ব্রায়ান অ্যান্ড্রুজ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ব্রায়ান অ্যান্ড্রুজ
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামব্রায়ান অ্যান্ড্রুজ
জন্ম (1945-04-04) ৪ এপ্রিল ১৯৪৫ (বয়স ৭৫)
ক্রাইস্টচার্চ, নিউজিল্যান্ড
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি মিডিয়াম
ভূমিকাবোলার, ধারাভাষ্যকার
সম্পর্কএস অ্যান্ড্রুজ (পিতা)
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ১২৭)
২৯ ডিসেম্বর ১৯৭৩ বনাম অস্ট্রেলিয়া
শেষ টেস্ট৫ জানুয়ারি ১৯৭৪ বনাম অস্ট্রেলিয়া
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯৬৩/৬৪ - ১৯৬৬/৬৭ক্যান্টারবারি
১৯৬৬/৬৭ - ১৯৬৯/৭০সেন্ট্রাল ডিস্ট্রিক্টস
১৯৭০/৭১ - ১৯৭৩/৭৪ওতাগো
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ৫৭
রানের সংখ্যা ২২ ৪৭৪
ব্যাটিং গড় ২২.০০ ৯.১১
১০০/৫০ ০/০ ০/০
সর্বোচ্চ রান ১৭ ২১
বল করেছে ২৫৬ ১২০৪৫
উইকেট ১৯৮
বোলিং গড় ৭৭.০০ ২৩.২৩
ইনিংসে ৫ উইকেট ১১
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ২/৪০ ৭/৩৭
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১/- ২৬/-
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ১১ অক্টোবর ২০২০

ব্রায়ান অ্যান্ড্রুজ, কিউএসএম (ইংরেজি: Bryan Andrews; জন্ম: ৪ এপ্রিল, ১৯৪৫) ক্যান্টারবারির ক্রাইস্টচার্চ এলাকায় জন্মগ্রহণকারী সাবেক নিউজিল্যান্ডীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ও ধারাভাষ্যকার।[১] নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৭০-এর সূচনালগ্নে অত্যন্ত সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে নিউজিল্যান্ডের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর নিউজিল্যান্ডীয় ক্রিকেটে ক্যান্টারবারি, সেন্ট্রাল ডিস্ট্রিক্টস ও ওতাগো দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি মিডিয়াম বোলার হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, ডানহাতে নিচেরসারিতে ব্যাটিং করতেন তিনি।

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৯৬৩-৬৪ মৌসুম থেকে ১৯৭৩-৭৪ মৌসুম পর্যন্ত ব্রায়ান অ্যান্ড্রুজের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। ব্রায়ান অ্যান্ড্রুজ খাঁটিমানের ডানহাতি মিডিয়াম পেস বোলার ছিলেন। সেন্ট্রাল ডিস্ট্রিক্টস, ক্যান্টারবারি ও সবশেষে ওতাগোর পক্ষে খেলে বেশ সফলতার স্বাক্ষর রাখেন। তিনটি দলের পক্ষে ২৫-এর কম গড়ে বোলিং করেছেন। তবে, তুলনামূলকভাবে বেশ দেরীতে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে অংশগ্রহণের সুযোগ ঘটে তার।

১৯৬৩-৬৪ মৌসুম থেকে ক্যান্টারবারির পক্ষে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট জীবন শুরু করেন ব্রায়ান অ্যান্ড্রুজ। এরপর, ১৯৬৬-৬৭ মৌসুমে সেন্ট্রাল ডিস্ট্রিক্টসের সদস্যরূপে খেলতে থাকেন। পরবর্তীতে, আবারও দল পরিবর্তন করে ওতাগোর সদস্য হন। এ পর্যায়ে দলটিতে ১৯৭০-৭১ মৌসুম থেকে ১৯৭৩-৭৪ মৌসুম পর্যন্ত অবস্থান করেন।

১৯৬৯-৭০ মৌসুমে সেন্ট্রাল ডিস্ট্রিক্টসের সদস্যরূপে ওতাগোর বিপক্ষে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে ব্যক্তিগত সেরা বোলিং পরিসংখ্যান ৭/৩৭ গড়েন।[২] ঐ মৌসুমে ১৫.৯৬ গড়ে ২৮ উইকেট লাভের মাধ্যমে প্লাঙ্কেট শীল্ডে সর্বোচ্চ উইকেট সংগ্রাহকে পরিণত হন।[৩] এছাড়াও, ১৯৬৭ থেকে ১৯৭০ সাল পর্যন্ত হক কাপে ওয়াঙ্গানুইয়ের পক্ষে খেলেন।

১৯৭৩-৭৪ মৌসুমে বিস্ময়করভাবে জাতীয় দলে খেলার জন্যে আমন্ত্রিত হন। অথচ, নিজের স্বর্ণালী বছরগুলো ইতোমধ্যেই পাড় করে ফেলেছেন তিনি। দুইটি সাধারণমানের ঘরোয়া মৌসুম অতিবাহিত করার পর তাকে দলে অন্তর্ভূক্ত করা হয়। প্রস্তুতিমূলক খেলাগুলোয় নিউজিল্যান্ড একাদশ বেশ হিমশিম খেলেও প্রথম টেস্ট শুরুর পূর্বে কুইন্সল্যান্ডের বিপক্ষে ৫/৮৫ বোলিং পরিসংখ্যান গড়েন তিনি।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে দুইটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করেছেন ব্রায়ান অ্যান্ড্রুজ। সবগুলো টেস্টই অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলেছিলেন তিনি। ২৯ ডিসেম্বর, ১৯৭৩ তারিখে মেলবোর্নে স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়া দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। এরপর, ৫ জানুয়ারি, ১৯৭৪ তারিখে সিডনিতে একই দলের বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন তিনি।

১৯৭৩-৭৪ মৌসুমে নিউজিল্যান্ড দলের সদস্যরূপে অস্ট্রেলিয়া গমনের সুযোগ পান। নিউজিল্যান্ড দলের সদস্যরূপে প্রথম একাদশে তাকে রাখা হয়। সিরিজের প্রথম দুই টেস্টে অংশ নেন। তবে, তৃতীয় টেস্টে ল্যান্স কেয়ার্নসকে তার স্থলাভিষিক্ত হন।[৪]

রিচার্ড হ্যাডলি’র সাথে বোলিং উদ্বোধনে নামলেও তিনি ০/১০০ বোলিং করেন। ঐ খেলায় অস্ট্রেলিয়া দল ইনিংস ব্যবধানে জয় তুলে নেয়। দ্বিতীয় টেস্টেও তাকে দলে রাখা হয়। ড্র হওয়া ঐ খেলায় ২/৪০ পান। এরপর, তিনি আর একটিমাত্র প্রথম-শ্রেণীর খেলায় অংশ নিয়েছিলেন।

অবসর[সম্পাদনা]

১৯৭১-৭২ থেকে ১৯৭৩-৭৪ মৌসুম পর্যন্ত মোট তিন মৌসুম নিউজিল্যান্ড দলের সদস্যরূপে অস্ট্রেলিয়ার ঘরোয়া সীমিত ওভারের ক্রিকেট প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছিলেন। তন্মধ্যে, ১৯৭২-৭৩ মৌসুমে তার দল জয়লাভ করেছিল।[৫]

১৯৭৩-৭৪ মৌসুমের শেষদিকে সফররত অস্ট্রেলীয় একাদশের বিপক্ষে ওতাগোর সদস্যরূপে খেলেন। কয়েক সপ্তাহ পরই প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট থেকে অবসর গ্রহণ করেন তিনি। ক্রিকেট খেলা থেকে অবসর গ্রহণের পর ধারাভাষ্যকর্মের দিকে ঝুঁকে পড়েন। অনেকগুলো বছর রেডিও স্পোর্ট ক্রিকেট ধারাভাষ্যকার দলের সদস্য ছিলেন।

নিলামদার হিসেবে কাজ করেছেন। ২০১৩ সাল পর্যন্ত সাত বছর নিউজিল্যান্ড অকশনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতির দায়িত্বে ছিলেন। ২০১৫ সালে সম্প্রদায় ও দাতব্য কর্ম বিশেষতঃ দাতব্য নিলাম ব্যবস্থাপনা ও পরিচালনা কার্য্যে যুক্ত থাকার স্বীকৃতিস্বরূপ ব্রায়ান অ্যান্ড্রুজকে কুইন্স সার্ভিস মেডেল প্রদান করা হয়।[৬] হলবার্গ ডিজঅ্যাবিলিটি স্পোর্ট ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিষদের সদস্য তিনি।[৭]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Bryan Andrews"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৫ মে ২০১৬ 
  2. "Otago v Central Districts 1969-70"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ২৩ এপ্রিল ২০১৭ 
  3. "Bowling in Plunket Shield 1969-70"CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ 
  4. Phil Wilkins, "New Zealand in Australia 1973-74", Wisden 1975, pp. 930–43.
  5. "List A Matches played by Bryan Andrews"CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ 
  6. "Queen's Birthday Honours 2015 - Citations for The Queen's Service Medal"DPMC। সংগ্রহের তারিখ ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ 
  7. "Who we are"Halberg Disability Sport Foundation। সংগ্রহের তারিখ ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]