বনসাই চাষ ও যত্ন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
বনসাই

বনসাই একটি জীবন্ত শিল্প।একটি শক্ত কান্ড বিশিষ্ট গাছকে একটি ছোট পটে রেখে বছরের পর বছর একে বাঁচিয়ে রাখার শিল্পকেই বনসাই বলে।

গাছ নির্বাচন[সম্পাদনা]

ম্যাপল গাছের বনসাই

যে সকল গাছের বৃদ্ধি ধীরে ধীরে হয়। গাছের কান্ড মোটা হয়। বছরে একবার পাতা ঝরে। গাছের বয়স হলে গাছের ছাল মোটা হয়। গাছের ঝুরি নামে এমন গাছ, শিকড় কেটে দিলে ঝুরি গাছের শিকড়ের কাজ করে। গাছ অনেকদিন সতেজ থাকে এবং গাছের বয়স অনুযায়ী বেঁচে থাকে। যেখানে বা যেদেশে বনসাই করা হবে সে স্থানের আবহাওয়া উপযোগী হতে হয়।

অনেক বড় একটি পাকুড় গাছ

বাংলাদেশে বনসাই করা যেতে পারে এমন গাছগুলো হল:

মাটি তৈরি[সম্পাদনা]

বনসাই চাষের জন্য দো-আঁশ মাটি সবচেয়ে উপযোগী। এছাড়া এতে কম্পোস্ট সার ,ইটের গুড়ো, বালি, পাথর এর গুড়ো,পোড়ামাটির গুড়ো,ছাই ইত্যাদি মেশানো উচিৎ। সম্ভব হলে এতে কেঁচো সার, গোবর সার ইত্যাদি মেশানো উচিৎ। মাটি এমন ভাবে তৈরি করতে হবে যাতে পানি নিষ্কাশন ভাল হয়।

চারা সংগ্রহ[সম্পাদনা]

কাটিং হতে গৃহীত চারা

বনসাই এর জন্য চারা গাছ যে কোন স্থান থেকে সংগ্রহ করা যায়। বীজ থেকেও চারা সংগ্রহ করা যায়, আবার কলমের চারাও সংগ্রহ করা যায়। কলমের মধ্যে কাটিং,লেয়ারিং,এয়ার লেয়ারিং ইত্যাদি উপায়ে চারা সংগ্রহ করা যায়। নার্সারি থেকে চারা লাগানো যায়। আবার, বট, পাকুড়, অশ্বত্থ গাছের চারা পুরাতন দেয়াল,পুরাতন ইটের স্তুপ থেকেও সংগ্রহ করা যায়।

পট বা টব[সম্পাদনা]

বনসাই এর পাত্র

বনসাই এর জন্য তেমন বড় পাত্র লাগে না। অপেক্ষাকৃত অনেক ছোট পাত্রে বনসাই চাষ করা হয়। বনসাই এর টব বা পটের নিচে পানি নিষ্কাশন এর জন্য ছোট ছিদ্র থাকতে হয়।

রোপন[সম্পাদনা]

সাধারণত বর্ষাকাল এ বনসাই রোপন করতে হয়। তবে বছরের অন্যান্য ঋতুতেও চারা রোপণ করা যায়।

যত্ন[সম্পাদনা]

যন্ত্রপাতি[সম্পাদনা]

বনসাই এর জন্য ব্যবহৃত যন্ত্র

তার পেচানো[সম্পাদনা]

একটি তার পেচানো বনসাই

কীট দমন[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বনসাই

বট

সোনালী বাঘ

আন্তঃসংযোগ[সম্পাদনা]

ইংরেজি নিবন্ধ।

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

আন্তঃসংযোগ[সম্পাদনা]