ক্রিস ইভানস (অভিনেতা)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ক্রিস ইভানস
Chris Evans
Chris Evans SDCC 2014.jpg
২০১৪ সান ডিয়াগো কমিক-কন অনুষ্ঠানে ইভানস
জন্ম ক্রিস্টোফার রবার্ট ইভানস
(১৯৮১-০৬-১৩) জুন ১৩, ১৯৮১ (বয়স ৩৫)
বস্টন, ম্যাসাচুয়েটস, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
বাসস্থান লস এঞ্জেলস, ক্যালিফোর্নিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
শিক্ষা লিঙ্কন-সাডবেরি রিজিওন্যাল হাই স্কুল
শিক্ষা প্রতিষ্ঠান লি স্ট্র্যাবার্গ থিয়েটার অ্যান্ড ফিল্ম ইনস্টিটিউট
পেশা অভিনেতা
কার্যকাল ১৯৯৯-বর্তমান
আত্মীয় স্কট ইভানস (ভাই)
মাইক ক্যাপুয়ানো (মামা)

ক্রিস্টোফার রবার্ট "ক্রিস" ইভানস (ইংরেজি: Christopher Robert "Chris" Evans) (জন্ম: ১৩ জুন, ১৯৮১)[১] হলেন একজন আমেরিকান অভিনেতা ও চলচ্চিত্রকার। ইভানস মার্ভেল কমিকসের মার্ভেল সিনেম্যাটিক ইউনিভার্সে ক্যাপ্টেন আমেরিকা এবং ফ্যান্টাস্টিক ফোর২০০৭ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত সেটির সিকোয়েলে হিউম্যান টর্চ নামে দুটি সুপারহিরো চরিত্রে অভিনয়ের জন্য পরিচিত।

২০০০ সালে অপোজিট সেক্স নামে একটি টেলিভিশন ধারাবাহিকে অভিনয়ের মাধ্যমে তাঁর কর্মজীবনের সূত্রপাত ঘটেছিল। এরপর তিনি নট অ্যানাদার টিন মুভি, সানশাইন, স্কট পিলগ্রিম ভার্সেস দ্য ওয়ার্ল্ড, স্নোপিয়ার্সার প্রভৃতি একাধিক ছবিতে অভিনয় করেন। তাঁর অভিনীত গিফটেড ছবিটিও মুক্তি পেতে চলেছে। ২০১৫ সালে ইভানস পরিচালিত প্রথম ছবি বিফোর উই গো মুক্তি পায়। এই ড্রামা চলচ্চিত্রটিতে তিনি নিজেও অভিনয় করেছিলেন।

ক্রিস ইভানস

প্রথম জীবন[সম্পাদনা]

ইভানসের জন্ম বস্টনে[২] তাঁর ছেলেবেলা কেটেছিল সাডবেরি শহরে।[৩] তাঁর মা লিসা ইভানস (বিবাহপূর্ব নাম লিসা ক্যাপুয়ানো) হলেন কনকর্ড ইউথ থিয়েটারের একজন শৈল্পিক পরিচালক[৪][৫]এবং বাবা রবার্ট ইভানস হলেন একজন দন্তচিকিৎসক।[৬]

ক্রিস ইভানসের দুটি বোন ও একটি ভাই রয়েছে। ইভানসের বোন শার্লি[৬] নিউ ইয়র্ক ইউনিভার্সিটির অধীনস্থ টিচ স্কুল অফ আর্টের স্নাতক এবং লিঙ্কন-সাডবেরি রিজিওনাল হাই স্কুলের একজন নাটক ও ইংরেজি শিক্ষিকা।[৪][৭] অপর বোনের নাম শান্না।[৬] ইভানসের ছোটোভাই[৮] স্কট ইভানস[৬] এবিসি-র ওয়ান লাইফ টু লিভ সোপ অপেরায় অভিনয় করেন। তাঁদের মামা মাইক ক্যাপুয়ানো একই ম্যাসাচুয়েটস কংগ্রেসননাল ডিস্ট্রিক্ট থেকে প্রতিনিধিত্ব করেন। এই পদটিতে আগে প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন টিপ ও’নেইল[৯] ইভানসের মা ছিলেন আধা ইতালীয় ও আধা আইরিশ বংশোদ্ভূত।[৯][১০][১১] ইভানস ও তাঁর ভাইবোনেরা ক্যাথলিক শিক্ষায় মানুষ হয়েছিলেন।[১০][১১]

ইভানস লিঙ্কন-সাডবেরি রিজিওনাল হাই স্কুল থেকে স্নাতক হন।[৩] এরপর তিনি নিউ ইয়র্ক সিটিতে চলে যান এবং স্ট্র্যাসবার্গ থিয়েটার অ্যান্ড ফিল্ম ইনস্টিটিউটে ভরতি হন।[১২]

কেরিয়ার[সম্পাদনা]

হাইস্কুলে জুনিয়র বর্ষ সম্পূর্ণ করার পর ইভানস ব্রুকলিন শহরে চলে আসেন। এখানে তিন একটি কাস্টিং এজেন্সিতে ভর্তি হন এবং গ্রীষ্মকালীন অভিনয় কর্মসূচিতে অংশ নেন। এই গ্রীষ্মেই তাঁর সঙ্গে পরিচয় হয় এক এজেন্টের যিনি হাইস্কুল সম্পূর্ণ করার পর তাঁকে অভিনয় জগতে আসতে সাহায্য করেন। ইভানস বস্টন পাবলিকদ্য ফিউজিটিভ নামের দুটি টেলিভিশন ধারাবাহিকে ছোটখাট ভূমিকায় অভিনয় করেন। এরপর অপোজিট সেক্স নামে আর একটি টিভি ধারাবাহিকে অভিনয় করেন। তারপরই নট অ্যানাদার টিন মুভি চলচ্চিত্রে জ্যাক ওয়েলারের ভূমিকায় অভিনয় করে সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

নট অ্যানাদার টিন মুভি ছবির কাজ শেষ হয়ে গেলে ইভানস দ্য পারফেক্ট স্কোরসেলুলার ছবিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় অভিনয় করার সুযোগ পান। এই সময় এক্সিকিউটিভ প্রোডিউসার ডেভিড জনসনের সঙ্গে কয়েকটি স্বাধীন চলচ্চিত্রে অভিনয় করলে দর্শকরা ইভানসের চরিত্রের একটি ভিন্নতর দিক আবিষ্কার করেন। লন্ডন ছবিতে ইভানস ড্রাগের নেশায় আচ্ছন্ন সম্পর্কজনিত সমস্যায় জেরবার এক যুবকের ভূমিকায় অভিনয় করেন। ২০০৫ সালে একটি কমিক বই অবলম্বনে নির্মিত ছবি ফ্যান্টাসটিক ফোর-হিউম্যান টর্চ চরিত্রে অভিনয়ের সুযোগ পান ইভানস। ২০০৫ ইয়াং হলিউড অ্যাওয়ার্ডসে 'মেল সুপারস্টার অফ টুমরো' সম্মান পান ইভানস। ২০০৭ সালে ফ্যান্টাসটিক ফোর: রাইজ অফ দ্য সিলভার সার্ফার ছবিতেও জেরেমি স্টর্ম/হিউম্যান টর্চের চরিত্রে অভিনয় করেন। এই বছরই ড্যানি বয়েল পরিচালিত কল্পবিজ্ঞান চলচ্চিত্র সানশাইন-এ এক মহাকাশচারী ইঞ্জিনিয়ারের চরিত্রে দেখা যায় তাঁকে।

২০০৮ সালে ইভানস কিয়ানু রিভস-এর সঙ্গে স্ট্রিট কিংস ছবিতে অভিনয় করেন। এই বছরই ব্রিস ডালাস হাওয়ার্ড, এলেন বারস্টিনডেভিড স্ট্র্যাথাইর্ন-এর সঙ্গে অভিনয় করেন দ্য লস অফ আ টিয়ারড্রপ ডায়মন্ড ছবিতে। এই ছবিটি টেনেসি উইলিয়াম রচিত একটি নাটক অবলম্বনে নির্মিত হয়। ২০০৯ সালে কল্পবিজ্ঞান থ্রিলার পুশ[১৩] ছবিতে ডাকোটা ফ্যানিংক্যামিলা বেলের সঙ্গে দেখা যায় ইভানসকে। ইভানস নিজের লড়াই দৃশ্যগুলি নিজেই অভিনয় করেন। যেগুলি বেশ কয়েক সপ্তাহ ধরে চলচ্চিত্রায়িত হয়।[১৪] পুশ ছবিতে তাঁর চরিত্রটি নিয়ে দি অ্যাডভোকেট-এ তাঁর সম্পর্কে একটি নিবন্ধ প্রকাশিত হয়।[১৫]

ফিল্মোগ্রাফি[সম্পাদনা]

Year Film Role Other notes
2000 The Newcomers Judd
2001 Not Another Teen Movie Jake Wyler Main character
2002 Eastwick Adam TV film
2003 The Paper Boy Ben
2004 The Perfect Score Kyle
Cellular Ryan
2005 The Orphan King Seth King
Fierce People Bryce
Fantastic Four Johnny Storm / Human Torch Nominated-MTV Movie Award for Best On-Screen Team
London Syd
2007 TMNT Casey Jones Voice
Sunshine Mace
Fantastic Four: Rise of the Silver Surfer Johnny Storm / Human Torch Nominated-Teen Choice Award for Choice Movie Actor: Action Adventure
Nominated-Teen Choice Award for Choice Movie: Rumble
The Nanny Diaries Harvard Hottie
Battle for Terra Stewart Stanton Voice
2008 Street Kings Detective Paul Diskant
The Loss of a Teardrop Diamond Jimmy
2009 Push Nick Gant Main character
2010 Scott Pilgrim vs. the World Lucas Lee filming
Kill Your Darlings Jack Kerouac pre-production
Year Television appearance Role Other notes
2000 Opposite Sex Cary Baston Eight episodes, main character
The Fugitive Zack "Guilt"
2001 Boston Public Neil Mavromates "Chapter Nine"
2003 Skin Brian "Pilot"
2008 Robot Chicken various Voice, "Monstourage"

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Today in History"The Guardian (London, UK)। Associated Press। জুন ১৩, ২০০৯। ডিসেম্বর ২৬, ২০১৩-এ মূল থেকে আর্কাইভ। সংগৃহীত জানুয়ারি ২৩, ২০০৮। "Actor Chris Evans is 28." 
  2. Itzkoff, Dave (জুলাই ৮, ২০১১)। "Chris Evans in 'Captain America: The First Avenger'"The New York Times 
  3. ৩.০ ৩.১ Pai, Tanya. "America's Most Wanted"Boston। জুন ২০১১। আসল থেকে জুলাই ৫, ২০১১-এ আর্কাইভ করা। সংগৃহীত এপ্রিল ১৬, ২০১৩ 
  4. ৪.০ ৪.১ Marotta, Terry (জুলাই ১৯, ২০০৭)। "Grease is the word"। Gatehouse News Service via Wicked Local Sudbury। এপ্রিল ৩, ২০১৪-এ মূল থেকে আর্কাইভ। সংগৃহীত জুলাই ১৯, ২০১০ 
  5. Cantrell, Cindy (মার্চ ৯, ২০১৪)। "Chris Evans doesn’t forget his Concord roots"The Boston Globe। সংগৃহীত এপ্রিল ৬, ২০১৪ 
  6. ৬.০ ৬.১ ৬.২ ৬.৩ Keck, William (সেপ্টেম্বর ৯, ২০০৪)। "Chris Evans' career ready to sizzle"USA Today। নভেম্বর ৬, ২০১৩-এ মূল থেকে আর্কাইভ। সংগৃহীত ডিসেম্বর ১০, ২০০৭। "...Evans' siblings, Scott, Carly and Shanna." 
  7. "Carly is a teacher at lsrhs"। LSRHS। সংগৃহীত অক্টোবর ১৭, ২০১৪ 
  8. Krebs, Sean (ডিসেম্বর ১৪, ২০০৯)। "Behind The Scenes: The Scott Evans Cover Shoot"Instinctআসল থেকে জুলাই ২৬, ২০১১-এ আর্কাইভ করা। সংগৃহীত ডিসেম্বর ১৬, ২০০৯ 
  9. ৯.০ ৯.১ Stickgold, Emma (জুলাই ২১, ২০১০)। "Rita Capuano; campaigned with vigor for husband, son; at 90"The Boston Globeআসল থেকে নভেম্বর ৫, ২০১৩-এ আর্কাইভ করা। সংগৃহীত জুলাই ২২, ২০১০  (সদস্যতা প্রয়োজনীয়)
  10. ১০.০ ১০.১ "Meet curious Chris"Deccan Herald। মে ২৭, ২০০৭। আসল থেকে সেপ্টেম্বর ২৯, ২০০৭-এ আর্কাইভ করা। সংগৃহীত জুন ৮, ২০০৯ 
  11. ১১.০ ১১.১ "Sunshine – Chris Evans interview"। IndieLondon.co.uk। অক্টোবর ২৯, ২০১৩-এ মূল থেকে আর্কাইভ। সংগৃহীত জুন ৮, ২০০৯ 
  12. Gardner, Jessica (২০১১-০৯-২১)। "Chris Evans Takes On a New Fight in 'Puncture'"। Backstage। সংগৃহীত ২০১৬-০৪-১২ 
  13. "Chris Evans in PUSH, Video Clip"। সংগৃহীত ২০০৯-০৬-০৮ 
  14. "Push Comes to Shove for Chris Evans"Parade (magazine)। ফেব্রুয়ারি ৪, ২০০৯। সংগৃহীত ২০০৯-০৫-০৩ 
  15. "A-List: Chris Evans"। সংগৃহীত ২০০৯-০৬-০৮ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

টেমপ্লেট:Wikimedia

টেমপ্লেট:MTV Movie Award for Best Fight