লস্কর-ই-তৈয়বা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
লস্কর-ই-তৈয়বা
لشکرطیبہ
Flag of Lashkar-e-Taiba.svg
লস্কর-ই-তৈয়বার পতাকা
প্রতিষ্ঠা ১৯৯০[১][২][৩]–বর্তমান
বিচরন পাকিস্তান, ভারত, আফগানিস্তান, বাংলাদেশ[৪]
সন্ত্রাসী কর্মকান্ড কার্গিল যুদ্ধ
ভারত অধিকৃত কাশ্মীরে সন্ত্রাসী কার্যক্রম
২০০৮ মুম্বাই হামলা
২০০১ ভারতীয় সংসদ ভবন হামলা
মিত্র আল-কাইদা
হারকাত-উল-জিহাদ-আল-ইসলামী
তাহরিক-ই-নাফজ-ই-শরিয়াত-ই-মহাম্মদী
তালিবান
ইন্টার-সার্ভিসেস ইন্টেলিজেন্স (ISI)
প্রতিদ্বন্দ্বী ভারত সরকার
ভারতের সামরিক বাহিনী
রিসার্চ অ্যান্ড অ্যানালাইসিস উইং (RAW)
মার্কিন সৈন্য বল
সেন্ট্রাল ইন্টেলিজেস এজেন্সি (CIA)

লস্কর-ই- তৈয়বা (উর্দু: لشکرطیبہ‎‎ [ˈləʃkər eː ˈt̪ɛːjbaː]; অর্থে মঙ্গলের সৈন্য অনুবাদ অর্থে ন্যায়নিষ্ঠার সৈন্য, অথবা নিষ্পাপ সৈন্য)[২][৫][৬] এছাড়া লস্কর-ই-তাইয়েবা, লস্কর-ই-তাইয়িবা দক্ষিণ এশিয়ায় পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত অন্যতম বৃহত্তম সন্ত্রাসী দল।[৭]

১৯৯০ সালে হাফেজ মোহাম্মদ সাঈদ, আবদুল্লাহ ইউসুফ আজম[৮][৯][১০]জাফর ইকবাল[১১][১২] আফগানিস্তানে লস্কর-ই-তৈয়বা প্রতিষ্ঠা করেন[১৩]। পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের লাহোরের নিকটে মুরিদকে নামক জায়গায় এর সদর অবস্থিত।[৫] এই দলটি পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে বিভিন্ন ক্যাম্প চালনা করে।[৩]

নেতৃত্ব[সম্পাদনা]

  • হাফেজ মোহাম্মদ সাঈদ - পাকিস্তানে থাকেন -জামাত-উদ-দাওয়ার আমির।[১৪] তবে মুম্বাই হামলার ব্যাপারে তাঁর জড়িত থাকার জন্য অস্বীকার করে বলেন, আমি লস্করের প্রধান নাই।[১৫]
  • আবদুল রেহমান মক্কী - পাকিস্তানে থাকেন। এই গোষ্টীর দ্বিতীয় শীর্ষ নেতা। সাঈদের শ্যালক।[১৬] মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তাঁকে ধরিয়ে দিতে পারলে কিংবা অবস্থান বলতে পারলে ২ মিলিয়ন ডলার পুরস্কার ঘোষণা করেছে।[১৭][১৮]
  • জাকিউর রহমান লকভি - পাকিস্তানি সামরিক বাহিনীর হেফাজতে আটক আছেন।[১৯] লস্করের সিনিয়র নেতা। তাঁর বিরুদ্ধে মুম্বাই হামলায় জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে।[২০][২১]
  • ইউসুফ মুজাম্মিল - অপর সিনিয়র নেতা। মুম্বাই হামলায় আজমল কাসাভের সাথে বন্ধুকযুদ্ধে লিপ্ত হন। তিনিও পাক-সামরিক বাহিনীর হেফাজতে আটক আছেন।[২০]
  • জাফর শাহ - পাকিস্তানে আটক আছেন। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বলেছে তিনি আইএসআই’র সাথে লস্করের লিয়াজোঁ করে মুম্বাইয়ে, হামলায় মুখ্য ভূমিকা পালন করেন।[২২][২৩]
  • মুহাম্মদ আশরাফ - লস্করের প্রধান অর্থনৈতিক কর্মকর্তা, মুম্বাই হামলায় তাঁরও জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে। জাতিসংঘের তালিকায় সন্ত্রাসবাদের পৃষ্ঠপোষক হিসেবে তাঁর স্থান রয়েছে।[২৪] এর আগের জিও টিভি এক প্রতিবেদনে বলে- ছয় বছর আগে আশরাফ মারাত্মক ভাবে আহত হয়ে হাসপাতালে মারা গেছেন।[২৫][২৬]
  • মাহমুদ মোহাম্মদ আহমেদ বাহাজিক - লস্করের সৌদি আরব শাখার নেতা এবং অন্যতম অর্থ যোগানদাতা। তাঁর নামও জাতিসংঘের সন্ত্রাসবাদ পৃষ্ঠপোষকের তালিকায় রয়েছে।[২৪][২৬]
  • নাসের জাভেদ - কাশ্মীরে অভিযান পরিচালনাকারীদের মধ্যে সিনিয়র। [২৭] যুক্তরাজ্যে বোমা হামলার সাথে তাঁর যোগসুত্র রয়েছে এবং নিষিদ্ধ।"[২৮]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; reuters20090706 নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  2. "Lashkar-e-Toiba 'Army of the Pure'"। South Asia Terrorism Portal। ২০০১। সংগৃহীত ২০০৯-০১-২১ 
  3. Kurth Cronin, Audrey; Huda Aden, Adam Frost, and Benjamin Jones (৬ ফেব্রুয়ারি ২০০৪)। Foreign Terrorist Organizations (PDF)। Congressional Research Service। সংগৃহীত ২০০৯-০৩-০৪  |coauthors= প্যারামিটার অজানা, উপেক্ষা করুন (সাহায্য)
  4. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; Harvey নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  5. Jayshree Bajoria (১৪ জানুয়ারি ২০১০)। "Profile: Lashkar-e-Taiba (Army of the Pure) (a.k.a. Lashkar e-Tayyiba, Lashkar e-Toiba; Lashkar-i-Taiba)"। Council on Foreign Relations। সংগৃহীত ২০১০-০৫-১১ 
  6. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; bbcprofile নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  7. Basset, Donna (২০১২)। Peter Chalk, সম্পাদক। Encyclopedia of Terrorism। ABC-CLIO। পৃ: ১২। আইএসবিএন 978-0313308956 
  8. "Deadly Embrace: Pakistan, America and the Future of Global Jihad"। Brookings.edu। সংগৃহীত ২০১২-১০-২৮ 
  9. "Deadly Embrace: Pakistan, America and the Future of Global Jihad, transcript"। Brookings.edu। সংগৃহীত ২০১২-১০-২৮ 
  10. "The 9/11 Attacks’ Spiritual Father"। Brookings.edu। সংগৃহীত ২০১২-১০-২৮ 
  11. "The 15 faces of terror"। Rediff.com। সংগৃহীত ২০১২-১০-২৮ 
  12. "Who is Lashkar-e-Tayiba"Dawn। ৩ ডিসেম্বর ২০০৮। সংগৃহীত ২০০৮-১২-০৩ [অকার্যকর সংযোগ]
  13. Ashley J. Tellis (১১ মার্চ ২০১০)। "Bad Company – Lashkar-e-Tayyiba and the Growing Ambition of Islamist Mujahidein in Pakistan" (PDF)। Carnegie Endowment for International Peace। "The group's earliest operations were focused on the Kunar and Paktia provinces in Afghanistan, where LeT had set up several training camps in support of the jihad against the Soviet occupation." 
  14. "We didn't attack Mumbai, says Lashkar chief"The Times of India। ৫ ডিসেম্বর ২০০৮। সংগৃহীত ২০১২-০৫-২৫ 
  15. "Jamat-ud-Dawah, Hafiz Saeed, Zaki-ur-Rehman, Haji Ashraf added to UN terror list | English"The Nation। Pakistan। ১১ ডিসেম্বর ২০০৮। সংগৃহীত ২০১১-১২-১৭ 
  16. Parashar, Sachin (৫ এপ্রিল ২০১২)। "Hafiz Saeed's brother-in-law Abdul Rehman Makki is a conduit between Lashkar-e-Taiba and Taliban"The Times of India। সংগৃহীত ২৫ মে ২০১২ 
  17. "Hafiz Abdul Rahman Makki"Articles। Rewards for Justice Website। আসল থেকে ২৫ মে ২০১২-এ আর্কাইভ করা। সংগৃহীত ২৫ মে ২০১২ 
  18. Walsh, Declan (৩ এপ্রিল ২০১২)। "U.S. Offers $10 Million Reward for Pakistani Militant Tied to Mumbai Attacks"The New York Times 
  19. Rondeaux, Candace (৯ ডিসেম্বর ২০০৮)। "Pakistan Arrests Suspected Mastermind of Mumbai Attacks"The Washington Post। সংগৃহীত ২০১১-১২-১৭ 
  20. "Lakhvi, Yusuf of LeT planned Mumbai attack"। Associated Press। ৪ ডিসেম্বর ২০০৮। সংগৃহীত ২০০৮-১২-০৫ 
  21. Buncombe, Andrew (৮ ডিসেম্বর ২০০৮)। "'Uncle' named as Mumbai terror conspirator"The Independent (London)। সংগৃহীত ২০০৯-০১-২৭ 
  22. Schmitt, Eric (৭ ডিসেম্বর ২০০৮)। "Pakistan's Spies Aided Group Tied to Mumbai Siege, Eric Schmitt, et al., NYT, 07-Dec-2008"The New York Times (Mumbai (India);Pakistan)। সংগৃহীত ২০১১-১২-১৭ 
  23. Oppel, Richard A. (৩১ ডিসেম্বর ২০০৮)। "Pakistani Militants Admit Role in Siege, Official Says, Richard Oppel, Jr., NYT, 2008-12-31"The New York Times (India;Pakistan)। সংগৃহীত ২০১১-১২-১৭ 
  24. Worth, Robert F. (১০ ডিসেম্বর ২০০৮)। "Indian Police Name 2 More Men as Trainers and Supervisors of Mumbai Attackers"The New York Times। সংগৃহীত ২০০৯-০১-২২ 
  25. Vinayak, Ramesh (১২ ডিসেম্বর ২০০৮)। "One of four LeT leaders banned by the UN is long dead"India Today। সংগৃহীত ২০০৯-০১-২২ [অকার্যকর সংযোগ]
  26. "Four Pakistani militants added to UN terrorism sanctions list"। UN News Centre। ১১ ডিসেম্বর ২০০৮। সংগৃহীত ২০০৯-০১-২২ 
  27. Slack, James; Boden, Nicola (৬ মে ২০০৯)। "Jacqui Smith's latest disaster: Banned U.S. shock jock never even tried to visit Britain – now he's suing"Daily Mail (London)। সংগৃহীত ২০০৯-০৫-০৬ 
  28. "Home Office name hate promoters excluded from the UK"Press Release। UK Home Office। ৫.৫.৯। সংগৃহীত ২০০৯-০৫-০৬ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

টেমপ্লেট:Al-Qaeda direct franchises