শফিক আহমেদ (ক্রিকেটার)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
শফিক আহমেদ
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামশফিক আহমেদ
জন্ম২৮ মার্চ, ১৯৪৯
লাহোর, পাঞ্জাব প্রদেশ, পাকিস্তান
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি মিডিয়াম
ভূমিকাব্যাটসম্যান
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ৬৮)
২৫ জুলাই ১৯৭৪ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ টেস্ট৩০ ডিসেম্বর ১৯৮০ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ২২)
২৩ ডিসেম্বর ১৯৭৭ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ ওডিআই১৩ জানুয়ারি ১৯৭৮ বনাম ইংল্যান্ড
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ২৬৬ ৪২
রানের সংখ্যা ৯৯ ৪১ ১৯,৫৭২ ১,১১৭
ব্যাটিং গড় ১১.০০ ১৩.৬৬ ৪৯.৯২ ২৯.৩৯
১০০/৫০ -/- -/- ৫৩/১১৩ ২/৬
সর্বোচ্চ রান ২৭* ২৯ ২১৭* ১৩৩*
বল করেছে - ৭,১৭৯ ৩৬৮
উইকেট - - ৯৯
বোলিং গড় - - ৩৩.৫৩ ৩৭.২০
ইনিংসে ৫ উইকেট - - - -
ম্যাচে ১০ উইকেট - - - -
সেরা বোলিং - - ৪/২৭ ২/২৪
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং -/- ১/- ২১৮/- ১০/-
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ২৩ জানুয়ারি ২০২০

শফিক আহমেদ (উর্দু: شفیق احمد‎‎; জন্ম: ২৮ মার্চ, ১৯৪৯) পাঞ্জাব প্রদেশের লাহোরে জন্মগ্রহণকারী সাবেক পাকিস্তানী আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। পাকিস্তান ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৭৪ থেকে ১৯৮০ সময়কালে পাকিস্তানের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর পাকিস্তানী ক্রিকেটে লাহোর, পাকিস্তান ন্যাশনাল ব্যাংক, পাঞ্জাব, পাঞ্জাব বিশ্ববিদ্যালয় ও ইউনাইটেড ব্যাংক লিমিটেড দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, ডানহাতে মিডিয়াম বোলিং করতেন তিনি।

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৯৬৭-৬৮ মৌসুম থেকে ১৯৯০-৯১ মৌসুম পর্যন্ত শফিক আহমেদের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। আকর্ষণীয় ডানহাতি ব্যাটসম্যান ছিলেন। সহজাত প্রকৃতির অধিকারী শফিক আহমেদ সুন্দরভাবে স্ট্রোক মারতেন। মূলতঃ ব্যাটিং উদ্বোধন কিংবা তিন নম্বর অবস্থানে ব্যাট হাতে মাঠে নামতেন। দারুণ ভঙ্গীমায় ড্রাইভ ও কাটের ফুলঝুড়ি ছোটাতেন। প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে দূর্দান্ত ক্রীড়াশৈলী উপস্থাপন করলেও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এর উল্টো ছিল।

ঘরোয়া ক্রিকেটে সর্বমোট ৫৩টি সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন। চারজন পাকিস্তানী ক্রিকেটারের অন্যতম হিসেবে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে তার গড় ৫০-এর কাছাকাছি রয়েছে।

ঘরোয়া ক্রিকেটে নিয়মিতভাবে রান পেয়েছেন। ১৯৬৭-৬৮ মৌসুমে ১৮ বছর বয়সে পাঞ্জাব বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। ১৯৯০-৯১ মৌসুমে ইউনাইটেড ব্যাংক লিমিটেডের পক্ষে ৪১ বছর বয়সে সর্বশেষ খেলায় অংশ নেন তিনি। এ পর্যায়ে সাত মৌসুমে সহস্রাধিক রান সংগ্রহ করার কৃতিত্ব প্রদর্শন করেছেন।[১]

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে ছয়টিমাত্র টেস্ট ও তিনটিমাত্র একদিনের আন্তর্জাতিকে অংশগ্রহণ করেছেন শফিক আহমেদ। ২৫ জুলাই, ১৯৭৪ তারিখে লিডসে স্বাগতিক ইংল্যান্ড দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। ৩০ ডিসেম্বর, ১৯৮০ তারিখে মুলতানে সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন তিনি।

ছয়টি টেস্টে অংশ নিয়ে জয় কিংবা পরাজিত না হবার অনন্য রেকর্ডের সাথে ভারতীয় ক্রিকেটার চন্দ্রশেখর গদকড়ি’র সাথে নিজ নামকে জড়িয়ে রেখেছেন।[২]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

ইংল্যান্ডের পেশাদার ল্যাঙ্কাশায়ার লীগে খেলেছেন। চার্চ দলের সদস্যরূপে ১৯৭৫ থেকে ১৯৭৭ সাল পর্যন্ত খেলেছেন। ক্রিকেট খেলা থেকে অবসর গ্রহণের পর পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) সভাপতি ওয়াসিম বারি’র সহকারী হিসেবে ২০০৩ সালে দায়িত্ব পালন করেছেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Shafiq Ahmed batting by season
  2. Walmsley, Keith (২০০৩)। Mosts Without in Test Cricket। Reading, England: Keith Walmsley Publishing Pty Ltd। পৃষ্ঠা 457। আইএসবিএন 0947540067 .

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]