নীলেশ কুলকার্নি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
নীলেশ কুলকার্নি
ক্রিকেট তথ্য
ব্যাটিংয়ের ধরনবামহাতি
বোলিংয়ের ধরনস্লো লেফট আর্ম অর্থোডক্স
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই
ম্যাচ সংখ্যা ১৫ ১০
রানের সংখ্যা ১৫
ব্যাটিং গড় ৫.০০ ৫.৫০
১০০/৫০ -/- -/-
সর্বোচ্চ রান ৫*
বল করেছে ৭৩৮ ৪০২
উইকেট ২০ ১১
বোলিং গড় ১৬৬.০০ ৩২.৪৫
ইনিংসে ৫ উইকেট - -
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং ১/৭০ ৩/২৭
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১/- ২/-
উৎস: ক্রিকইনফো, ২৬ এপ্রিল ২০১৭

নীলেশ মোরেশ্বর কুলকার্নি (এই শব্দ সম্পর্কেউচ্চারণ ; মারাঠি: निलेश कुलकर्णी; জন্ম: ৩ এপ্রিল, ১৯৭৩) মহারাষ্ট্রের দোম্বিওয়ালি এলাকায় জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা সাবেক ভারতীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। ভারতীয় ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন দীর্ঘ ছয় ফুট চার ইঞ্চি উচ্চতার অধিকারী নীলেশ কুলকার্নি। দলে তিনি মূলতঃ বামহাতে স্লো বোলিং করতেন। এছাড়াও নীচেরসারিতে বামহাতে ব্যাটিংয়ে পারদর্শিতা দেখিয়েছেন তিনি।

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

১৯৯৭-৯৮ মৌসুমে কলম্বোয় স্বাগতিক শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তার টেস্ট অভিষেক হয়। উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান মারভান আতাপাত্তুকে প্রথম বলেই আউট করে চমক দেখান।[১] এরফলে একমাত্র ভারতীয় ও বিশ্বের দ্বাদশ বোলার হিসেবে টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে এ কীর্তিগাঁথা রচনা করেন তিনি। ৩ আগস্ট, ১৯৯৭ তারিখে আর. প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে এ কৃতিত্বে নয়ন মঙ্গিয়া তাকে সহায়তা করেন কট বিহাইন্ডের মাধ্যমে।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে মুম্বইয়ের প্রতিনিধিত্ব করেন তিনি ও তিনশতাধিক উইকেট পান। ২০০৪ সালে অন্ধ্রপ্রদেশের বিপক্ষে নিজস্ব সেরা বোলিং পরিসংখ্যান ৭/৬০ লাভ করেন। ২০০৭ ও ২০০৮ মৌসুমে যুক্তরাজ্যের সারে চ্যাম্পিয়নশীপে ওল্ড হাম্পটনিয়ান্স সিসির পক্ষে খেলেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]