হ্যারি আলেকজান্ডার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
হ্যারি আলেকজান্ডার
হ্যারি আলেকজান্ডার.jpg
১৯৩২ সালের সংগৃহীত স্থিরচিত্রে হ্যারি আলেকজান্ডার
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামহ্যারি হুস্টন আলেকজান্ডার
জন্ম(১৯০৫-০৬-০৯)৯ জুন ১৯০৫
অ্যাস্কট ভেল, ভিক্টোরিয়া, অস্ট্রেলিয়া
মৃত্যু১৫ এপ্রিল ১৯৯৩(1993-04-15) (বয়স ৮৭)
ইস্ট মেলবোর্ন, ভিক্টোরিয়া, অস্ট্রেলিয়া
ডাকনামবুল
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি ফাস্ট
ভূমিকাবোলার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
একমাত্র টেস্ট২৩ ফেব্রুয়ারি ১৯৩৩ বনাম ইংল্যান্ড
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ৪১
রানের সংখ্যা ১৭ ২২৮
ব্যাটিং গড় ১৭.০০ ৬.১৬
১০০/৫০ ০/০ ০/০
সর্বোচ্চ রান ১৭* ২৩*
বল করেছে ২৭৬ ৬৪৪৯
উইকেট ৯৫
বোলিং গড় ১৫৪.০০ ৩৩.৯১
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ১/১২৯ ৭/৯৫
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ০/০ ১৭/০
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ২৬ জুলাই ২০১৯

হ্যারি হুস্টন বুল আলেকজান্ডার (ইংরেজি: Harry Alexander; জন্ম: ৯ জুন, ১৯০৫ - মৃত্যু: ১৫ এপ্রিল, ১৯৯৩) ভিক্টোরিয়ার অ্যাস্কট ভেল এলাকায় জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা অস্ট্রেলীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ছিলেন।[১] অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৩৩ সালে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটে ভিক্টোরিয়া দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি ফাস্ট বোলার হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, নিচেরসারিতে ডানহাতে কার্যকরী ব্যাটিংশৈলী উপস্থাপন করতেন হ্যারি আলেকজান্ডার

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৯২৮-২৯ মৌসুম থেকে ১৯৩৫-৩৬ মৌসুম পর্যন্ত হ্যারি আলেকজান্ডারের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। ১৯২৮ থেকে ১৯৩৬ সময়কালে ভিক্টোরিয়ার পক্ষে শেফিল্ড শিল্ডের ৪১টি খেলায় অংশগ্রহণের সুযোগ পেয়েছিলেন তিনি। এছাড়াও, ১৯২৪-২৫ মৌসুম থেকে ১৯৩৬-৩৭ মৌসুম পর্যন্ত মেলবোর্নের স্থানীয় ক্রিকেট প্রতিযোগিতায় এসেনডনের পক্ষে ৮৯টি ও নর্থ মেলবোর্নের পক্ষে চারটি খেলায় অংশ নিয়েছিলেন।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে একটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করেছেন। ২৩ ফেব্রুয়ারি, ১৯৩৩ তারিখে সিডনিতে সফরকারী ইংল্যান্ড দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার।[২] এটিই তার একমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ ছিল।

১৯৩৩ সালের কুখ্যাত বডিলাইন সিরিজে অংশগ্রহণের সুযোগ হয়েছিল তার। সিডনিতে সফরকারী ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের পঞ্চম টেস্টে ডানহাতি উদ্বোধনী ফাস্ট বোলার হিসেবে খেলেন।

অবসর[সম্পাদনা]

ক্রিকেট খেলা থেকে অবসর গ্রহণের পর ভিক্টোরিয়ার মধ্যাঞ্চলীয় এলাকা ইউরোয়ায় চলে যান। মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডের অনুসরণে স্থানীয় মেমোরিয়াল ওভালের অবকাঠামো নির্মাণের দেখাশোনা করার দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৫০ ও ১৯৬০-এর দশকে এমসিসি দলসহ অন্যান্য সফরকারী দলের ওভালে খেলার ব্যবস্থাপনায় নিযুক্ত ছিলেন। এছাড়াও, ইউরোয়ায় ফুটবল ক্লাবের সাবেক সভাপতি তিনি। মেমোরিয়াল ওভালের সম্মিলন কক্ষ তার সম্মানার্থে নামকরণ করা হয়। আলেকজান্দ্রা, ইউরোয়া এন্ড ডিস্ট্রিক্টস ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন হল অব ফেমে তালিকাভুক্ত হন তিনি।

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

১৫ এপ্রিল, ১৯০৫ তারিখে ৮৭ বছর বয়সে ভিক্টোরিয়ার ইস্ট মেলবোর্ন এলাকায় হ্যারি আলেকজান্ডারের দেহাবসান ঘটে। ২৮ ফেব্রুয়ারি, ১৯৯৫ তারিখে কিথ রিগের দেহাবসানের পর অস্ট্রেলিয়ার বয়োঃজ্যেষ্ঠ জীবিত টেস্ট ক্রিকেটার সম্মাননা লাভ করেছিলেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Australia – Test Batting Averages"। ESPNCricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৬ জুলাই ২০১৯ 
  2. "England in Australia (1932 – 1933): Scorecard of fifth Test"। Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ২৬, ২০১৯ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]