পূর্ব সিংভূম জেলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পূর্ব সিংভূম জেলা
ঝাড়খণ্ডের জেলা
ঝাড়খণ্ডে পূর্ব সিংভূমের অবস্থান
ঝাড়খণ্ডে পূর্ব সিংভূমের অবস্থান
দেশভারত
রাজ্যঝাড়খণ্ড
প্রশাসনিক বিভাগকোলহান বিভাগ
সদরদপ্তরজামশেদপুর
সরকার
 • লোকসভা কেন্দ্রজামশেদপুর
 • বিধানসভা আসন
আয়তন
 • মোট৩,৫৬২ বর্গকিমি (১,৩৭৫ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)
 • মোট২২,৯৩,৯১৯
 • জনঘনত্ব৬৪০/বর্গকিমি (১,৭০০/বর্গমাইল)
জনতাত্ত্বিক
 • সাক্ষরতা৭৫.৪৯ শতাংশ
 • লিঙ্গানুপাত৯৪৯
প্রধান মহাসড়কজা.স.৩৩ ও জা.স.৬
ওয়েবসাইটদাপ্তরিক ওয়েবসাইট

পূর্ব সিংভূম জেলা হলো ভারত-এর ঝাড়খণ্ড রাজ্যে অবস্থিত ২৪ টি জেলার একটি ৷ ১৬ জানুয়ারি ১৯৯০ খ্রীষ্টাব্দে (২রা মাঘ ১৩৯৬ বঙ্গাব্দ)পূর্বতন সিংভূম জেলাটি ভেঙে এই জেলাটি গঠিত হয়৷ জেলাটি ঝাড়খণ্ড রাজ্যের কোলহান বিভাগের অন্তর্গত।

ভুগোল[সম্পাদনা]

পূর্ব সিংভূম জেলার পূর্বে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের ঝাড়গ্রাম জেলা , উত্তরে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের পুরুলিয়া জেলা , দক্ষিণে ওড়িশা রাাজ্যের ময়ূরভঞ্জ জেলা এবং পশ্চিমে ঝাড়খণ্ড রাজ্যের পশ্চিম সিংভূমসরাইকেলা খরসওয়াঁ জেলা অবস্থিত৷

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

ঝাড়খণ্ড রাজ্যের পূর্ব সিংভূম জেলাটি খনিজ উত্তোলন ও অন্যান্য বিভিন্ন বড়শিল্পজাত উৎপাদনের ক্ষেত্রে অগ্রগণ্য ৷ টাটানগর-জাামশেদপুর হলো জেলাটির সদর ও ভারতের অন্যতম উন্নতিশীল শিল্পনগরী ৷ পাঁচ দশক পুরানো তামা আকরিক পরিশোধনাগার হিন্দুস্থান কপার লিমিটেডটি জেলাটির অপর গুরুত্বপূর্ণ শহর ঘাটশিলার মৌভান্ডারে অবস্থিত ৷ সুবর্ণরেখার দক্ষিণ-পশ্চিমে তামা ও ইউরেনিয়ামের খনিটি অবস্থিত ৷ উল্লেখযোগ্য তামা উত্তোলনকেন্দ্রগুলি হল বনলোপা , বদিয়া , পাথরগোড়া , ধোবনি , কেন্দাডি এবং রাখা ৷ মুসাবনির সুরদাতে আবিষ্কৃৃৃত খনিটি পরীক্ষাধীন যা একটি অস্ট্রেলীয় খনন প্রতিষ্ঠান দ্বারা পরিচালিত ৷ ইউরেনায়াম কর্পোরেসন অফ ইন্ডিয়ার উদ্যোগে প্রাপ্ত ইউরেনিয়াম খনিগুলি নারোয়াপাহাড় , ভাতিন , তুরামডি , বাগজান্তাতে অবস্থিত ৷ জেলাটির দক্ষিণ-পূর্বে অবস্থিত চাকুলিয়া চালকল , তেলঘানি , সাবান কারখানা ও বাঁল চাষের জন্য বিখ্যাত ৷ ৬ নং জাতীয় সড়কের ওপর বাহারাগোড়া একটি অন্যতম সংযোগকেন্দ্র ৷

পরিবহন[সম্পাদনা]

প্রশাসনিক বিভাগ[সম্পাদনা]

জেলাটি ১১ টি মন্ডল নিয়ে গঠিত যাা নিম্নরূপ -

১) গোলমুরি ও যুগশলাই ২) পোটকা ৩) পতমদা ৪) বোরাম ৫) ঘাটশিলা ৬) মুসাবনি ৭) দুমারিয়া ৮) গুড়িবান্দা ৯) ধলভূমগড় ১০) বাহারাগোরা ১১) চাকুলিয়া

সংস্কৃতি[সম্পাদনা]

পুর্ব সিংভূম জেলাটি একাধিক সংস্কৃতিসম্পন্ন জাতিগোষ্ঠীর বাসস্থল যথা সাঁওতালি, বাংলা, ওড়িয়া, হিন্দী ছাড়াও হো, মুন্ডা, উর্দুভাষী লোকের বসবাস লক্ষণীয় ৷ প্রধান উৎসবগুলি হলো - দুর্গাপূজা, কালীপূজা, সোহরাই , মকর সংক্রান্তি, টুসু উৎসব ইত্যাদি ৷

দর্শনীয় স্থান[সম্পাদনা]

সিদ্ধেশ্বরী মন্দির

অন্যতম দর্শনীয় স্থানটি হলো চিত্রেশ্বর মন্দির যা বাহারাগোরা থেকে ১২ কিমি দূরে অবস্থিত ৷ ঘাটশিলা শহরটি মনোরম দৃশ্য ও আবহাওয়ার জন্য বিখ্যাত ৷ ঘাটশিলাতে অবস্থিত বাঙালী ঔপন্যাসিক বিভূতিভূষণ বন্দোপাধ্যায় এর বাসস্থান ৷ উপজাতিগোষ্ঠী ও অন্যান্যদের দ্বারা বহুল পূজিতা দেবী রঙ্কিনী কালী মন্দিরটি ঘাটশিলার নিকট জাদুগোড়াতে অবস্থিত ৷

ধর্ম[সম্পাদনা]

২০১১ অনুযায়ী ভিন্ন ধর্মাবলম্বী মানুষ

  হিন্দু (৬৭.৫৮%)
  ইসলাম (৮.৮৯%)
  সরনা (১৯.৯৭%)
  শিখ (১.৬৮%)
  খ্রীষ্টান (১.৩২%)
  অন্যান্য (০.৫৬%)

ভাষা[সম্পাদনা]

পূর্ব সিংভূম জেলাতে প্রচলিত ভাষাসমূহের পাইচিত্র নিম্নরূপ

২০১১ অনুযায়ী বিভিন্ন ভাষাসমূহ

  বাংলা (৩৪.৪২%)
  হিন্দী (২৪.৬২%)
  সাঁওতালি (১৫.৯২%)
  উর্দু (৭.২৮%)
  ওড়িয়া (৫.২৭%)
  হো ভাষা (২.৭৬%)
  পাঞ্জাবি (১.৮৬%)
  মৈথিলী (১.৩১%)
  অন্যান্য (৩.৭৬%)

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]