বিহার বিধানসভা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
বিহার বিধানসভা
বিহারের ১৭তম আইনসভা
Coat of arms or logo
ধরন
ধরন
দ্বিকক্ষ বিশিষ্ট
মেয়াদসীমা৫ আছর
নেতৃত্ব
স্পিকারবিজয় কুমার সিনহা, বিজেপি
২৪ নভেম্বর ২০২০ থেকে
ডেপুটি স্পিকারটিবিডি
২০২০ থেকে
মুখ্যমন্ত্রীনীতীশ কুমার, জেডি (ইউ)
১৬ নভেম্বর ২০২০ থেকে
উপ-মুখ্যমন্ত্রীরেনু দেবী, বিজেপি
তারকিশোর প্রসাদ, বিজেপি
১৬ নভেম্বর ২০২০ থেকে
বিরোধী দলীয় নেতাতেজশ্বী যাদব, আরজেডি
২০২০ থেকে
গঠন
আসন২৪৩
India Bihar Vidhan Sabha 2020.svg
রাজনৈতিক দলসরকারি দল (১২৭)

এনডিএ (১২৭)

বিরোধীদল (১১০)

এমজিবি-ইউপিএ (১১০)

অন্যান্য (৬)

নির্বাচন
ভোটদান ব্যবস্থাফার্স্ট পাস্ট দ্য পোস্ট
সর্বশেষ নির্বাচন২৮ অক্টোবর - ৭ নভেম্বর ২০২০
পরবর্তী নির্বাচন২০২৫
সভাস্থল
Vidhan-sabha-bihar.jpg
বিহার রাজ্য বিধানসভা, পাটনা, বিহার, ভারত
ওয়েবসাইট
vidhansabha.bih.nic.in

বিহার বিধানসভা, হল ভারতের বিহার রাজ্যের দ্বিকক্ষ বিশিষ্ট আইনসভার নিম্নকক্ষ

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯৩৭ সালে বিহার আইনসভা অস্তিত্ব লাভ করে। [১] বিধানসভাটি ছিল ১৫২ সদস্যের। ভারতের সংবিধানের বিধান অনুসারে, রাজ্যে প্রথম সাধারণ নির্বাচন ১৯৫২ সালে অনুষ্ঠিত হয়েছিল। [২] বিধানসভায় সদস্যপদের মোট শক্তি ছিল ৩৩১ জন, একজন মনোনীত সদস্যসহ। বিধানসভার প্রথম জননেতা ডক্টর শ্রী কৃষ্ণ সিংহ মুখ্যমন্ত্রী হয়েছিলেন, প্রথম উপ-নেতা ডঃ অনুগ্রহ নারায়ণ সিং নির্বাচিত হয়ে রাজ্যের প্রথম উপ-মুখ্যমন্ত্রী হয়েছিলেন। দ্বিতীয় সাধারণ নির্বাচনের সময় সদস্যপদ হ্রাস করে ৩১৮ করা হয়েছিল। ১৯৭৭ সালে, বিহার বিধানসভার মোট নির্বাচিত সদস্যের সংখ্যা ৩১৮ থেকে ৩২৪এ উন্নীত করা হয়েছিল। বিহার পুনর্গঠন আইন অনুসারে সংসদের একটি আইন দ্বারা ঝাড়খণ্ডের একটি পৃথক রাজ্য গঠনের সাথে সাথে, বিহার বিধানসভার শক্তি ৩২৪ থেকে কমিয়ে ২৪৩ সদস্য করা হয়েছিল। ২৪৩টি আসনের মধ্যে ৩৮ এসসি এবং ২টি এসটি সংরক্ষিত আসন রয়েছে।

বিহার বিধানসভার শর্তাদি[সম্পাদনা]

নীচে বিহার বিধানসভা গঠন ও বিলোপের তারিখগুলি দেওয়া হল। প্রতিটি বিধানসভার জন্য প্রথম বৈঠকের তারিখ এবং মেয়াদ শেষ হওয়ার তারিখ সংবিধান এবং ভেঙ্গে দেয়ার তারিখের সাথে পৃথক হতে পারে (যথাক্রমে)।

বিধানসভা সংবিধান বিযুক্তি দিনগুলি
১ম ২০ মে ১৯৫২ ৩১ মার্চ ১৯৫৭ ১,৭৭৬
২য় ২০ মে ১৯৫৭ ১৫ মার্চ ১৯৬২ ১,৭৬০
৩য় ১৬ মার্চ ১৯৬২ ১৬ মার্চ ১৯৬৭ ১,৮২৬
৪র্থ ১৭ মার্চ ১৯৬৭ ২৬ ফেব্রুয়ারি ১৯৬৯ ৭১২
৫ম ২৬ ফেব্রুয়ারি ১৯৬৯ ২৮ মার্চ ১৯৭২ ১,১২৬
৬ষ্ঠ ২৯ মার্চ ১৯৭২ ৩০ এপ্রিল ১৯৭৭ ১,৮৫৮
৭ম ২৪ জুন ১৯৭৭ ১৭ ফেব্রুয়ারি ১৯৮০ ৯৬৮
৮ম ৮ জুন ১৯৮০ ১২ মার্চ ১৯৮৫ ১,৭৩৮
৯ম ১২ মার্চ ১৯৮৫ ১০ মার্চ ১৯৯০ ১,৮২৪
১০ম ১০ মার্চ ১৯৯০ ২৮ মার্চ ১৯৯৫ ১,৮৪৪
১১তম ৪ এপ্রিল ১৯৯৫ ২ মার্চ ২০০০ ১,৭৯৫
১২তম ৩ মার্চ ২০০০ ৬ মার্চ ২০০৫ ১,৮৩০
১৩তম ৭ মার্চ ২০০৫ ২৪ নভেম্বর ২০০৫ ২৬৩
১৪তম ২৪ নভেম্বর ২০০৫ ২৬ নভেম্বর ২০১০ ১,৮২৯
১৫তম ২৬ নভেম্বর ২০১০ ২০ নভেম্বর ২০১৫ ১,৮২১
১৬তম ২০ নভেম্বর ২০১৫ ১৪ নভেম্বর ২০২০ [৩] ১,৮২১
১৭তম ১৬ নভেম্বর ২০২০ শায়িত্ব

কাজ[সম্পাদনা]

বিহার বিধানসভা কোনও স্থায়ী সংস্থা নয় এবং এটি বিলীন হয়ে যেতে পারে। বিধানসভার মেয়াদ পাঁচ বছর, যতক্ষণ না এটি ভেঙ্গে দেয়া হয়। বিধানসভার সদস্যগণ জনগণের দ্বারা সরাসরি ভোটে নির্বাচিত হন।

প্রতি বছর তিনটি অধিবেশন (বাজেট অধিবেশন, বর্ষার অধিবেশন, শীতকালীন অধিবেশন) হয়।

আইনসভার অধিবেশনগুলির সভাপতিত্ব করেন স্পিকার। স্পিকার প্রমাণ করেন যে কোনও বিল সাধারণ বিল বা মানি বিল কিনা। সাধারণত তিনি ভোটিংয়ে অংশ নেন না তবে টাইয়ের ক্ষেত্রে তিনি ভোট দেন। বিজয় কুমার সিনহা বিহার বিধানসভার বর্তমান স্পিকার। [৪] আইনসভায় একটি সচিবালয়ও রয়েছে যার নেতৃত্বে থাকেন একজন সচিব। তিনি স্পিকারের শৃঙ্খলাবদ্ধ নিয়ন্ত্রণে থাকেন। সচিবের কাজ হ'ল স্পিকারকে সহায়তা করা। বটেশ্বর নাথ পান্ডে বিহার বিধানসভার বর্তমান সচিব।

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "First Bihar assembly: Down memory lane"The Times of India। ১৮ মে ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ নভেম্বর ২০১৬ 
  2. "Bihar poll dates announced: Some facts youn need to know about Bihar Legislative Assembly"www.oneindia.com। ২০ নভেম্বর ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ নভেম্বর ২০১৬ 
  3. Etemaad (১৪ নভেম্বর ২০২০)। "Bihar Governor Phagu Chauhan Formally Dissolved 16th Legislative Assembly"। সংগ্রহের তারিখ ১৫ নভেম্বর ২০২০ 
  4. "NDA nominee Vijay Kumar Sinha elected Bihar Assembly Speaker"The Hindu। সংগ্রহের তারিখ ৪ ডিসেম্বর ২০২০ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]