মোহাম্মদ ওয়াহিদ হাসান

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মোহাম্মদ ওয়াহিদ হাসান
মালদ্বীপের ৫ম রাষ্ট্রপতি
কার্যালয়ে
৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১২ – ১৭ নভেম্বর, ২০১৩
উপরাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ ওয়াহিদ দ্বীন
পূর্বসূরী মোহাম্মদ নাশিদ
উত্তরসূরী আব্দুল্লাহ ইয়ামিন
মালদ্বীপের উপ-রাষ্ট্রপতি
কার্যালয়ে
১১ নভেম্বর, ২০০৮ – ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১২
রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ নাশিদ
পূর্বসূরী ইব্রাহিম মুহাম্মদ দিদি
উত্তরসূরী মোহাম্মদ ওয়াহিদ দ্বীন
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম (১৯৫৩-০১-০৩) ৩ জানুয়ারি ১৯৫৩ (বয়স ৬২)
মালে, মালদ্বীপ
রাজনৈতিক দল জাতীয় একতা পার্টি
দাম্পত্য সঙ্গী ইলহাম হুসাইন
সন্তান উইদহাদ ওয়াহিদ
ফিদা ওয়াহিদ
জেফ্রে সলিম ওয়াহিদ
বাসস্থান মুলিয়াগি (দাপ্তরিক)
অধ্যয়নকৃত শিক্ষা
প্রতিষ্ঠান
আমেরিকান ইউনিভার্সিটি অফ বৈরুত
স্ট্যানফোর্ড গ্র্যাজুয়েট স্কুল অফ এডুকেশন
ধর্ম ইসলাম

মোহাম্মদ ওয়াহিদ হাসান মানিক (ধিবেহী: :ޑރ. މުޙައްމަދު ވަޙީދު ޙަސަން މަނިކު; জন্ম: ৩ জানুয়ারি, ১৯৫৩) মালেতে জন্মগ্রহণকারী মালদ্বীপের বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ। ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৩ থেকে ১৭ নভেম্বর, ২০১৩ তারিখ পর্যন্ত মেয়াদকালে তিনি মালদ্বীপের ৫ম রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব পালন করেছেন। একসময় তিনি সংবাদ উপস্থাপক ছিলেন। এছাড়াও তিনি জাতিসংঘে ইউনিসেফ, ইউএনডিপিইউনেস্কো’র কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করেন। তিনি মালদ্বীপের সংসদের সদস্য ছিলেন। মালদ্বীপের প্রথম নাগরিক হিসেবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রী অর্জন করেন। প্রথম ব্যক্তি হিসেবে মালদ্বীপ টেলিভিশনের পর্দায় উপস্থাপিত হয়েছেন তিনি।

হাসান ইব্রাহিম মানিকু ও এইশাথ মুসা দম্পতির সন্তান মোহাম্মদ ওয়াহিদ হাসান। দশ ভাই-বোনের মধ্যে তাঁর অবস্থান প্রথম।[১]

রাজনৈতিক জীবন[সম্পাদনা]

সংসদ সদস্যরা নাটকীয়ভাবে দেশ পুণর্গঠন করতে পারবেন না চিন্তা করে উচ্চতর শিক্ষার লক্ষ্যে মালদ্বীপ ত্যাগ করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র গমন করেন। সেখানে তিনি দু’টি স্নাতকোত্তর ডিগ্রী ও স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রী অর্জন করেন। পিএইচডি ডিগ্রী অর্জনের ফলে তিনি মালদ্বীপের প্রথম ব্যক্তি হবার সৌভাগ্য অর্জন করেন।[২][৩] শিক্ষাজীবন শেষে দেশে ফিরে সংসদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। সাবেক রাষ্ট্রপতি মামুন আব্দুল গাইয়ুমের শ্যালক ইলিয়াস ইব্রাহিমের বিরুদ্ধে নির্বাচনে তিনি বিজয়ী হন।

২০০৮ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত তিনি মালদ্বীপের উপ-রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব পালন করেন। সাবেক রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ নাশিদের পদত্যাগজনিত কারণে ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১২ তারিখে মোহাম্মদ ওয়াহিদ হাসান রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব নেন। পরদিনই নাশিদ জানান যে, তিনি সামরিক বাহিনীপুলিশের বন্দুকের নলের মুখে জোরপূর্বক পদত্যাগপত্রে স্বাক্ষর করতে বাধ্য হন। প্রতিবেদনে প্রকাশ পায় যে, ওয়াহিদ ও তাঁর সমর্থকেরা সামরিকবাহিনীর সহায়তায় জনগণকে নির্যাতন করেছেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Dr. Kaalhu's biography"। drwaheed.com। সংগৃহীত ৩১ মার্চ ২০১২ 
  2. Indrani Bagchi (৮ ফেব্রুয়ারি ২০১২)। "Ex-TV host in Maldives hot seat"Times of India। সংগৃহীত ৩১ মার্চ ২০১২ 
  3. Mobhare Matinyi (৯ ফেব্রুয়ারি ২০১২)। "When protestors, police oust the president"The Citizen। সংগৃহীত ৩১ মার্চ ২০১২ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

রাজনৈতিক দফতর
পূর্বসূরী
ইব্রাহিম মুহাম্মদ দিদি
মালদ্বীপের উপ-রাষ্ট্রপতি
২০০৮-২০১২
উত্তরসূরী
মোহাম্মদ ওয়াহিদ দ্বীন
পূর্বসূরী
মোহাম্মদ নাশিদ
মালদ্বীপের রাষ্ট্রপতি
২০১২ - ২০১৩
উত্তরসূরী
আব্দুল্লাহ ইয়ামিন