সরাইকেল্লা খরসোয়া জেলা

স্থানাঙ্ক: ২২°৪২′০০″ উত্তর ৮৫°৫৫′১২″ পূর্ব / ২২.৭০০০০° উত্তর ৮৫.৯২০০০° পূর্ব / 22.70000; 85.92000
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাইকেল্লা খরসোয়া জেলা
ঝাড়খণ্ডের জেলা
ঝাড়খণ্ডে সরাইকেল্লা খরসোয়ার অবস্থান
ঝাড়খণ্ডে সরাইকেল্লা খরসোয়ার অবস্থান
দেশভারত
রাজ্যঝাড়খণ্ড
প্রশাসনিক বিভাগকোলহান বিভাগ
সদরদপ্তরসরাইকেল্লা
সরকার
 • বিধানসভা আসন
আয়তন
 • মোট২,৬৫৭ বর্গকিমি (১,০২৬ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)
 • মোট১০,৬৫,০৫৬
 • জনঘনত্ব৪০০/বর্গকিমি (১,০০০/বর্গমাইল)
জনতাত্ত্বিক
 • সাক্ষরতা৬৭.৭০ শতাংশ
 • লিঙ্গানুপাত৯৫৪
প্রধান মহাসড়কজা.স.১৮ ও ৪৩
ওয়েবসাইটদাপ্তরিক ওয়েবসাইট
চান্দিল বাঁধ

সরাইকেল্লা খরসোয়া জেলা পূর্ব ভারতে অবস্থিত ঝাড়খণ্ড রাজ্যের ২৪ টি জেলার একটি জেলা৷ ৩০ এপ্রিল ২০০১ খ্রীষ্টাব্দে (১৬ই বৈশাখ ১৪০৮ বঙ্গাব্দ) পুর্বতন পশ্চিম সিংভূম জেলা খন্ডিত করে নতুন জেলাটি গঠিত হয়৷ জেলাটি ঝাড়খণ্ডের দক্ষিণ-পূর্ব(অগ্নিকোণে) অবস্থিত কোলহান বিভাগের অন্তর্গত৷ জেলাটির জেলাসদর সরাইকেলা শহরে অবস্থিত এবং সরাইকেল্লা মহকুমাচাণ্ডিল মহকুমা নিয়ে গঠিত৷

নামকরণ[সম্পাদনা]

জেলাটি স্বাধীনতার পুর্বে দুটি রাজত্বে বিভক্ত ছিলো যথা সরাইকেল্লা ও খরসোয়া৷ খরসোয়া নামে উৎপত্তি না জানা গেলেও ওড়িয়া রাজাদের গড় সরাইকেল্লা নাম এসেছে শহরের চারদিকের উঁচু প্রাচীরের উপস্থিতি থেকে৷

ইতিহাস[সম্পাদনা]

ঐতিহাসিক আন্দোলন[সম্পাদনা]

ভূপ্রকৃৃতি[সম্পাদনা]

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

অবস্থান[সম্পাদনা]

জেলাটির উত্তরে ঝাড়খণ্ড রাজ্যের রাঁচি জেলাপশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের পুরুলিয়া জেলা৷ জেলাটির উত্তর পূর্বে(ঈশান) পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের পুরুলিয়া জেলা৷ জেলাটির পূর্বে ঝাড়খণ্ড রাজ্যের পূর্ব সিংভূম জেলা৷ জেলাটির দক্ষিণ পূর্বে(অগ্নি) ঝাড়খণ্ড রাজ্যের পূর্ব সিংভূম জেলা৷ জেলাটির দক্ষিণে ওড়িশা রাজ্যের ময়ূরভঞ্জ জেলা৷ জেলাটির দক্ষিণ পশ্চিমে(নৈঋত) ঝাড়খণ্ড রাজ্যের পশ্চিম সিংভূম জেলা৷ জেলাটির পশ্চিমে ঝাড়খণ্ড রাজ্যের খুঁটি জেলা৷ জেলাটির উত্তর পশ্চিমে(বায়ু) ঝাড়খণ্ড রাজ্যের রাঁচি জেলা৷[১]

জেলাটির আয়তন ২৬৫৭ বর্গ কিমি৷ রাজ্যের জেলায়তনভিত্তিক ক্রমাঙ্ক ২৪ টি জেলার মধ্যে তম৷ জেলার আয়তনের অনুপাত ঝাড়খণ্ড রাজ্যের ৩.৩৩%৷

ভাষা[সম্পাদনা]

সরাইকেল্লা খরসওয়াঁ জেলাটি একটি বহুভাষিক ও বহুসাংস্কৃতিক জেলা ৷ প্রধান ব্যবহৃত ভাষাগুলি হলো - বাংলা, সাঁওতালি, হিন্দি; এছাড়াও ওড়িয়া, মুন্ডা, এবং হো ভাষা বহুল প্রচলিত৷

২০১১ অনুযায়ী বিভিন্ন ভাষাসমূহ[২]

  বাংলা (৪৪.০১%)
  সাঁওতালি (১৫.৬২%)
  হিন্দী (১০.৭৬%)
  হো ভাষা (৯.৬৫%)
  ওড়িয়া (৯.৪৮%)
  উর্দু (২.৮৩%)
  মৈথিলী (১.০৫%)
  অন্যান্য (১.৭৮%)

ধর্ম[সম্পাদনা]

জনসংখ্যা[সম্পাদনা]

মোট জনসংখ্যা ৮৪৮৮৫০(২০০১ জনগণনা) ও ১০৬৫০৫৬(২০১১ জনগণনা)৷[৩] রাজ্যে জনসংখ্যাভিত্তিক ক্রমাঙ্ক ২৪ টি জেলার মধ্যে ১৪তম৷ ঝাড়খণ্ড রাজ্যের ৩.২৩% লোক সরাইকেল্লা খরসোয়া(খরসওয়াঁ) জেলাতে বাস করেন৷ জেলার জনঘনত্ব ২০০১ সালে ৩১১ ছিলো এবং ২০১১ সালে তা বৃদ্ধি পেয়ে ৪০১ হয়েছে জেলার জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার ২০০১-২০১১ সালের মধ্যে জনসংখ্যা বৃৃদ্ধির হার ২৫.৪৭% , যা ১৯৯১-২০১১ সালের ২১.১৫% বৃদ্ধির হারের থেকে বেশি৷ জেলাটিতে লিঙ্গানুপাত ২০১১ অনুযায়ী ৯৫৬(সমগ্র) এবং শিশু(০-৬ বৎ) লিঙ্গানুপাত ৯৪৩৷

নদনদী[সম্পাদনা]

পরিবহন ও যোগাযোগ[সম্পাদনা]

পর্যটন ও দর্শনীয় স্থান[সম্পাদনা]

ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি[সম্পাদনা]

শিক্ষা[সম্পাদনা]

জেলাটির স্বাক্ষরতা হার ৫৪.৯০%(২০০১) তথা ৬৭.৭০%(২০১১)৷ পুরুষ স্বাক্ষরতার হার ৭০.৯৮%(২০০১) তথা ৭৯.০৩%(২০১১)৷ নারী স্বাক্ষরতার হার ৩৭.৯৬%(২০০১) তথা ৫৫.৮৮% (২০১১)৷ জেলাটিতে শিশুর অনুপাত সমগ্র জনসংখ্যার ১৪.৯৮%৷[৩]

প্রশাসনিক বিভাগ[সম্পাদনা]

==সীমান্ত==সরাইকেলা জেলা দুটি রাজ্য ওডিশা ও পশ্চিমবঙ্গ জেলা সীমানা বণ্টন করে।

বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]