মার্ক ক্রেগ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মার্ক ক্রেগ
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামমার্ক ডোনাল্ড ক্রেগ
জন্ম (1987-03-23) ২৩ মার্চ ১৯৮৭ (বয়স ৩২)
অকল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড
ব্যাটিংয়ের ধরনবামহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি অফ ব্রেক
ভূমিকাবোলার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ২৬৫)
৮ জুন ২০১৪ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
শেষ টেস্ট২৯ মে ২০১৫ বনাম ইংল্যান্ড
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
২০০৯-বর্তমানওতাগো
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি এলএ টি২০
ম্যাচ সংখ্যা ১০ ৪১ ১০ ১৬
রানের সংখ্যা ৪২১ ১৪০৩ ১৩৫ ১৫
ব্যাটিং গড় ৪২.১০ ২৭.৫০ ২২.৫০ ৭.৫০
১০০/৫০ ০/৩ ১/৮ ০/০ ০/০
সর্বোচ্চ রান ৬৭ ১০৪ ৪৪*
বল করেছে ২৫৬৩ ৭২৪৮ ৩৮৮ ২২৮
উইকেট ৩৮ ১০২
বোলিং গড় ৪০.০২ ৪০.৭০ ৪১.২২ ৪৫.৫৭
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং ৭/৯৪ ৭/৯৪ ৩/৬ ৩/২৯
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১১/– ৪০/– ৫/– ১০/–
উৎস: espncricinfo, ১১ জুন ২০১৫

মার্ক ডোনাল্ড ক্রেগ (জন্ম: ২৩ মার্চ, ১৯৮৭) অকল্যান্ডে জন্মগ্রহণকারী নিউজিল্যান্ডীয় ক্রিকেটারনিউজিল্যান্ড জাতীয় ক্রিকেট দলে খেলার পাশাপাশি ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে ওতাগো দলের হয়ে খেলছেন। দলে তিনি মূলতঃ স্পিন বোলার। ডানহাতে অফ স্পিন বোলিংয়ের পাশাপাশি বামহাতে ব্যাটিংয়ে অভ্যস্ত তিনি।

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

৮ জুন, ২০১৪ তারিখে ওয়েস্ট ইন্ডিজে সফরকালীন সময়ে নিউজিল্যান্ড দলের হয়ে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। সিরিজের ১ম টেস্টেই তার চমকপ্রদ বোলিং নৈপুণ্যে নিউজিল্যান্ড দল ১৮৬ রানের বিশাল ব্যবধানে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে পরাজিত করে। খেলায় তিনি ১৮৮ রানের বিনিময়ে ৮ উইকেট লাভ করেন ও ম্যান অব দ্য ম্যাচের পুরস্কার লাভ করেন।[১] এছাড়াও বিজে ওয়াটলিংয়ের সাথে জুটি গড়ে ৪ ঘন্টায় তিনি তার সর্বোচ্চ ৬৭ রান সংগ্রহ করেন।[১] টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে প্রথম বলেই ছক্কা হাঁকান তিনি।[২]

২৬ নভেম্বর, ২০১৪ তারিখে সংযুক্ত আরব আমিরাতের শারজায় পাকিস্তানের বিপক্ষে অনুষ্ঠিত ৩য় টেস্টের ১ম ইনিংসে ৭/৯৪ লাভ করেন, যা তার নিজস্ব সেরা বোলিং পরিসংখ্যান।[৩] এটি ছিল তার প্রথম ৫ উইকেট লাভ।[৪] ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে তিনি তার পূর্বতন সেরা ৪/৯১ লাভ করেছিলেন। এরফলে পাকিস্তান দল ৩৫১ রানে গুটিয়ে যায়। পরবর্তীতে ব্রেন্ডন ম্যাককুলামের ১৮৮ বলে গড়া ঝড়ো ২০২ রানের ইনিংসে নিউজিল্যান্ড দল ইনিংস ও ৮০ রানের বিশাল ব্যবধানে জয়ী হয় ও সিরিজে ১-১ ব্যবধানে সমতা আনে। খেলায় তিনি ম্যান অব দ্য ম্যাচ নির্বাচিত হন।

টেস্টে ৫-উইকেট[সম্পাদনা]

# বোলিং পরিসংখ্যান খেলা প্রতিপক্ষ মাঠ শহর দেশ সাল ফলাফল
৭/৯৪  পাকিস্তান শারজাহ ক্রিকেট স্টেডিয়াম শারজাহ সংযুক্ত আরব আমিরাত ২০১৪ জয়

ম্যান অব দ্য ম্যাচ (টেস্ট)[সম্পাদনা]

নং প্রতিপক্ষ মাঠ তারিখ অবদান
ওয়েস্ট ইন্ডিজ সাবিনা পার্ক, কিংসটন ৮-১১ জুন, ২০১৪ ১ম ইনিংস: ডিএনবি; ২৪-৩-৯১-৪;
২য় ইনিংস: ৭* (৪ ব; ১×৬); ১৫-২-৯৭-৪
পাকিস্তান শারজাহ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়াম, শারজাহ ২৬-৩০ নভেম্বর, ২০১৪ ১ম ইনিংস: ২৭.৪-৫-৯৪-৭; ৬৫ (৮৫ ব; ২×৪, ৩x৬);
২য় ইনিংস: ২০.৩-২-১০৯-৩

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "New Zealand tour of West Indies, 1st Test: West Indies v New Zealand at Kingston, Jun 8-12, 2014"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৮ জুন ২০১৪  উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ অবৈধ; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে "Cricinfo" নাম একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে
  2. "Mark Craig and other batsmen who smashed six off first ball faced in an innings"Cricket County। সংগ্রহের তারিখ ১৩ জুন ২০১৪ 
  3. "Craig seven restricts Pakistan to 351"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৮ নভেম্বর ২০১৪ 
  4. Jain, Hitesh (২৯ নভেম্বর ২০১৪)। "Craig bundled out Pakistan for 351"cricschedule। সংগ্রহের তারিখ ১১ জুন ২০১৫ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]