লিগ্যান্ড

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search


এই নিবন্ধটি অজৈব রসায়নে লিগ্যান্ড সম্পর্কে লেখা হয়েছে। প্রাণরসায়নে লিগ্যান্ড সম্পর্কে জানতে দেখুন লিগ্যান্ড (প্রাণরসায়ন)। অন্যান্য ব্যবহারের জন্য দেখুন লিগ্যান্ড (দ্ব্যর্থতা নিরসন)

পাঁচটি লিগ্যান্ডের সহিত কোবাল্ট জটিল HCo(CO)4

সন্নিবেশ রসায়নে, লিগ্যান্ড[সাহায্য ১] হল একটি আয়ন বা অণু (ক্রিয়ামূলক শ্রেনী) যা একটি কেন্দ্রীয় ধাতু পরমাণুর সাথে বন্ধনে যুক্ত হয়ে একটি সন্নিবেশ জটিল যৌগ গঠন করে। সাধারণত লিগ্যান্ড এক বা একাধিক নির্দিষ্ট ইলেকট্রন জোড় দানের মাধ্যমে ধাতুর সাথে বন্ধন গঠন করে থাকে। ধাতু-লিগ্যান্ডের বন্ধন প্রকৃতি সমযোজী বন্ধন থেকে আয়নিক বন্ধন হতে পারে। এছাড়া ধাতু-লিগ্যান্ড বন্ধন ক্রম এক থেকে তিন পর্যন্ত হতে পারে। লিগ্যান্ড লুইস ক্ষার হিসাবে বিবেচিত হলেও, কদাচিৎ ক্ষেত্রে "লিগ্যান্ড" লুইস অম্ল রূপেও পাওয়া যায়।[১][২]

ধাতু এবং ধাতব পদার্থগুলি প্রায় সব পরিস্থিতিতে লিগ্যান্ড দ্বারা আবৃত থাকে, যদিও উচ্চ ভ্যাকুয়ামে গ্যাসীয় "নগ্ন" ধাতব আয়ন তৈরি করা যায়। একটি জটিলে লিগ্যান্ডসমূহ, লিগ্যান্ড প্রতিস্থাপন বিক্রিয়ার হার, লিগ্যান্ডগুলির নিজেদের সক্রিয়তা এবং জারন-বিজারন বিক্রিয়া সহ কেন্দ্রীয় পরমাণু এর সক্রিয়তা নিয়ন্ত্রণ করে থাকে। লিগ্যান্ড নির্বাচন প্রান-অজৈব রসায়ন এবং ঔষধ রসায়ন, সমজাতীয় অনুঘটন এবং পরিবেশগত রসায়নসহ অনেক বাস্তব ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

চার্জ, আকার (আয়তন), সন্নিবেশ পরমাণু (পরমাণুগুলি) এর পরিচয়, এবং ধাতু কর্তৃক গৃহীত ইলেকট্রন সংখ্যা(ডেন্টিসিটি বা হ্যাপটিসিটি) এর ওপর ভিত্তি করে লিগ্যান্ডসমূহকে বিভিন্ন উপায়ে শ্রেণীবিভক্ত করা যায়। একটি লিগ্যান্ডের আকার তার কোণ অ্যাঙ্গেল দ্বারা নির্দেশিত হয়।

পরিচ্ছেদসমূহ

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৮০০-এর দশকের প্রথম দিক থেকে প্রুসিয়ান ব্লু এবং কপার ভিট্রিয়ল নামক সন্নিবেশ জটিল যৌগ সমূহের প্রস্তুতি প্রচলিত রয়েছে। আলফ্রেড ওয়ারনার এর সূত্র এবং সমাণুর পুনর্মিলন একটি যুগান্তকারি আবিষ্কার ছিল। অন্যান্য নানা বিষয়ের সাথে তিনি দেখিয়েছিলেন যে, একটি ধাতু যদি অষ্টতলকীয় জ্যামিতিক গঠনাকৃতিতে ছয়টি লিগ্যান্ডের সাথে যুক্ত হয় তাহলে কোবাল্ট (III) এবং ক্রোমিয়াম (III) এর বিভিন্ন যৌগের গঠনপ্রণালী ব্যাখ্যা করা যায়। আলফ্রেড স্টক এবং কার্ল সোমিয়েস্কি "লিগ্যান্ড" শব্দটি সিলিকন রসায়ন সম্বন্ধে সর্বপ্রথম ব্যবহার করেন। এই তত্ত্বটি কোবাল্ট অ্যামিন ক্লোরাইডসমূহে সন্নিবেশ ও আয়নিক ক্লোরাইডের পার্থক্য বুঝতে সহায়তা করে এবং পূর্বে অব্যাখ্যেয় বিভিন্ন সমানুর ব্যাখ্যা দেয়। তিনি কার্বন যৌগসমূহে কাইরালিটি এর উপস্থিতি অপরিহার্য এই তত্ত্বটি প্রত্যাখ্যান করে, হেক্সল নামক প্রথম সন্নিবেশ জটিল যৌগের আলোক সমানুসমূহ নির্ণয় করেন।[৩][৪]

সবল ক্ষেত্র এবং দুর্বল ক্ষেত্র লিগ্যান্ডসমূহ[সম্পাদনা]

মূল নিবন্ধ: স্ফটিক ক্ষেত্র তত্ত্ব

সাধারণভাবে, লিগ্যান্ডসমূহকে ইলেকট্রন দাতা এবং ধাতুসমূহকে ইলেকট্রন গ্রহীতা হিসেবে গণনা করা হয়। কারণ, লিগ্যান্ড এবং কেন্দ্রীয় ধাতু পরস্পরের সাথে বন্ধন যুক্ত থাকে এবং ধাতু ও লিগ্যান্ড প্রত্যেকে একটি করে ইলেকট্রন দানের পরিবর্তে, লিগ্যান্ড একাই উভয় ইলেকট্রন (নিঃসঙ্গ ইলেকট্রন জোড়) দান করে থাকে। এ বন্ধন প্রায়ই আণবিক অরবিটাল তত্ত্বের বিধি অনুযায়ী বর্ণনা করা হয়। হোমো (সর্বোচ্চ দখলকৃত আণবিক অর্বিটাল) প্রধানত লিগ্যান্ডসমূহ বা ধাতু চরিত্রের হতে পারে।

লিগ্যান্ড এবং ধাতব আয়নসমূহের নানা উপায়ে ক্রমবিন্ন্যাস করা যেতে পারে; একটি শ্রেণীবিন্ন্যাস পদ্ধতি লিগ্যান্ডের "দৃঢ়তার" (আরও দেখুন দৃঢ়/কোমল এসিড/ক্ষার তত্ত্ব) উপর দৃষ্টি নিবদ্ধ করে। বিশেষত, ধাতু আয়ন সমূহ নির্দিষ্ট লিগ্যান্ডের সাথে বন্ধন গঠন করে। সাধারণত "দৃঢ়" ধাতু আয়নসমূহ দুর্বল ক্ষেত্র লিগ্যান্ড অপরদিকে "কোমল" ধাতু আয়নসমূহ সবল ক্ষেত্র লিগ্যান্ড পছন্দ করে থাকে। আনবিক অরবিটাল তত্ত্ব অনুসারে, লিগ্যান্ডের হোমো এমন শক্তি যুক্ত হয় যে তা ধাতু অগ্রাধিকারক্রমে লুমো (সর্বনিম্ন অদখলকৃত আনবিক অরবিটাল) কে অতিক্রম করতে পারে। দুর্বল ক্ষেত্র লিগ্যান্ডের সাথে বন্ধন যুক্ত ধাতব আয়ন সমুহ আঊফবাউ নীতি অপরদিকে, সবল ক্ষেত্র লিগ্যান্ডের সাথে বন্ধন যুক্ত জটিলসমুহ হুন্ডের নীতি অনুসরন করে।

ধাতুর সাথে লিগ্যান্ড বন্ধনযুক্ত হওয়ার ফলস্বরূপ এক সেট আনবিক অরবিটাল এর সৃষ্টি হয়, যেখানে ধাতু কে একটি নতুন হোমো এবং লুমো (যেসকল অরবিটাল উৎপাদিত জটিলের বৈশিষ্ট্য ও সক্রিয়তা নির্ধারণ করে) এবং ৫টি নির্দিষ্ট d-অরবিটালসমূহ (যারা ইলেকট্রন দ্বাারা আংশিক বা সম্পূর্ণ পূর্ণ হতে পারে) দ্বারা সনাক্তকরণ করা যায়। একটি অষ্টতলকীয় পরিবেশে ৫টি অধঃপতিত d-অরবিটালসমূহ ২ ও ৩ অরবিটালের সেটে বিভক্ত হয় (বিশদ বিশ্লেষণের জন্য দেখুন স্ফটিক ক্ষেত্র তত্ত্ব)।

নিম্ন শক্তিসম্পন্ন ৩টি d-অরবিটাল: dxy, dxz এবং dyz
উচ্চ শক্তিসম্পন্ন ২টি d-অরবিটাল: dz2 এবং dx2-y2

এ ২টি d-অরবিটালের মধ্যবর্তী শক্তির পার্থক্যকে স্থিতিমাপের বিভাজন, Δo বলা হয়। Δo এর মাত্রা লিগ্যান্ডের ক্ষেত্র শক্তি দ্বারা নির্ধারিত হয়; সংজ্ঞা অনুযায়ী,সবল ক্ষেত্র লিগ্যান্ড, দুর্বল ক্ষেত্র লিগ্যান্ড অপেক্ষা Δo কে বেশি বৃদ্ধি করতে পারে। লিগ্যান্ডসমূহকে বর্তমানে Δo এর মাত্রা অনুযায়ী সাজানো যেতে পারে (নিম্নোক্ত তালিকা দেখুন)। লিগ্যান্ডসমূহের এ ক্রমবিন্ন্যাস প্রায় সকল ধাতব আয়নের জন্য অপরিবর্তনীয় এবং একে বর্ণালীরসায়ন ধারা বলা হয়।

চতুস্তলকীয় জটিল যৌগের ক্ষেত্রে, d-অরবিটালসমূহ বিপরীত ক্রমে আবার দুটি সেটে বিভক্ত হয়।

নিম্ন শক্তিসম্পন্ন ২টি d-অরবিটাল: dz2 এবং dx2-y2
উচ্চ শক্তিসম্পন্ন ৩টি d-অরবিটাল: dxy, dxz এবং dyz

d-অরবিটালসমূহের এই দুটি সেটগুলির মধ্যে শক্তির পার্থক্যকে এখন Δt বলা হয়। Δo অপেক্ষা Δt এর মাত্রা ক্ষুদ্রতর। কারণ একটি চতুস্তলকীয় জটিল যৌগে d-অরবিটালসমূহ শুধুমাত্র ৪টি লিগ্যান্ড দ্বারা প্রভাবিত হয় অপরদিকে, একটি অষ্টতলকীয় জটিল যৌগে d-অরবিটালসমূহ ৬টি লিগ্যান্ড দ্বারা প্রভাবিত হয়। যখন সন্নিবেশ সংখ্যা অষ্টতলকীয় বা চতুস্তলকীয় হয় না তখন, উক্ত বিভাজন সঙ্গতিপূর্ণভাবে আরও জটিল হয়ে ওঠে। যদিও অষ্টতলকীয় জটিল যৌগের বৈশিষ্ট্য এবং প্রাপ্ত Δo, লিগ্যান্ডসমূহকে ক্রমবিন্ন্যাস করার লক্ষ্যে সর্বদা মুখ্য বিষয় হিসেবে বিবেচিত হয়।

কেন্দ্রীয় পরমাণুতে (যা লিগ্যান্ডের “শক্তি” দ্বারা নির্ধারিত হয়) d-অরবিটালসমূহের সুবিন্যস্ততা উৎপাদিত জটিলের সমস্ত বৈশিষ্ট্যগুলির উপর শক্তিশালী প্রভাব রাখে। উদাহরণস্বরূপ, d-অরবিটালসমূহের মধ্যবর্তী শক্তির পার্থক্য, একটি ধাতব জটিলের আলোক শোষণ বর্ণালীর উপর শক্তিশালী প্রভাব ফেলে। প্রমাণিত হয়েছে যে, উল্ল্যেখযোগ্য ৩টি d-অরবিটাল বৈশিষ্ট্য সহিত একটি যোজ্যতা ইলেক্ট্রন পূর্ণ অরবিটাল বর্ণালীতে (UV- দৃশ্যমান পরিসীমা), ৪০০-৮০০ ন্যানোমিটার অঞ্চলের আলো শোষণ করতে পারে। এসকল ইলেক্ট্রন (অর্থাৎ, আলোর প্রভাবে উত্তেজিত ইলেক্ট্রনের এক অরবিটাল হতে অন্য অরবিটালে গমন) দ্বারা আলোর (যা আমরা রঙ হিসেবে বিবেচনা করি) পরিশোষণ ধাতব জটিলের গ্রাউন্ড স্টেট এর সাথে পরস্পর সম্বন্ধ যুক্ত হতে পারে, যা লিগ্যান্ডসমূহের বন্ধন বৈশিষ্ট্যের ওপর দৃষ্টিচারণ করে। তানাবে-সুগানো রেখাচিত্রে, লিগ্যান্ডের ক্ষেত্র-শক্তির একটি ফাংশন হিসাবে, d- অরবিটালসমূহের (আপেক্ষিক) শক্তির আপেক্ষিক পরিবর্তন বর্ণনা করা হয়েছে।

দুর্বল শক্তি বিশিষ্ট লুমো থাকে এমন লিগ্যান্ডসমূহের ক্ষেত্রে, উক্ত অরবিটালসমূহ বন্ধন গঠনেও অংশগ্রহন করে। ব্যাক-বন্ডিং নামক একটি প্রক্রিয়া দ্বারা,নির্দিষ্ট নিয়ম অনুযায়ী ইলেকট্রন ঘনত্বকে পুঃনরায় লিগ্যান্ডকে ফিরিয়ে দেয়ার মাধ্যমে ধাতু-লিগ্যান্ড বন্ধন আরও স্থিতিশীল করা যায়। এ ক্ষেত্রে, পূর্ণ ও কেন্দ্রীয়-পরমাণুবিশিষ্ট একটি অরবিটাল, একটি (সন্নিবেশিত) লিগ্যান্ডের লুমোকে ইলেক্ট্রন ঘনত্ব দান করে। কার্বন মনোক্সাইড, ব্যাক- ডোনেশনের মাধ্যমে একটি ধাতুর সাথে একটি লিগ্যান্ডের বন্ধনযুক্ত হওয়ার একটি উৎকৃষ্ট উদাহরণ। আবার, পাই- প্রতিসাম্যের নিম্ন-শক্তিপূর্ণ অরবিটালবিশিষ্ট লিগ্যান্ডসমূহ পাই- দাতা হিসেবে দায়িত্ব পালন করতে পারে।

L এবং X হিসেবে লিগ্যান্ডের শ্রেণীবিভাগ[সম্পাদনা]

ধাতু- EDTA জটিল, যেখানে অ্যামিনো কার্বোক্সিলেট একটি ষষ্ঠদন্তী (চিলেটীয়) লিগ্যান্ড

মূল নিবন্ধ: সমযোজী বন্ধন শ্রেণীবিভাগ পদ্ধতি

বিশেষত জৈবধাতব রসায়নের ক্ষেত্রে, লিগ্যান্ডসমূহ L এবং X (বা এ দুটির সমন্বয়) হিসাবে শ্রেণীবদ্ধ করা হয়। এ শ্রেণীবিভাগ পদ্ধতি – সমযোজী বন্ধন শ্রেণীবিভাগের জন্য "CBC পদ্ধতি" - এম.এল.এইচ গ্রিন দ্বারা জনপ্রিয়তা লাভ করেছিল, এবং ইহা তিনটি মৌলিক প্রকার [লিগ্যান্ড] বিদ্যমান এই ধারণার ওপর ভিত্তি করে গঠিত... যা L, X, এবং Z প্রতীক দ্বারা প্রকাশ করা হয়, যা যথাক্রমে ২-ইলেক্ট্রন, ১-ইলেক্ট্রন এবং ০-ইলেক্ট্রন নিরপেক্ষ লিগ্যান্ড।"[৫][৬] আরেকটি বিবেচনার যোগ্য লিগ্যান্ডের প্রকারভেদ হল L X লিগ্যান্ড যা ব্যবহৃত প্রথাগত উপস্থাপনা অনুযায়ী প্রত্যাশিত ভাবে, যদি NVE (ভ্যালেন্স ইলেকট্রনের সংখ্যা) প্রয়োজন হয় তাহলে তিনটি ইলেক্ট্রন দান করে থাকে। এর উদাহরণ হল অ্যালকোক্সি লিগ্যান্ডসমূহ (যা সাধারণত X লিগ্যান্ড হিসাবেও পরিচিত)। L লিগ্যান্ডসমূহ চার্জ-নিরপেক্ষ প্রিকারসরসমূহ থেকে উদ্ভূত হয় এবং অ্যামিনসমূহ, ফসফিনসমূহ, CO, N2, এবং অ্যালকিনসমূহ দ্বারা প্রকাশিত হয়। X লিগ্যান্ডসমূহ সাধারণত অ্যানায়নিক প্রিকারসরসমূহ যেমন ক্লোরাইড থেকে উদ্ভূত হয় কিন্তু এমন লিগ্যান্ডসমূহ যেখানে অ্যানায়নজাত লবণ এর অস্তিত্ব নেই যেমন হাইড্রাইড এবং অ্যালকাইল ও এর অন্তর্ভুক্ত। যেহেতু CO এবং দুটি PPH3 লিগ্যান্ডসমূহ LS হিসাবে শ্রেণীবিভক্ত তাই, [[IrCl(CO)(PPh3)2]] জটিলটিকে একটি MXL3 জটিল হিসাবে শ্রেণীবদ্ধ করা হয়। IrCl(CO)(PPh3)2 এ H2 এর জারনগত সংযোজন একটি ১৮e বিশিষ্ট ML3X3 যৌগ, IrClH2(CO)(PPh3)2 দেয়। EDTA4- একটি L2X4 লিগ্যান্ড হিসাবে শ্রেণীবদ্ধ করা হয়, কারণ ইহা চারটি অ্যানায়ন এবং দুইটি নিরপেক্ষ দাতা সাইট কে উপস্থাপন করে। Cp কে একটি L2X লিগ্যান্ড হিসাবে শ্রেণীবিভক্ত করা হয়।[৭]


বহুদন্তী ও পলিহ্যাপটো লিগ্যান্ড মোটিফস্ এবং নামকরণ[সম্পাদনা]

ডেন্টিসিটি[সম্পাদনা]
ছয়টি অ্যামোনিয়া লিগ্যান্ডবিশিষ্ট Cobalt(III) জটিল, যা একদন্তীয়। এখানে ক্লোরাইড লিগ্যান্ড নয়।

মূল নিবন্ধ: ডেন্টিসিটি এবং চিলেট

ডেন্টিসিটি (κ দ্বারা চিহ্নিত করা হয়) একটি লিগ্যান্ড যত সংখ্যক বার অসংযুক্ত দাতা সাইটগুলির মাধ্যমে একটি ধাতুর সাথে বন্ধনযুক্ত হতে পারে তা নির্দেশ করে। অনেক লিগ্যান্ড একাধিক সাইটের মাধ্যমে ধাতু আয়নের সাথে বন্ধনযুক্ত হতে সক্ষম, কারন, লিগ্যান্ডসমূহের একাধিক পরমাণু নিঃসঙ্গ জোড় ইলেক্ট্রন বিশিষ্ট হয়। যেসকল লিগ্যান্ডের একাধিক পরমাণুর সাথে বন্ধনযুক্ত হওয়ার ক্ষমতা আছে, তাদের প্রায়ই চিলেটিং বলা হয়। একটি লিগ্যান্ড যা দুটি সাইটের সাথে বন্ধনযুক্ত হতে সক্ষম লিগ্যান্ডকে দ্বিদন্তীয় লিগ্যান্ড, এবং তিনটি সাইটের সাথে বন্ধনযুক্ত হতে সক্ষম লিগ্যান্ডকে ত্রি-দন্তীয় লিগ্যান্ড বলে। একটি দ্বিদন্তী চিলেটের দুটি বন্ধনের মধ্যবর্তী কোণকে “বাইট অ্যাঙ্গেল” বলা হয়। চিলেটিং লিগ্যান্ডগুলি সাধারণত জৈব সংযোগকারীগুলোর মাধ্যমে দাতা গ্রুপগুলোর সংযোজনের ফলে গঠিত হয়। একটি স্বীকৃত দ্বিদন্তীয় লিগ্যান্ড হল ইথিলিন ডাই অ্যামিন। যা একটি ইথিলিন (-CH2CH2-)এর সঙ্গে দুটি অ্যামোনিয়া গ্রুপ এর সংযোজন দ্বারা গঠিত হয়। বহুদন্তী লিগ্যান্ডের একটি অন্যতম উদাহরণ হল ছয়-দন্তী চিলেটীয় পদার্থ EDTA, যা কিছু ধাতুকে সম্পূর্ণ পরিবেষ্টন করে, ছয়টি সাইটের সাথে বন্ধন গঠন করতে সক্ষম। একটি বহুদন্তীয় লিগ্যান্ড একটি কেন্দ্রীয় ধাতুর সাথে যত সংখ্যক বার বন্ধন গঠন করতে পারে তাকে "κn" দ্বারা চিহ্নিত করা হয়, যেখানে n সাইটের সংখ্যা নির্দেশ করে যা দ্বারা একটি লিগ্যান্ড একটি ধাতুর সাথে যুক্ত হয়। EDTA4-, যখন ছয়-দন্তীয় হয় তখন ইহা একটি κ6- লিগ্যান্ড হিসাবে বন্ধনযুক্ত হয়, অ্যামিনসমূহ এবং কার্বক্সিলেট অক্সিজেন পরমাণুগুলো সন্নিবেশিত নয়। বাস্তবে, একটি লিগ্যান্ডের n এর মান সুনির্দিষ্টভাবে নির্ণয় করা যায় না বরং, অনুমান করতে হয়। একটি চিলেটিং সিস্টেমের বন্ধন আসক্তি এর চিলেটিং কোণ বা বাইট অ্যাঙ্গেল এর উপর নির্ভর করে।

বহুদন্তীয় লিগ্যান্ডসমূহের জটিল যৌগগুলো্কে চিলেট জটিল বলা হয়। এরা একদন্তীয় লিগ্যান্ড থেকে উদ্ভূত জটিলের তুলনায় অধিক সুস্থিত হয়ে থাকে। এই বর্ধিত সুস্থিতি, চিলেট প্রভাব, সাধারণত এনট্রপি এর প্রভাবকে আরোপিত করে, যা একটি বহুদন্তীয় লিগ্যান্ড দ্বারা অনেক লিগ্যান্ডসমূহের স্থানচ্যুতিতে সহায়তা করে। যখন চিলেটিং লিগ্যান্ড একটি বড় চক্র তৈরি করে তখন এই চক্রটি অন্তত আংশিকভাবে একটি কেন্দ্রীয় পরমাণুকে পরিবেষ্টন করে এবং এর সাথে বন্ধন তৈ্রি করে, ফলে কেন্দ্রীয় পরমাণুটি একটি বৃহৎ চক্রের কেন্দ্রে অবস্থান করে। এর ডেন্টিসিটি যত দৃঢ় এবং উচ্চতর হবে, ম্যাক্রোসাইক্লিক জটিল তত নিষ্ক্রিয় হবে। হিম একটি উৎকৃষ্ট উদাহরণঃ একট লৌহ পরমাণু একটি পরফিরিন ম্যাক্রোসাইকেলের কেন্দ্রে অবস্থান করে এবং টেট্রাপাইরল ম্যাক্রোসাইকেলের চারটি নাইট্রোজেন পরমাণু দ্বারা আবদ্ধ থাকে। নিকেলের অত্যন্ত স্থিতিশীল একটি জটিল ডাই মিথাইল গ্লাইঅক্সিমেট একটি সংশ্লেষিত ম্যাক্রোসাইকেল, যা ডাই মিথাইল গ্লাইঅক্সাইমের অ্যানায়ন থেকে তৈরি করা হয়।


হ্যাপটিসিটি[সম্পাদনা]

মূল নিবন্ধ: হ্যাপটিসিটি

হ্যাপটিসিটি (η দ্বারা চিহ্নিত করা হয়) সন্নিবেশ পরমাণুসমূহের সংখ্যাকে বোঝায় যা একটি দাতা সাইটের অংশ এবং একটি ধাতব কেন্দ্রের সাথে সংযুক্ত হয়। বুটাডাইইন ধাতুর সাথে বন্ধনযুক্ত কার্বন পরমাণুর সংখ্যার উপর নির্ভর করে η এবং η উভয় কমপ্লেক্স গঠন করতে পারে।[৭]

লিগ্যান্ড মোটিফস্[সম্পাদনা]

ট্রান্স-স্প্যানিং লিগ্যান্ড[সম্পাদনা]

মূল নিবন্ধ: ট্রান্স-স্প্যানিং লিগান্ডসমূহ

ট্রান্স-স্প্যানিং লিগ্যান্ডসমূহ হল দ্বিদন্তীয় লিগ্যান্ডসমূহ, যা একটি সন্নিবেশ জটিল যৌগের বিপরীত পার্শ্বের সন্নিবেশিত অবস্থানগুলোকে প্রসারিত করতে পারে।[৮]

অ্যামবাইডেন্টেট লিগ্যান্ড[সম্পাদনা]

মূল নিবন্ধ: সংযোজন লিগ্যান্ড

বহুদন্তীয় লিগ্যান্ড হতে ভিন্ন, অ্যামবাইডেন্টেট লিগ্যান্ডগুলি কেন্দ্রীয় পরমাণুর দুটি স্থানের সাথে সংযুক্ত হতে পারে। এর একটি উৎকৃষ্ট উদাহরণ হল থায়োসায়ানেট, SCN-, যা হয় সালফার পরমাণু বা নাইট্রোজেন পরমাণুর সাথে সংযুক্ত হতে পারে। এই যৌগগুলি [[সংযোজন সমাণুতাকে] বৃ্দ্ধি করে। পলিফাংশনাল লিগ্যান্ড, বিশেষ করে প্রোটিন, নানা প্রকারের আইসোমার তৈরি করতে বিভিন্ন লিগ্যান্ড পরমাণুসমূহের দ্বারা একটি কেন্দ্রীয় ধাতুর সাথে বন্ধন গঠন করতে পারে।

সেতু গঠনকারী লিগ্যান্ড[সম্পাদনা]

মূল নিবন্ধ: সেতু গঠনকারী লিগ্যান্ড

একটি সেতু গঠনকারী লিগ্যান্ড দুই বা ততোধিক ধাতব কেন্দ্রকে সংযোগ করে। প্রকৃতপক্ষে, সকল সহজ গঠনের অজৈব কঠিন পদার্থগুলো হল সন্নিবেশ পলিমার, যা সেতু গঠনকারী লিগ্যান্ড দ্বারা সংযুক্ত ধাতব কেন্দ্রগুলি দিয়ে গঠিত। সকল অ্যানহাইড্রাস বাইনারি ধাতব হ্যালাইড এবং সিউডো-হ্যালাইড উপাদানের এই গ্রুপটির অন্তর্ভুক্ত। দ্রবনেও সেতু গঠনকারী লিগ্যান্ড বিদ্যমান। পলিঅ্যাটোমিক লিগ্যান্ড যেমন কার্বোনেট হল অ্যামবাইডেন্টেট এবং তাই প্রায়ই দুটি বা তিনটি ধাতুর সাথে একসঙ্গে বন্ধন গঠন করতে পারে। সেতু গঠনকারী ধাতব পরমাণু কখনও কখনও "μ" দ্বারা নির্দেশ করা হয়। বেশিরভাগ অজৈব কঠিন পদার্থগুলো একাধিক সেতু গঠনকারী লিগ্যান্ডের উপস্থিতির কারণে পলিমার ধর্মবিশিষ্ট হয়।

বাইনিউক্লিয়েটিং লিগ্যান্ড[সম্পাদনা]

বাইনিউক্লিয়েটিং লিগ্যান্ড দুইটি ধাতুকে বন্ধনে আবদ্ধ করে।[৯] সাধারণত বাইনিউক্লিয়েটিং লিগ্যান্ডসমূহ সেতু গঠনকারী লিগ্যান্ড, যেমন ফেনোক্সাইড, পাইরাজোলেট বা পাইরাজিন, সেইসাথে অন্যান্য দাতা গ্রুপগুলোকে যা দুটি ধাতুর মধ্যে শুধুমাত্র একটির সাথে বন্ধনে আবদ্ধ হয়।

ধাতু-লিগ্যান্ড বহু বন্ধন[সম্পাদনা]

মূল নিবন্ধ: ধাতু-লিগ্যান্ড বহু বন্ধন

ধাতু-লিগ্যান্ড বহু বন্ধন কিছু লিগ্যান্ড পৃথক সংখ্যক নিঃসঙ্গ ইলেক্ট্রন জোড় এর মাধ্যমে একই পরমাণুর দ্বারা একটি ধাতব কেন্দ্রের সাথে বন্ধনযুক্ত হতে পারে। ধাতু-লিগ্যান্ড বন্ধনের বন্ধন ক্রম ধাতু লিগ্যান্ড বন্ধন কোণ (M−X−R) এর মাধ্যমে আলাদা করা যায়। এই বন্ধন কোণটি প্রায়ই রৈখিক আকৃ্তির বা বক্র হয়ে থাকে বলে উল্লেখ করা হয়, সেইসাথে কোণটি কত ডিগ্রি তে বক্রিত হয়েছে তার সম্পর্কেও আরও আলোচনা করা হয়। উদাহরণস্বরূপ, আয়নিক গঠনের একটি ইমিডো লিগ্যান্ডের তিনটি নিঃসঙ্গ জোড় ইলেক্ট্রন রয়েছে। একটি নিঃসঙ্গ জোড় সিগমা X দাতা হিসাবে ব্যবহৃত হয়, অন্য দুটি নিঃসঙ্গ জোড় L-টাইপ পাই দাতা হিসাবে পাওয়া যায়। পাই বন্ধন গুলিতে যদি উভয় নিঃসঙ্গ জোড় ইলেক্ট্রন ব্যবহৃত হয় তবে M−N−R জ্যামিতিটি রৈখিক আকৃতির হয়। কিন্তু যদি এই নিঃসঙ্গ ইলেক্ট্রন জোড় এর একটি বা উভয়ই অবন্ধনীয় হয় তাহলে M−N−R বন্ধনটি বাঁকা হয় এবং বাঁকে হওয়ার পরিমাণ কতগুলি পাই বন্ধন থাকতে পারে তা ব্যাখ্যা করে। η1- নাইট্রিক অক্সাইড রৈখিক বা নমিত প্রণালীতে একটি ধাতু কেন্দ্রের সাথে সন্নিহিত হতে পারে।

দর্শক লিগ্যান্ড[সম্পাদনা]

মূল নিবন্ধ: দর্শক লিগ্যান্ড

দর্শক লিগ্যান্ড হল একটি অভেদ্য সন্নিবেশকারী বহুদন্তী লিগ্যান্ড যা রাসায়নিক বিক্রিয়ায় অংশগ্রহণ করে না কিন্তু একটি ধাতুর সক্রিয় সাইটকে দূরীভূত করে। দর্শক লিগ্যান্ড যে কেন্দ্রিয় ধাতুর সাথে বন্ধনে আবদ্ধ হবে তার সক্রিয়তাকে প্রভাবিত করে।

ভারী লিগ্যান্ড[সম্পাদনা]

মূল নিবন্ধ: লিগান্ডের কোণ অ্যাঙ্গেল

একটি কেন্দ্রিয় ধাতুর স্টেরিক ধর্মগুলো নিয়ন্ত্রণ করতে ভারী লিগ্যান্ড ব্যবহার করা হয়। এরা বিভিন্ন কারণে, ব্যবহারিক এবং তাত্ত্বিক উভয় ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয়। বাস্তব ক্ষেত্রে, এরা ধাতব প্রভাবকের নির্বাচনকে প্রভাবিত করে, যেমন, হাইড্রোফরমাইলেশন। তাত্ত্বিক ক্ষেত্রে, ভারী লিগ্যান্ডগুলো অস্বাভাবিক সন্নিবেশ সাইটগুলো, যেমন সক্রিয় সহলিগ্যান্ড বা নিম্ন সন্নিবেশ সংখ্যা কে স্থিতিশীল করে। ভারী লিগ্যান্ডগুলো প্রায়ই সক্রিয় সাইটবিশিষ্ট ধাতুর প্রোটিন কর্তৃক প্রদান করা স্টেরিক সুরক্ষা অনুকরণে নিযুক্ত করা হয়। অবশ্যই অতিরিক্ত স্টেরিক বাল্ক নির্দিষ্ট লিগ্যান্ডের সন্নিবেশ প্রতিরোধ করতে পারে।

একটি মেসিটাইল গোষ্ঠীর জোড়ের ধর্মের কারণে, আইমস্ নামক N- হেটারোসাইক্লিক কার্বিন একটি ভারী লিগ্যান্ড।
অপ্রতিসম লিগ্যান্ড[সম্পাদনা]

মূল নিবন্ধ: অপ্রতিসম লিগ্যান্ড অপ্রতিসম লিগ্যান্ডগুলি সন্নিবেশ গোলকের মধ্যে অপ্রতিসাম্যতা ঘটাতে সহায়তা করে। প্রায়ই লিগ্যান্ডটিকে একটি আলোকসংক্রান্ত বিশুদ্ধ গ্রুপ হিসাবে নিযুক্ত করা হয়। কিছু কিছু ক্ষেত্রে, যেমন সেকেন্ডারি আমিনসমূহে, সন্নিবেশের উপরে অপ্রতিসাম্যতা বাড়তে থাকে। অপ্রতিসম লিগ্যান্ডগুলি সমজাতীয় প্রভাবন যেমন অপ্রতিসাম্য হাইড্রোজেনেশন এ ব্যবহৃত হয়।

হেমিলেবিল লিগ্যান্ড[সম্পাদনা]

মূল নিবন্ধ: হেমিলাবিলিটি

হেমিলেবিল লিগ্যান্ডগুলোতে কমপক্ষে দুইটি বৈদ্যুতিকভাবে ভিন্ন সন্নিবেশিত গ্রুপ থাকে এবং জটিল গঠন করে যেখানে এগুলির মধ্যে একটি সহজেই কেন্দ্রীয় ধাতু হতে বিচ্ছিন্ন হয় পক্ষান্তরে অন্যটি দৃঢ়ভাবে আবদ্ধ থাকে, ইহা একটি আচরণ, যা আরও প্রথাগত লিগ্যান্ডসমূহ ব্যবহারের তুলনায় প্রভাবকের সক্রিয়তা বৃদ্ধি করতে পাওয়া যায়।

দোষী লিগ্যান্ড[সম্পাদনা]

মূল নিবন্ধ: দোষী লিগ্যান্ড

দোষী লিগ্যান্ড ধাতুর সঙ্গে যে এমন পদ্ধতিতে বন্ধন গঠন করে যে কেন্দ্রীয় ধাতু এবং লিগ্যান্ডের মধ্যে ইলেকট্রন ঘনত্ব বিতরণ অস্পষ্ট হয়। দোষী লিগ্যান্ডের বন্ধন প্রক্রিয়া বর্ণনা করতে গিয়ে প্রায়ই একাধিক অনুরণন গঠনগুলো লেখা হয় যার সমগ্র ক্ষেত্রে আংশিক অবদান রয়েছে।

সাধারণ লিগ্যান্ডসমূহ[সম্পাদনা]

আরও দেখুনঃ জটিল (রসায়ন) এবং জটিলের নামকরণ

বস্তুত প্রতিটি অণু এবং প্রতিটি আয়ন একটি লিগ্যান্ড হিসাবে ধাতুর জন্য (বা “সন্নিবেশের প্রতি”) কাজ করতে পারে। কার্যত সকল অ্যানায়ন এবং সকল সরল লুইস ক্ষার একদন্তীয় লিগ্যান্ডের অন্তর্গত। সুতরাং, হ্যালাইড এবং সিউডোহ্যালাইড গুরুত্বপূর্ণ অ্যানায়নিক লিগ্যান্ড, অপর দিকে অ্যামো্নিয়া, কার্বন মনোক্সাইড, এবং পানি বিশেষত সাধারণ চার্জ-নিরপেক্ষ লিগ্যান্ড। অ্যানায়নিক ([[RO-]] এবং [[RCO-2]]) হোক বা নিরপেক্ষ ([[R2O]], [[R2S]], [[R3-xNHx]], এবং [[R3P]]) হোক, সরল জৈব প্রজাতিসমূহ খুবই সুলভ। কিছু লিগ্যান্ডের এর স্টেরিক বৈশিষ্ট্যসমূহ তাদের কোণ অ্যাঙ্গেল অনুযায়ী মূল্যায়ন করা হয়। প্রাচীন লুইস ক্ষার এবং অ্যানায়নের বাইরে সকল অসম্পৃক্ত অণুগুলিও লিগ্যান্ড, এরা এদের পাই ইলেক্ট্রনগুলির সদ্ব্যবহার করে সন্নিবেশ বন্ধন গঠন করে। এছাড়াও, ধাতুগুলো তাদের σ বন্ধনের সাথে বন্ধনে আবদ্ধ হতে পারে উদাহরণস্বরূপ সিলেনসমূহ, হাইড্রোকার্বনসমূহ এবং ডাইহাইড্রোজেন (আরও দেখুন: অ্যাগোস্টিক মিথষ্ক্রিয়া) দোষী লিগ্যান্ডের জটিলের ক্ষেত্রে, লিগ্যান্ডটি প্রচলিত বন্ধনের মাধ্যমে ধাতুর সাথে যুক্ত থাকে তবে লিগ্যান্ডটি জারণ-বিজারণ সক্রিয় হয়।

সাধারণ লিগ্যান্ডের উদাহরণ (ক্ষেত্র শক্তি ক্রমে)[সম্পাদনা]

নিম্নলিখিত টেবিলে লিগ্যান্ডসমূহকে ক্ষেত্র শক্তি ক্রমে সাজানো হয়েছে (প্রথমে দুর্বল ক্ষেত্র লিগ্যান্ড)

লিগ্যান্ড আকৃতি (বন্ধনে আবদ্ধ পরমাণু (সমূহ) গাঢ় অক্ষরে) চার্জ খুবই সাধারণ ডেন্টিসিটি মন্তব্য
আয়োডাইড (আয়োডো) I- মনোঅ্যানায়নিক একদন্তীয়
ব্রোমাইড (ব্রোমিডো) Br- মনোঅ্যানায়নিক একদন্তীয়
সালফাইড (থায়ো বা অপ্রচলিত ভাবে “সেতু গঠনকারী থায়োলেট”) S2- ডাইঅ্যানায়নিক একদন্তীয় (M=S), বা দ্বিদন্তীয় সেতু গঠনকারী (M−S−M′)
থায়োসায়ানেট (S- থায়োসায়ানেটো S-CN- মনোঅ্যানায়নিক একদন্তীয় অ্যামবাইডেন্টেট (আরও দেখুন আইসোথায়োসায়ানেট, নিচে)
ক্লোরাইড (ক্লোরিডো) Cl- মনোঅ্যানায়নিক একদন্তীয় সেতু গঠনেও পাওয়া যায়
নাইট্রেট (নাইট্রেটো) O-NO2- মনোঅ্যানায়নিক একদন্তীয়
অ্যাজাইড (অ্যাজিডো) N-N2- মনোঅ্যানায়নিক একদন্তীয় খুবই বিষাক্ত
ফ্লোরাইড (ফ্লোরো) F- মনোঅ্যানায়নিক একদন্তীয়
হাইড্রোক্সাইড (হাইড্রোক্সাইডো O-H- মনোঅ্যানায়নিক একদন্তীয় প্রায়ই সেতু গঠনকারী লিগ্যান্ড হিসেবে পাওয়া যায়
অক্সালেট (অক্সালেটো) [O−CO−CO−O]2− ডাইঅ্যানায়নিক দ্বিদন্তীয়
পানি (অ্যাকুয়া) O−H2 নিরপেক্ষ একদন্তীয়
নাইট্রাইট(নাইট্রাইটো) O−N−O মনোঅ্যানায়নিক একদন্তীয় অ্যামবাইডেন্টেট (আরও দেখুন নাইট্রো)
আইসো থায়োসায়ানেট (আইসো থায়োসায়ানেটো) N=C=S মনোঅ্যানায়নিক একদন্তীয় অ্যামবাইডেন্টেট (আরও দেখুন থায়োসায়ানেট, উপরে)
অ্যাসিটো নাইট্রিল (অ্যাসিটো নাইট্রিলো) CH3CN নিরপেক্ষ একদন্তীয়
পিরিডিন C5H5N নিরপেক্ষ একদন্তীয়
অ্যামো্নিয়া (অ্যামিন বা অপ্রচলিত ভাবে “অ্যামিনো”) NH3 নিরপেক্ষ একদন্তীয়
ইথিলিন ডাই অ্যামিন (en) NH2−CH2−CH2NH2 নিরপেক্ষ দ্বিদন্তীয়
২,২′-বাইপিরিডিন (bipy) NC5H4−C5H4N নিরপেক্ষ দ্বিদন্তীয় সহজেই এর (রেডিকাল) অ্যানায়ন এমনকি এর ডাইঅ্যানায়ন পর্যন্ত হ্রাস পেতে পারে
১,১০-ফেনান্থ্রোলিন (phen) C12H8N2 নিরপেক্ষ দ্বিদন্তীয়
নাইট্রাইট (নাইট্রো) N−O2 মনোঅ্যানায়নিক একদন্তীয় অ্যামবাইডেন্টেট (আরও দেখুন নাইট্রাইটো)
ট্রাইফিনাইল ফসফিন P−(C6H5)3 নিরপেক্ষ একদন্তীয়
সায়ানাইড (সায়ানো) C≡N N≡C মনোঅ্যানায়নিক একদন্তীয় ধাতুগুলির মধ্যে সেতুবন্ধন করতে পারে (উভয় ধাতু C এর সাথে, বা একটি C এবং একটি N এর সাথে বন্ধনে আবদ্ধ
কার্বন মনোক্সাইড (কার্বনিল) CO নিরপেক্ষ একদন্তীয় ধাতুগুলির মধ্যে সেতুবন্ধন করতে পারে (উভয় ধাতু C এর সাথে বন্ধনে আবদ্ধ

দ্রষ্টব্য: সারণিতে লিপিবদ্ধ বিষয়গুলো ক্ষেত্র শক্তি, বর্ণিত পরমাণুর (যেমন প্রান্তীয় লিগ্যান্ড) সাথে বন্ধনে আবদ্ধ হওয়ার ক্রমে সাজানো হয়েছে, লিগ্যান্ডের 'শক্তি' পরিবর্তিত হয় যখন লিগ্যান্ডটি বিকল্প বন্ধন প্রণালীতে বন্ধনে আবদ্ধ হয় (যেমন, যখন এটি ধাতুর মধ্যে সেতুবন্ধন সাধন করে), বা যখন লিগ্যান্ডের কনফরমেশন বিকৃত হয়ে যায় (উদাহরণস্বরূপ, একটি রৈখিক লিগ্যান্ড যা স্টেরিক মিথস্ক্রিয়ার কারণে বাধ্য হয়ে অরৈখিক ধরণে বন্ধনে আবদ্ধ হয়)।

অন্যান্য অপ্রত্যাশিতভাবে প্রাপ্ত লিগ্যান্ড (বর্ণানুক্রমে)[সম্পাদনা]

এই সারণিতে অন্যান্য সাধারণ লিগ্যান্ডসমূহ বর্ণানুক্রমিকভাবে তালিকাভুক্ত করা হয়েছে।

লিগ্যান্ড আকৃতি (বন্ধনে আবদ্ধ পরমাণু (সমূহ) গাঢ় অক্ষরে) চার্জ খুবই সাধারণ ডেন্টিসিটি মন্তব্য
অ্যাসিটাইল অ্যাসিটোনেট (acac) CH3−CO−CH2−CO−CH3 মনোঅ্যানায়নিক দ্বিদন্তীয় সাধারণ দ্বি-দন্তীয় এর ক্ষেত্রে উভয় অক্সিজেনের সাথে বন্ধনে আবদ্ধ থাকে, কিন্তু মাঝেমাঝে, শুধুমাত্র কেন্দ্রীয় কার্বনের সাথে বন্ধনে আবদ্ধ হয়, আরও দেখুন এনালোগাস কেটিমিন এনালগসমূহ
অ্যালকিনসমূহ R2C=CR2 নিরপেক্ষ একটি C−C দ্বি-বন্ধনবিশিষ্ট যৌগ
অ্যামিনো পলিকার্বোক্সিলিক এসিডসমূহ (APCAs)
BAPTA (১,২-বিস্(o-অ্যামিনোফেনক্সি)ইথেন-N,N,N′,N′-টেট্রা অ্যাসিটিক এসিড)
বেনজিন C6H6 নিরপেক্ষ এবং অন্যান্য অ্যারিনসমূহ
১,২-বিস্(ডাইফিনাইল ফসফিনো)ইথেন (dppe) (C6H5)2P−C2H4P(C6H5)2 নিরপেক্ষ দ্বিদন্তীয়
১,১-বিস্(ডাইফিনাইল ফসফিনো)মিথেন (dppm) (C6H5)2P−CH2P(C6H5)2 নিরপেক্ষ একসাথে দুইটি ধাতু পরমাণুর সাথে ডাইমার গঠনের মাধ্যমে বন্ধনে আবদ্ধ হতে পারে
করোলসমূহ চার-দন্তীয়
ক্রাউন ইথারসমূহ নিরপেক্ষ প্রাথমিকভাবে অ্যালকালি এবং অ্যালকালিন মৃত্তিকা ধাতু ক্যাটায়নের জন্য
২,২,২-ক্রিপ্ট্যান্ড ছয়-দন্তীয় প্রাথমিকভাবে অ্যালকালি এবং অ্যালকালিন মৃত্তিকা ধাতু ক্যাটায়নের জন্য
ক্রিপ্টেটসমূহ নিরপেক্ষ
সাইক্লোপেন্টাডাইইনাইল (Cp) C5H5 মনোঅ্যানায়নিক যদিও দখলকৃত আণবিক অরবিটালগুলোর প্রকৃতির জন্য ইহা এক-দন্তীয়, কিন্তু ইহা ত্রি-দন্তীয় লিগ্যান্ড হিসাবেও কাজ করতে পারে
ডাইইথিলিনট্রাইঅ্যামিন (ডাইইন) C4H13N3 নিরপেক্ষ ত্রি-দন্তীয় TACN এর সাথে সম্পর্কিত, কিন্তু মৌখিক কমপ্লেক্সেশন এ সীমাবদ্ধ নয়
ডাইমিথাইলগ্লাইঅক্সিমেট (dmgH−) মনোঅ্যানায়নিক
[[১,৪,৭,১০-টেট্রাঅ্যাজাসাইক্লোডো্ডিকেন-১,৪,৭,১০-টেট্রাঅ্যাসিটিক এসিড (DOTA)
ডাইইথিলিনট্রাইঅ্যামিনপেন্টাঅ্যাসিটিক এসিড (DTPA) (পেন্টেটিক এসিড)
ইথিলিনডাইঅ্যামিনটেট্রাঅ্যাসিটিক এসিড (EDTA) (edta4−) (OOC−CH2)2N−C2H4N(CH2-COO)2 টেট্রাঅ্যানায়নিক ষষ্ঠ-দন্তীয়
ইথিলিনডাইঅ্যামিনট্রাইঅ্যাসিটেট OOC−CH2NH−C2H4N(CH2-COO)2 পঞ্চ-দন্তীয়
ইথিলিনগ্লাইকলবিস্(অক্সিইথিলিননাইট্রিলো)টেট্রাঅ্যাসিটেট (egta4−) (OOC−CH2)2N−C2H4O−C2H4O−C2H4N(CH2−COO)2 টেট্রাঅ্যানায়নিক অষ্ট-দন্তীয়
ফুরা-২
[[গ্লাইসিনেট (গ্লাইসিনাটো) NH2CH2COO মনোঅ্যানায়নিক দ্বি-দন্তীয় অন্যান্য α- অ্যামিনো এসিড অ্যানায়নের সাথে তুলনীয় (কিন্তু কাইরাল)
হিম ডাইঅ্যানায়নিক চার-দন্তীয় ম্যাক্রোসাইক্লিক লিগ্যান্ড
ইমিনো্ডাইঅ্যাসিটিক এসিড (IDA) ত্রি-দন্তীয় স্কিনটিগ্রাফির জন্য রেডিওট্রাসারগুলি তৈরিতে মেটাস্টেবল রেডিয়োনিউক্লাইড টেকনিটিয়াম -৯৯ এম ব্যপকভাবে ব্যবহৃত হয় উদাহরণস্বরূপ, ক্লোএস্কিনটিগ্রাফি, HIDA, BrIDA, PIPIDA, এবং DISIDA ব্যবহার করা হয়
নিকোটিন্যামিন উচ্চতর উদ্ভিদের সর্বত্র বিদ্যমান
নাইট্রোসিল NO+ ক্যাটায়নিক বক্রিত (১e) এবং রৈখিক (৩e) বন্ধন পদ্ধতি
নাইট্রিলোট্রাইঅ্যাসিটিক এসিড (NTA)
অক্সো O2− ডাইঅ্যানায়ন এক-দন্তীয় কখনও সেতু গঠনকারী
পাইরাজিন N2C4H4 নিরপেক্ষ ডাইটোপিক কখনও সেতু গঠনকারী
স্করপিওনেট লিগ্যান্ড ত্রি-দন্তীয়
সালফাইট O−SO2−2, S−O2−3 মনোঅ্যানায়নিক এক-দন্তীয় অ্যাম্বাডেন্টেট
২,২′;৬′,২″-টারপিরিডিন (terpy) NC5H4−C5H3N−C5H4N নিরপেক্ষ ত্রি-দন্তীয় শুধুমাত্র মেরিডিওনাল বন্ধন
ট্রাইঅ্যাজাসাইক্লোনোনেন (tacn) (C2H4)3(NR)3 নিরপেক্ষ ত্রি-দন্তীয় ম্যাক্রোসাইক্লিক লিগ্যান্ড আরও দেখুন, N,N′,N″-ট্রাইমিথাইলেটেড এনালগ
ট্রাইসাইক্লোহেক্সাইলফসফিন P(C6H11)3 or PCy3 নিরপেক্ষ এক-দন্তীয়
ট্রাইইথিলিনটেট্রাঅ্যামিন (ট্রাইইন) C6H18N4 নিরপেক্ষ চার-দন্তীয়
ট্রাইমিথাইলফসফিন P(CH3)3 নিরপেক্ষ এক-দন্তীয়
ট্রাই(o-টলাইল) ফসফিন P(o-tolyl)3 নিরপেক্ষ এক-দন্তীয়
ট্রিস(২-অ্যামিনোইথাইল)অ্যামিন (tren) (NH2CH2CH2)3N নিরপেক্ষ চার-দন্তীয়
ট্রিস(২-ডাইফিনাইলফসফিনইথাইল)অ্যামিন (np3) নিরপেক্ষ উদাহরণ চার-দন্তীয়
ট্রোপিলিয়াম C7H+7 ক্যাটায়নিক
কার্বন ডাইঅক্সাইড CO2 বিভিন্ন বন্ধন পদ্ধতি দেখুন ধাতু কার্বন ডাই অক্সাইড জটিল


লিগ্যান্ড বিনিময়[সম্পাদনা]

একটি লিগ্যান্ড বিনিময় (এছাড়াও লিগ্যান্ড প্রতিস্থাপন) হল একটি রাসায়নিক বিক্রিয়া যা কোন যৌগে একটি লিগ্যান্ডের দ্বারা অন্য লিগ্যান্ড প্রতিস্থাপন হওয়াকে বোঝায়। এক প্রকারের প্রতিস্থাপন পদ্ধতি হল লিগ্যান্ড নির্ভরশীল পথ। জৈবধাতব রসায়নে ইহা অ্যাসোসিয়েটিভ প্রতিস্থাপন বা ডিস্অ্যাসোসিয়েটিভ প্রতিস্থাপনের মাধ্যমে কার্যকর হতে পারে। লিগ্যান্ড বিনিময়ের আরেকটি প্রকার কেন্দ্রাকর্ষী নিঃসরণ বিক্রিয়ায় দেখা যায়।

লিগ্যান্ড-প্রোটিন বন্ধন তথ্য ভান্ডার[সম্পাদনা]

BioLiP হল একটি ব্যাপকভাবে বিস্তীর্ণ লিগ্যান্ড-প্রোটিন মিথষ্ক্রিয়া তথ্য ভান্ডার যার সাথে প্রোটিন তথ্য ব্যাংক থেকে নেওয়া লিগ্যান্ড-প্রোটিন মিথষ্ক্রিয়া এর 3D গঠন রয়েছে। MANORAA হল প্রোটিন তথ্য ব্যাংক থেকে নেওয়া একটি ওয়েবসারভার, যেখানে প্রোটিন কাঠামো হোমোলগবিশিষ্ট জটিল যৌগের সংরক্ষিত এবং ডিফারেন্সিয়াল আণবিক মিথষ্ক্রিয়ার বিশ্লেষণ করে লিগ্যান্ড উদ্ভাবন করা হয়। ইহা প্রোটিন টার্গেটের সাথে সংযোগ সরবরাহ করে যেমন KGG পথসমূহ, SNPS এ ইহার অবস্থান এবং টার্গেট অঙ্গের মধ্যে প্রোটিন / RNA বেসলাইন এক্সপ্রেশন।[১০]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]


টীকা[সম্পাদনা]

  1. লিগ্যান্ড শব্দটি এসেছে লাতিন লিগারে, যার অর্থ বন্ধন বা বাঁধা। ইহা /ˈlɡənd/ বা /ˈlɪɡənd/ হিসেবে উচ্চারণ করা হয়; উভয়ই খুব সর্বজনীন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Cotton, Frank Albert; Geoffrey Wilkinson; Carlos A. Murillo (1999). Advanced Inorganic Chemistry. Wiley-Interscience. p. 1355. ISBN 978-0471199571.
  2. Miessler, Gary L.; Paul J. Fischer; Donald Arthur Tarr (2013). Inorganic Chemistry. Prentice Hall. p. 696. ISBN 978-0321811059.
  3. Jackson, W. Gregory; Josephine A. McKeon; Silvia Cortez (১ অক্টোবর ২০০৪)। "Alfred Werner's Inorganic Counterparts of Racemic and Mesomeric Tartaric Acid: A Milestone Revisited"। Inorganic Chemistry43 (20): 6249–6254। doi:10.1021/ic040042ePMID 15446870 
  4. Bowman-James, Kristin (২০০৫)। "Alfred Werner Revisited: The Coordination Chemistry of Anions"। Accounts of Chemical Research38 (8): 671–678। doi:10.1021/ar040071tPMID 16104690 
  5. Green, M. L. H. (২০ সেপ্টেম্বর ১৯৯৫)। "A new approach to the formal classification of covalent compounds of the elements"। Journal of Organometallic Chemistry500 (1–2): 127–148। doi:10.1016/0022-328X(95)00508-Nআইএসএসএন 0022-328X 
  6. "mlxz plots – Columbia University", Columbia University, New York.
  7. Hartwig, J. F. Organotransition Metal Chemistry, from Bonding to Catalysis; University Science Books: New York, 2010. আইএসবিএন ১-৮৯১৩৮৯-৫৩-X
  8. von Zelewsky, A. "Stereochemistry of Coordination Compounds" John Wiley: Chichester, 1995. আইএসবিএন ০৪৭১৯৫৫৯৯X.
  9. Gavrilova, A. L.; Bosnich, B., "Principles of Mononucleating and Binucleating Ligand Design", Chem. Rev. 2004, volume 104, 349-383. ডিওআই:10.1021/cr020604g
  10. Tanramluk D, Naripiyakul L, Akavipat R, Gong S, Charoensawan V (২০১৬)। "MANORAA (Mapping Analogous Nuclei Onto Residue And Affinity) for identifying protein-ligand fragment interaction, pathways and SNPs"Nucleic Acids Research.: W514–21। doi:10.1093/nar/gkw314PMID 27131358পিএমসি 4987895অবাধে প্রবেশযোগ্য 

বাহ্যিক লিঙ্ক[সম্পাদনা]