ক্লদ জেনিংস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ক্লদ জেনিংস
ক্লদ জেনিংস.jpg
১৯১২ সালের সংগৃহীত স্থিরচিত্রে ক্লদ জেনিংস
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামক্লদ ব্যারোস জেনিংস
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরন
ভূমিকাউইকেট-রক্ষক
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ১০৩)
২৭ মে ১৯১২ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা
শেষ টেস্ট১৯ আগস্ট ১৯১২ বনাম ইংল্যান্ড
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ৬০
রানের সংখ্যা ১০৭ ২৪৫৩
ব্যাটিং গড় ১৭.৮৩ ২৫.৫৫
১০০/৫০ ০/০ ১/১৬
সর্বোচ্চ রান ৩২ ১২৩
বল করেছে ১৮
উইকেট
বোলিং গড়
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৫/০ ৩৮/৩
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ২২ ডিসেম্বর ২০১৮

ক্লদ ব্যারোস জেনিংস (ইংরেজি: Claude Jennings; জন্ম: ৫ জুন, ১৮৮৪ - মৃত্যু: ২০ জুন, ১৯৫০) মেলবোর্নের সেন্ট কিল্ডায় জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা অস্ট্রেলীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ছিলেন।[১] অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯১২ সময়কালে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন। ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটে কুইন্সল্যান্ড বুলসসাউথ অস্ট্রেলিয়া দলের প্রতিনিধিত্ব করেছেন ক্লদ জেনিংস। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলতেন।

ঘরোয়া ক্রিকেট[সম্পাদনা]

ক্লদ জেনিংস ডানহাতি উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলার জগতে প্রবেশ করলেও মাঝে-মধ্যেই দলের প্রয়োজনে উইকেট-রক্ষণে এগিয়ে আসতেন। অস্ট্রেলীয় ঘরোয়া ক্রিকেটে মাত্র একটি সেঞ্চুরির সন্ধান পেয়েছিলেন। প্রথম-শ্রেণীর খেলাগুলোয় তার ব্যাটিং গড় ২০-এরও কম ছিল।

টেস্ট ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৯১২ সালে ইংল্যান্ডে ত্রি-দেশীয় প্রতিযোগিতায় আকস্মিকভাবে ক্লদ জেনিংসের অন্তর্ভূক্তি ঘটে। দল নির্বাচকমণ্ডলীর সাথে তখন ক্লেম হিল, ভিক্টর ট্রাম্পারসহ ছয়জন শীর্ষস্থানীয় খেলোয়াড় আর্থিক সংঘাতে জড়িয়ে পড়েছিলেন।

ঐ সফরে ছয়টি টেস্টের সবকটিতে অংশ নিয়েছিলেন। তিনটি ছিল স্বাগতিক ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ও বাদ-বাকী তিনটি দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে। আট ইনিংসে অংশ নিয়ে দুইটিতে অপরাজিত ছিলেন। সর্বমোট ১০৭ রান তুলেন তিনি। তন্মধ্যে, ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্রাফোর্ডে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে নিজস্ব প্রথম টেস্টে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ৩২ রান তুলেছিলেন। তবে, টেস্টগুলোয় তিনি উইকেট-রক্ষণের দায়িত্ব পালন করেননি। পূর্ণাঙ্গ সফরে ১০৩৭ রান তুলতে সমর্থ হয়েছিলেন। ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ করেন ৮২ রান।

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

১৯১২ সালের ইংল্যান্ড সফর থেকে চলে আসার পর প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট থেকে অবসর গ্রহণ করেন ও ব্যবসায় প্রশাসনে জড়িতে হন। দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়ায় ব্রিটিশ বাণিজ্য প্রতিনিধি ও অ্যাডিলেড চেম্বার অব কমার্সের সচিব হিসেবে নিযুক্তি পান।

২০ জুন, ১৯৫০ তারিখে দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়ার অ্যাডিলেডে ৬৬ বছর বয়সে ক্লদ জেনিংসের দেহাবসান ঘটে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Australia – Test Batting Averages"। ESPNCricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]