ভূতের ভবিষ্যৎ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ভূতের ভবিষ্যৎ
ভূতের ভবিষ্যৎ.jpg
ভূতের ভবিষ্যৎ চলচ্চিত্র এর বাণিজ্যিক পোস্টার
পরিচালকঅনীক দত্ত
প্রযোজকজয় গাঙ্গুলী
চিত্রনাট্যকারঅনীক দত্ত
কাহিনিকারঅনীক দত্ত
শ্রেষ্ঠাংশেপরমব্রত চট্টোপাধ্যায়
সুরকাররাজা নারায়ণ দেব
মুক্তি১৬ই মার্চ ২০১২
দৈর্ঘ্য১২০ মিনিট
দেশভারত
ভাষাবাংলা

ভূতের ভবিষ্যৎ ভারতীয় পরিচালক অনীক দত্তের পরিচালিত প্রথম বাংলা চলচ্চিত্র। ২০১২ সালের একটি হিট ছবি।[১] চলচ্চিত্রটি শ্রীরামপুর রাজবাটী-তে স্যুটিং হয়।

কাহিনী[সম্পাদনা]

হবু সিনেমা-পরিচালক অয়ন সেনগুপ্ত নিজের প্রথম সিনেমার শুটিং এর জন্যে লোকেশন দেখতে আসেন 'চৌধুরী প্যালেস' নামে হানাবাড়ী বলে কুখ্যাত একটি প্রাসাদে। হঠাৎ তার আলাপ হয় বাড়িরই একজন ব্যক্তির সঙ্গে যিনি ওখানেই থাকেন । তার কাছে থেকে সেই বাড়িতে থাকা ভূতেদের কাহিনী শোনেন পরিচালক । প্রমোটারি আর দখলদারীর জেরে বিভিন্ন জায়গা থেকে জাতি, ধর্ম, পেশা, লিঙ্গ ও প্রজন্ম নির্বিশেষে গৃহহীন ভূতেরা নতুন আস্তানার খোঁজে জড়ো হয় এই পরিত্যক্ত প্রাসাদে । খরচ টানতে বাড়ীর মালিকরা সেই প্রাসাদ সিনেমার শুটিংয়ের জন্য ভাড়া দিলেও ভূতের উপদ্রবে তা পণ্ড হয়ে যায় । এমন সময় প্রমোটার গনেশ ভুতোরিয়া সেই বাড়ি ভেঙ্গে শপিং মল গড়তে এলে ভূতেরা একযোগে মতলব কষে তাকে তাড়িয়ে দেয় । গল্পের শেষে জানা যায় যিনি এর কথক তিনিও প্রাসাদের বাসিন্দা একজন ভূত । ভূতেদের দেওয়া টাকায় ভূতের বলা কাহিনীর ওপর ভিত্তি করে সেই ভূতুড়ে প্রাসাদেই ভূতেদের ওপর তৈরি হল ভূতের ভবিষ্যৎ

অভিনয়ে[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "কলকাতার ভূতের ভবিষ্যৎ ওদের বিটলজুস"। ৩০ অক্টোবর ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৭ আগস্ট ২০১৬ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]