লিয়াকত আলী (ক্রিকেটার)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
লিয়াকত আলী
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামলিয়াকত আলী খান
জন্ম (1955-05-21) ২১ মে ১৯৫৫ (বয়স ৬৬)
করাচী, সিন্ধু, পাকিস্তান
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনবামহাতি মিডিয়াম-ফাস্ট
ভূমিকাবোলার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ৭০)
১ মার্চ ১৯৭৫ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
শেষ টেস্ট১৫ জুন ১৯৭৮ বনাম ইংল্যান্ড
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ২০)
২৩ ডিসেম্বর ১৯৭৭ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ ওডিআই২৬ মে ১৯৭৮ বনাম ইংল্যান্ড
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই
ম্যাচ সংখ্যা
রানের সংখ্যা ২৮
ব্যাটিং গড় ৭.০০ ৭.০০
১০০/৫০ -/- -/-
সর্বোচ্চ রান ১২
বল করেছে ৮০৮ ১৮৮
উইকেট
বোলিং গড় ৫৯.৮৩ ৫৫.৫০
ইনিংসে ৫ উইকেট - -
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং ৩/৮০ ১/৪১
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১/- -/-
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ৭ সেপ্টেম্বর ২০২০

লিয়াকত আলী খান (উর্দু: لیاقت علی‎‎; জন্ম: ২১ মে, ১৯৫৫) সিন্ধু প্রদেশের করাচী এলাকায় জন্মগ্রহণকারী সাবেক পাকিস্তানি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। পাকিস্তান ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৭০-এর দশকের মাঝামাঝি সময়কালে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে পাকিস্তানের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর পাকিস্তানি ক্রিকেটে হাবিব ব্যাংক লিমিটেড, করাচী, পাকিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্স ও সিন্ধু দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ বামহাতি মিডিয়াম-ফাস্ট বোলার হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, ডানহাতে নিচেরসারিতে ব্যাটিং করতেন লিয়াকত আলী

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

১৯৭০-৭১ মৌসুম থেকে ১৯৯০-৯১ মৌসুম পর্যন্ত লিয়াকত আলী’র প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। সবমিলিয়ে ১৭৩টি প্রথম-শ্রেণীর খেলায় অংশ নেন ও ৪৮৯ উইকেট দখল করেছিলেন।

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে পাঁচটিমাত্র টেস্ট ও তিনটিমাত্র একদিনের আন্তর্জাতিকে অংশগ্রহণ করেছেন লিয়াকত আলী। ১ মার্চ, ১৯৭৫ তারিখে করাচীতে সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার।[১] ১৫ জুন, ১৯৭৮ তারিখে লর্ডসে স্বাগতিক ইংল্যান্ড দলের বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন তিনি।[১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Liaqat Ali"Cricinfo 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]