রংপুর পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
রংপুর পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট
Rangpur polytechnic institute.jpg
নীতিবাক্যপ্রযুক্তির জন্য এসো, প্রবৃদ্ধির জন্য বেরিয়ে যাও
ধরনসরকারি পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট
স্থাপিত১৮৮২ (1882)
অধ্যক্ষমোঃ খালেদ হোসেন
শিক্ষার্থী৩,৪২৮ জন
অবস্থান
রংপুর
, ,
২৫°৪৫′১০″ উত্তর ৮৯°১৫′৩৯″ পূর্ব / ২৫.৭৫২৬৫৭° উত্তর ৮৯.২৬০৮৫৩° পূর্ব / 25.752657; 89.260853স্থানাঙ্ক: ২৫°৪৫′১০″ উত্তর ৮৯°১৫′৩৯″ পূর্ব / ২৫.৭৫২৬৫৭° উত্তর ৮৯.২৬০৮৫৩° পূর্ব / 25.752657; 89.260853
শিক্ষাঙ্গন৩২.৯ একর
সংক্ষিপ্ত নামর.প.ই
ওয়েবসাইটwww.rpir.gov.bd

রংপুর পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট বাংলাদেশের রংপুরের একটি কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এটি দেশের অন্যতম প্রাচীন ও বৃহত্তম পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট।

অবস্থান[সম্পাদনা]

রংপুর পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটটি রংপুর বিভাগের রংপুর শহরের জুম্মাপাড়ায় অবস্থিত। বিপরীতে বিভাগীয় কারিগরি শিক্ষাবোর্ড অবস্থিত।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৮৮২ সালে প্রযুক্তি শিক্ষায় দক্ষ জনসম্পদ তৈরীর লক্ষে ‍“বেইলী ব্রীজ গোবিন্দ লাল টেকনিক্যাল স্কুল” নামে এ প্রতিষ্ঠানের যাত্রা শুরু হয়। ১৯৬২ খ্রিস্টাব্দে আইয়ুব খান সরকার কর্তিক গৃহিত ৭ স্টেপ কর্মসুচিতে সিভিল ও পাওয়ার টেকনোলজি নিয়ে প্রতিষ্ঠিত হয় ‍“রংপুর টেকনিক্যাল ইন্সটিটিউট”। ১৯৬৮ খ্রিষ্টাব্দে মেকানিক্যাল ও ইলেকট্রিক্যাল টেকনোলজি অন্তর্ভুক্ত করে নতুন নামকরণ করা হয় ‍“রংপুর পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট" । পরবর্তিতে পর্যায়ক্রমে ১৯৯২ খ্রিস্টাব্দে ইলেকট্রনিক্স টেকনোলজি, ২০০২ খ্রিস্টাব্দে কম্পিউটার টেকনোলোজি এবং ২০০৬ খ্রিস্টাব্দে ইলেক্ট্রোমেডিক্যাল টেকনোলজি অন্তর্ভুক্ত করে প্রতিষ্ঠানকে সম্প্রসারিত করা হয়েছে।

ক্যাম্পাস[সম্পাদনা]

মূল ক্যাম্পাসে রয়েছে তিন তলা বিশিষ্ট দুটি আকাদেমি ভবন, অফিস, লাইব্রেরী, আধুনিক যন্ত্রপাতি সমৃদ্ধ ওয়ার্কশপ ভবন, জিমনেশিয়াম ও ল্যবরেটরী এবং একটি ৫০০ জন ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন অডিটোরিয়াম। মূল ক্যাম্পাসে রয়েছে মসজিদ ও শহীদ মিনার।

শিক্ষা কার্যক্রম[সম্পাদনা]

প্রতিষ্ঠার প্রথম বর্ষে মাত্র ১২০ জন ছাত্র-ছাত্রী এবং চারটি প্রযুক্তি (সিভিল, ইলেট্রিক্যাল, মেকানিক্যাল ও পাওয়ার) নিয়ে ডিপ্লোমা-ইন-ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্স চালু হয়েছিল। বর্তমানে অত্র প্রতিষ্ঠানে চার বছর মেয়াদি কোর্সে ৭ টি বিভাগ চলছে। এখানে প্রতিটি বিভাগে দু’টি করে শিফট চলমান এবং প্রতিটি শিফটে ৬০ জন করে মোট ১২০ জন শিক্ষার্থী ভর্তির সুযোগ পায়।

বিভাগসমূহ[সম্পাদনা]

  1. কম্পিউটার প্রকৌশল
  2. তড়িৎ বিদ্যা
  3. তড়িৎ প্রকৌশল
  4. যন্ত্রকৌশল
  5. পুরকৌশল
  6. শক্তি প্রকৌশল
  7. ইলেকট্রোমেডিক্যাল প্রকৌশল

রূপকল্প-২০১৮[সম্পাদনা]

রংপুর পলিটেকনিককে বাংলাদেশের সফলতম পলিটেকনিকের মর্যাদায় প্রতিষ্ঠিত করতে তৈরি করা হয়েছে 'রূপকল্প-২০১৮' । প্রাক্তন অধ্যক্ষ প্রকৌশলী খোন্দকার গোলাম মোস্তফার নেতৃত্বে শুরু হয়েছিল 'রূপকল্প-২০১৮'।[১]

সুযোগ-সুবিধা[সম্পাদনা]

মাঠ[সম্পাদনা]

রংপুর পলিটেকনিকের দুইটি বৃহৎ খেলার মাঠ রয়েছে; যার একটি কলেজের ভিতরে, অপরটি কলেজের বাইরে তিস্তা ছাত্রাবাসের সামনে।

আবাসিক হল[সম্পাদনা]

ছাত্রদের জন্য রয়েছে দুইটি এবং মেয়েদের জন্য একটি আবাসিক হল।

  1. তিস্তা ছাত্রাবাস
  2. শাহজাহান কবির ছাত্রাবাস
  3. তাপসী রাবেয়া ছাত্রীনিবাস।

শাহজাহান কবির ছাত্রাবাসে মেধাক্রম অনুযায়ী ছাত্রদের চান্স দেওয়া হয়।

শিক্ষকদের আবাসন[সম্পাদনা]

শিক্ষকদের জন্য দুইটি আবাসিক ভবন রয়েছে; যার একটি কলেজের ভিতরে, অপরটি তিস্তা ছাত্রাবাসের পাশে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. রংগারুণ । বার্ষিকী ২০১৪

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

www.rpir.gov.bd