ্রাল টুভিশিনজারগাল
  • গোল ২৮' এঙ্খমার্গাড এঙ্খবাটার
  • গোল ৬৯' ডেল্গোরজায়া ন্যামসুরেন
দর্শক সংখ্যা: ৪,৩১৬
রেফারি: মিজানুর রহমান (বাংলাদেশ)

 মঙ্গোলিয়া০–৫ লাওস
প্রতিবেদন
  • গোল ২'৫০' এমএস পে ফোমফাকডি
  • গোল ১৩'৩২' অপহতশালা
  • গোল ৮২' সাইসামনে
দর্শক সংখ্যা: ১,৩২৯
রেফারি: মাহমুদ আল-মাজারাফি (ওমান)

 লাওস৬–০ তাজিকিস্তান
  • এমএস পে ফমফকডি গোল ৪'৩৭'
  • অনুতা চান্থীথং গোল ২৫' (পেনাল্টি)
  • সাইসামনে ইন্থফোনে গোল ৭৫'৯০'
  • ফয়জুলেভা মার্জনা গোল ৯০+৪' (আ.গো.)
প্রতিবেদন
দর্শক সংখ্যা: ১,৯৪২
রেফারি: জাইদ থামের মহম্মদ (ইরাক)

গ্রুপ বি[সম্পাদনা]

অব দল খে ড্র হা স্বগো বিগো গোপা পয়েন্ট যোগ্যতা অর্জন
 বাংলাদেশ +৩ সেমি-ফাইনালে উন্নীত
 কিরগিজিস্তান
 সংযুক্ত আরব আমিরাত −৩
উৎস: bff.com.bd
 বাংলাদেশ২-০ সংযুক্ত আরব আমিরাত
বাফুফে
দর্শক সংখ্যা: ৯,৪১৪
রেফারি: আব্দেল আকেল (জর্ডান)

 সংযুক্ত আরব আমিরাত১–২ কিরগিজিস্তান
  • শাহেদ খালেদ আলজারকান গোল ৩৯'
প্রতিবেদন
  • গোল ৬' ব্রোনবেকোভা আইজহান
  • গোল ১৮' ইরিসবেক কাইযু কেনজহেবুবু
দর্শক সংখ্যা: ১,৬৭১
রেফারি: আই. আলম (বাংলাদেশ)

 বাংলাদেশ২–১ কিরগিজিস্তান
প্রতিবেদন
  • গোল ৬৯' যাইরিনা
দর্শক সংখ্যা: ৪,২২০
রেফারি: শেন ইনহাও (চীন)

নকআউট পর্যায়[সম্পাদনা]

বন্ধনী[সম্পাদনা]

 
সেমি-ফাইনালফাইনাল
 
      
 
২৯ এপ্রিল ২০১৯ - ঢাকা
 
 
 লাওস
 
৩ মে ২০১৯ - ঢাকা
 
 কিরগিজিস্তান
 
 লাওস
 
৩০ এপ্রিল ২০১৯ - ঢাকা
 
 বাংলাদেশ
 
 বাংলাদেশ
 
 
 মঙ্গোলিয়া
 

সেমি-ফাইনাল[সম্পাদনা]

 লাওস৭–১ কিরগিজিস্তান
  • এমএস পে ফোমফাকডি গোল ৯'২১'৮৬'৮৯' (পেনাল্টি)
  • মনথিপ সিসাকেথ গোল ৭৪'
  • ভাডি ইন্থিয়া গোল ৫৭'
  • ভংসিংখাম গোল ৯০+২'
প্রতিবেদন
  • গোল ৪৩' এইতুর্গান
দর্শক সংখ্যা: ২,৩০০
রেফারি: সরকার অসিত কুমার (ভারত)

ফাইনাল[সম্পাদনা]

ঘূর্ণিঝড় ফণীর কারণে ফাইনাল বাতিল করা হয় ও বাংলাদেশ-লাওসকে যৌথ চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করা হয়। [২]

গোলদাতা[সম্পাদনা]

এখানে ৮টি ম্যাচে ৩৩টি গোল হয়েছে, যা ম্যাচ প্রতি গড়ে ৪.১৩টি গোল।

৮টি গোল

  • লাওস এমএস পে ফোমফাকডি

৪টি গোল

  • লাওস সাইসামনে ইন্থফোনে

২টি গোল

  • বাংলাদেশ কৃষ্ণা রাণী
  • লাওস অপহতশালা
  • বাংলাদেশ সানজিদা আক্তার
  • কিরগিজিস্তান যাইরিনা
  • বাংলাদেশ সিরাত জাহান স্বপ্না
  • মঙ্গোলিয়া উন্দ্রাল টুভিশিনজারগাল
  • মঙ্গোলিয়া এঙ্খমার্গাড এঙ্খবাটার
  • মঙ্গোলিয়া ডেল্গোরজায়া ন্যামসুরেন
  • সংযুক্ত আরব আমিরাত শাহেদ খালেদ আলজারকান
  • কিরগিজিস্তান ইরিসবেক কাইযু কেনজহেবুবু
  • লাওস অনুতা চান্থীথং
  • কিরগিজিস্তান বোরোনবেকোভা আইজহান
  • কিরগিজিস্তান এইতুর্গান
  • লাওস ভংসিংখাম
  • লাওস মনথিপ সিসাকেথ
  • লাওস ভাডি ইন্থিয়া
  • বাংলাদেশ মার্জিয়া আক্তার
  • বাংলাদেশ মনিকা চাকমা
  • বাংলাদেশ তহুরা খাতুন

১টি আত্মঘাতী গোল

  • লাওস ফয়জুলেভা মার্জনা (তাজিকিস্তানের বিপক্ষে)

সম্প্রচার[সম্পাদনা]

এলাকা টিভি
বাংলাদেশ আরটিভি [৩]

স্পনসরশিপ[সম্পাদনা]

স্থানীয় ক্রীড়া বিপণন সংস্থা কে-স্পোর্টস, টুর্নামেন্টের এই সংস্করণের স্বত্ব কিনে নিয়েছে এবং সমস্ত ব্যয় সরবরাহ করবে। [৪]

সহ-স্পনসরগণ হল:

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]