গ্রেম বিয়ার্ড

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
গ্রেম বিয়ার্ড
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামগ্রেম রবার্ট বিয়ার্ড
জন্ম (1950-08-19) ১৯ আগস্ট ১৯৫০ (বয়স ৬৯)
অবার্ন, নিউ সাউথ ওয়েলস, অস্ট্রেলিয়া
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি মিডিয়াম
ডানহাতি অফ ব্রেক
ভূমিকাঅল-রাউন্ডার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ৩০৮)
২৭ ফেব্রুয়ারি ১৯৮০ বনাম পাকিস্তান
শেষ টেস্ট১৮ মার্চ ১৯৮০ বনাম পাকিস্তান
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ৬৫)
৩১ জানুয়ারি ১৯৮১ বনাম নিউজিল্যান্ড
শেষ ওডিআই১ ফেব্রুয়ারি ১৯৮১ বনাম নিউজিল্যান্ড
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯৭৫–১৯৮২নিউ সাউথ ওয়েলস
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ৫৪ ১৯
রানের সংখ্যা ১১৪ - ১৪৪১ ৬১
ব্যাটিং গড় ২২.৮০ - ২৩.৬২ ১০.১৬
১০০/৫০ -/- -/- -/১১ -/-
সর্বোচ্চ রান ৪৯ - ৭৫ ২৩
বল করেছে ২৫৯ ১১২ ১০৩২১ ৮৮৮
উইকেট ১২৫ ২৫
বোলিং গড় ১০৯.০০ ১৭.৫০ ২৮.১৯ ২৫.৯৬
ইনিংসে ৫ উইকেট -
ম্যাচে ১০ উইকেট -
সেরা বোলিং ১/২৬ ২/২০ ৫/৩৩ ৩/৩৩
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং -/– -/– ২২/– ৭/–
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ১৬ এপ্রিল ২০২০

গ্রেম রবার্ট বিয়ার্ড (ইংরেজি: Graeme Beard; জন্ম: ১৯ আগস্ট, ১৯৫০) নিউ সাউথ ওয়েলসের অবার্ন এলাকায় জন্মগ্রহণকারী সাবেক অস্ট্রেলীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৮০ থেকে ১৯৮১ সময়কালে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটে নিউ সাউথ ওয়েলস দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ অল-রাউন্ডার হিসেবে খেলতেন। ডানহাতে ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি ডানহাতে মিডিয়াম কিংবা অফ ব্রেক বোলিংয়ে পারদর্শী ছিলেন গ্রেম বিয়ার্ড

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৯৭৫-৭৬ মৌসুম থেকে ১৯৮১-৮২ মৌসুম পর্যন্ত গ্রেম বিয়ার্ডের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। সহজাত ও কার্যকরী অল-রাউন্ডার হিসেবে পরিচিতি লাভ করেন। মাঝারিসারির ব্যাটসম্যান হিসেবে মিডিয়াম পেস কিংবা অফ স্পিন বোলিংয়ে দক্ষ ছিলেন।

১৯৭৫ সালে নিউ সাউথ ওয়েলসের সদস্যরূপে সফররত ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান একাদশের বিপক্ষে খেলার মাধ্যমে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে গ্রেম বিয়ার্ডের। ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলতে নেমে উভয় ইনিংসে শূন্য রানে বিদেয় নেন। পরবর্তীতে ১৯৭৯-৮০ মৌসুমে তিনি নিজেকে অল-রাউন্ডার হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে সক্ষম হন। এ পর্যায়ে তিনি অফ স্পিন ও মিডিয়াম পেস বোলিং করতেন।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে তিনটিমাত্র টেস্ট ও দুইটিমাত্র একদিনের আন্তর্জাতিকে অংশগ্রহণ করেছেন গ্রেম বিয়ার্ড। সবগুলো টেস্টই পাকিস্তানের বিপক্ষে খেলেছিলেন। ২৭ ফেব্রুয়ারি, ১৯৮০ তারিখে করাচীতে স্বাগতিক পাকিস্তান দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। ১৮ মার্চ, ১৯৮০ তারিখে লাহোরে একই দলের বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন তিনি।

চমৎকার শেফিল্ড শিল্ড মৌসুম অতিবাহিত করা ও সুন্দর ক্রীড়াশৈলী প্রদর্শনের স্বীকৃতিস্বরূপ ১৯৭৯-৮০ মৌসুমে পাকিস্তান গমনার্থে তাকে অস্ট্রেলিয়া দলের সদস্য করা হয়। তন্মধ্যে, লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত সিরিজের তৃতীয় টেস্টে ৩৯ ও ৪৯ রান সংগ্রহের পাশাপাশি ১/২৬ বোলিং পরিসংখ্যান গড়েছিলেন। ১১৪ রান খরচ করে একটিমাত্র উইকেট পেয়েছিলেন।

বিস্ময়করভাবে ১৯৮০-৮১ মৌসুমে বিশ্ব সিরিজ কাপ প্রতিযোগিতায় অস্ট্রেলিয়ার একদিনের দলে খেলার জন্যে আমন্ত্রিত হন। চূড়ান্ত দুই খেলায় তার অংশগ্রহণ ঘটে। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় খেলাটিতে কুখ্যাত আন্ডারআর্ম বোলিংয়ের ঘটনা অবলোকন করেছিলেন। ১৯৮১ সালে অ্যাশেজ সিরিজ খেলার উদ্দেশ্যে ইংল্যান্ড গমন করেন। তবে, এ সফরে তিনি কোন টেস্টে অংশগ্রহণের সুযোগ পাননি।

অবসর[সম্পাদনা]

১৯৮১-৮২ মৌসুমে গ্রেম বিয়ার্ড প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট থেকে অবসর গ্রহণ করেন। এরপর তিনি অস্ট্রেলিয়ান ওয়ার্কার্স ইউনিয়নের পক্ষে শিক্ষকতা পেশায় নিয়োজিত থাকেন।[১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]