জইশে মুহাম্মদ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(জইশ-ই-মুহাম্মদ থেকে পুনর্নির্দেশিত)
জইশে মুহাম্মদের পতাকা।

জইশে মুহাম্মদ (উর্দু: جيش محمد‎‎, "মুহাম্মাদের সৈন্য", এছাড়া জইশে মুহাম্মদ) কাশ্মীর ভিত্তিক দেওবন্দি জিহাদি সংগঠন।[১][২] সংগঠনটির প্রাথমিক লক্ষ্য কাশ্মীরকে ভারত থেকে পৃথক করা এবং সে জন্য ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে হামলা চালিয়েছে সংগঠনটি।[৩][৪] ২০০২ সালে পাকিস্তানে জইশে মুহাম্মদ নিষিদ্ধ হয়।[৫]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯৯৯ সালের ২৪ ডিসেম্বর কাঠমান্ডুতে ইন্ডিয়ান এয়ারলাইন্সের বিমান পাকিস্তানভিত্তিক জঙ্গিরা ১৮০ জন যাত্রীসহ আইসি ৮১৪ ফ্লাইটটিকে অমৃতসর,লাহোর ও দুবাই হয়ে আফগানিস্তানের কান্দাহারে নিয়ে যায়। এই ঘটনার কারামুক্তির অল্পদিন পরে মওলানা মাসউদ আজহার ২০০১ সালের মার্চ মাসে জইশে মুহাম্মদ গড়ে তোলেন।[২][৬][৭] হরকাতুল মুজাহিদীনের অধিকাংশ সদস্যই মওলানা আজহারকে অনুসরণ করে নতুন দল জইশে মুহাম্মদে যোগ দেয়।[৬]

২০০২ সালের জানুয়ারি মাসে প্রেসিডেন্ট পারভেজ মুশাররফ সরকার জইশে মুহাম্মদকে নিষিদ্ধ করলে দলটি নাম বদলে খাদ্দাম- উল- ইসলাম হিসেবে সন্ত্রাসবাদী কার্যক্রম চালিয়ে যায়।[২]

হামলার বিবরণ[সম্পাদনা]

  • ভারতের সংসদ ভবনে লস্কর-ই-তৈয়বার সাথে একযোগে জইশে মুহাম্মদের হামলা।[২]
  • মার্কিন সাংবাদিক ড্যানিয়েল পার্ল হত্যা।[৩][৫]
  • নিউ ইয়র্কে সন্ত্রাসী কার্যক্রম পরিচালনা।[৮][৯][১০]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. খান, ইরফানুল্লাহ (২০১৭)। দি দেওবন্দ মুভমেন্ট এন্ড দি রাইজ অব রিলিজিয়াস মিলিট্যান্সি ইন পাকিস্তানপিএইচডি অভিসন্দর্ভ (ইংরেজি ভাষায়)। ইসলামাবাদ: কায়েদে আজম বিশ্ববিদ্যালয়। পৃষ্ঠা ৭৯। 
  2. Cronin, Audrey Kurth (২০০৪-০২-০৬)। "Foreign Terrorist Organizations" (PDF)CRS Report for Congress। Washington, D.C.: Congressional Research Service: 40–43। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-১২-০২  অজানা প্যারামিটার |coauthors= উপেক্ষা করা হয়েছে (|author= ব্যবহারের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে) (সাহায্য)
  3. "Jaish-e-Mohammad: A profile", BBC News, ২০০২-০২-০৬, সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-১২-০২ 
  4. Attack May Spoil Kashmir Summit
  5. "Terror group builds big base under Pakistani officials' noses, Saeed Shah, McClatchy Newspapers, 13 Sep 2009"। ৩০ সেপ্টেম্বর ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মে ২০১৩ 
  6. Raman, B. (২০০১)। "JAISH-E-MOHAMMED (JEM) ---A BACKGROUNDER"। South Asia Analysis Group। ১৬ জুন ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ মে ২০১৩ 
  7. "JeM top commander killed in encounter in Kashmir" 
  8. http://www.newsday.com/news/printedition/longisland/ny-nybomb2212791308may21,0,141551.story
  9. "Synagogue targeted in NY plot, four charged"Reuters। ২০০৯-০৫-২১। 
  10. http://english.aljazeera.net/news/americas/2009/05/200952144536467973.html

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]