হিমসাগর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
হিমসাগর
ভৌগোলিক নির্দেশক
Mango Himsagar Asit ftg.jpg
২০০৭ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় ১৫তম বার্ষিক আন্তর্জাতিক আমের উত্সবে প্রদর্শিত হিমসাগর আম।
বর্ণনাহিমসাগর আম একটি সুগন্ধযুক্ত ভারতীয় আম যা মূলত পশ্চিমবঙ্গে চাষ হয়
ধরনপশ্চিমবঙ্গ সুগন্ধযুক্ত আম
অঞ্চলঐতিহ্যগতভাবে নদীয়া , মুর্শিদাবাদ , মালদহ এবং হুগলী জেলায় চাষ করা হয়।
দেশভারত
হিমসাগর আম
হিমসাগর আমের আঁঠি
খোসা ছাড়ানো হিমসাগর আমের টুকরো।

হিমসাগর পশ্চিমবঙ্গের একটি বিখ্যাত আম। এছাড়া বাংলাদেশের রাজশাহী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও সাতক্ষীরা জেলাতেও এই আমের চাষ হয়। এই আমের মিষ্টি সুগন্ধ ও স্বাদ পৃথিবীর অন্যান্য আমের থেকে ভিন্ন। তাই সারা পৃথিবীতে স্বাদ ও গন্ধের জন্য এই আম বাণিজ্যিক ভাবে বহুল পরিমানে চাষ করা হয়। হিমসাগর আম এতোই জনপ্রিয় যে , এই আমকে আমের রাজা বলা হয়। এই আমের ভিতরের রং হলুদ ও কমলা(রং) এবং কোন আঁশ নেই।[১]

হিমসাগর আম জুন মাসে গাছে পাকতে শুরু করে এবং জুনের শেষের দিকে পূর্ণ বাজারজাত করা হয়। এই আম ভারতের নদীয়া , মুর্শিদাবাদ , মালদহ এবং হুগলীতে চাষ করা হয়।[২]

গঠন[সম্পাদনা]

একটি স্বাভাবিক আমের ওজন ২৫০ থেকে ৩৫০ গ্রাম হয়ে থাকে যার ৭৭ শতাংশই হল আম বাকি ২৩ শতাংশ আমের আটি। এই উৎকর্ষতাই এই আমের বৈশিষ্ট্য।[৩] হিমসাগর আমের স্বাদ অন্যান্য জনপ্রিয় আম আল্পফন্স ও ল্যাংড়া আমের থেকে ভাল। এই আমকে ভালবেসে একশোরও ওপর লেখক কবিতা লিখেছেন। ভারত ও বাঙলায় এই আম ছাড়া গ্রীষ্মকাল ভাবাই যায় না।

ভৌগোলিক স্বীকৃতি[সম্পাদনা]

এই আম ভারতের ভৌগোলিক অস্তিত্বের ইঙ্গিত দেয়। তাই এই আমকে ভারতের ভৌগোলিক অস্তিত্বের ইঙ্গিত হিসাবে নির্বাচন করা হয়েছে।[১] এই আমের নিবন্ধন সংখ্যা ১১২।[৪] প: বঙ্গ এর দুই ২৪ পরগণায় পাওয়া যায়

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Cottony soft to luscious and juicy - Bengal mangoes in Delhi"Samay Live। ১৮ জুন ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ১৪ জুলাই ২০১৩ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  2. "Mango tango"The Telegraph। Kolkata। ১০ জুন ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ১৪ জুলাই ২০১৩ 
  3. Parmar, Chiranjit। "Mango"Fruitpedia.com। ১৯ জুলাই ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৪ জুলাই ২০১৩ 
  4. "Himsagar Mango Malda" (PDF)Office of the Resident Commissioner, Government of West Bengal। সংগ্রহের তারিখ ১৪ জুলাই ২০১৩