কলিন স্টুয়ার্ট

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
কলিন স্টুয়ার্ট
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামকলিন এলসওয়ার্থ লরি স্টুয়ার্ট
জন্ম২৮ সেপ্টেম্বর, ১৯৭৩
জর্জটাউন, গায়ানা
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি ফাস্ট-মিডিয়াম
ভূমিকাবোলার, রেফারি
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ২৩৮)
২৬ ডিসেম্বর ২০০০ বনাম অস্ট্রেলিয়া
শেষ টেস্ট২১ নভেম্বর ২০০১ বনাম শ্রীলঙ্কা
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ১০৫)
১৭ জানুয়ারি ২০০১ বনাম অস্ট্রেলিয়া
শেষ ওডিআই১৯ আগস্ট ২০০১ বনাম কেনিয়া
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯৯৪/৯৫ - ২০০২/০৩গায়ানা
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ৫২ ২০
রানের সংখ্যা ২৪ ৩৫২ ৩১
ব্যাটিং গড় ৩.৪২ - ৭.৪৮ ৫.১৬
১০০/৫০ -/- -/- -/- -/-
সর্বোচ্চ রান ১২* ৩* ৩৩ ১৪
বল করেছে ১১১৬ ২৫৮ ৭৮৫১ ৮৪০
উইকেট ২০ ১৪৪ ২৩
বোলিং গড় ৩১.৩৯ ২৫.৬২ ৩০.০৯ ২৬.৯৫
ইনিংসে ৫ উইকেট -
ম্যাচে ১০ উইকেট - - - -
সেরা বোলিং ৩/৩৩ ৫/৪৪ ৫/৫৮ ৫/৪৪
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ২/- ১/- ১৮/- ২/-
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ৭ সেপ্টেম্বর ২০২০

কলিন এলসওয়ার্থ লরি স্টুয়ার্ট (ইংরেজি: Colin Stuart; জন্ম: ২৮ সেপ্টেম্বর, ১৯৭৩) জর্জটাউন এলাকায় জন্মগ্রহণকারী গায়ানীয় বংশোদ্ভূত রেফারি ও সাবেক ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ২০০০-এর দশকের সূচনালগ্নে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ক্রিকেটে গায়ানা দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি ফাস্ট-মিডিয়াম বোলার হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, ডানহাতে নিচেরসারিতে ব্যাটিং করতেন কলিন স্টুয়ার্ট

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

১৯৯৪-৯৫ মৌসুম থেকে ২০০২-০৩ মৌসুম পর্যন্ত কলিন স্টুয়ার্টের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। ডানহাতি ব্যাটসম্যান কলিন স্টুয়ার্ট ছয় টেস্টে অংশ নিয়ে ৩.৪২ গড়ে রান তুলেছেন। এছাড়াও, ডানহাতে মিডিয়াম-ফাস্ট বোলিং করে ৩১.৩৯ গড়ে বিশ উইকেট সংগ্রহ করতে পেরেছেন।

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে ছয়টিমাত্র টেস্ট ও পাঁচটিমাত্র একদিনের আন্তর্জাতিকে অংশগ্রহণ করেছেন কলিন স্টুয়ার্ট। ২৬ ডিসেম্বর, ২০০০ তারিখে মেলবোর্নে স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়া দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। ২১ নভেম্বর, ২০০১ তারিখে ক্যান্ডিতে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কা দলের বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন তিনি।

টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসের অনাকাঙ্খিত একমাত্র ঘটনার সাথে স্বীয় নামকে যুক্ত করেছেন তিনি। এক ওভার সম্পন্ন করতে ব্যবহৃত তিনজন বোলারের অন্যতম ছিলেন। ২০০১ সালে ক্যান্ডির অ্যাসগিরিয়া স্টেডিয়ামে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে খেলাকালীন এ ঘটনা ঘটে। নিজস্ব তৃতীয় ওভারে মারভিন ডিলন দুই বল করে পেটের ব্যথায় আক্রান্ত হলে খেলা থেকে সড়ে আসেন। কলিন স্টুয়ার্ট তার স্থলে বোলিংয়ে নামেন। তার প্রথম তিন বলের দুইটি উঁচুমানের দ্রুতগতিসম্পন্ন ফুল-টস বোলিং করলে আম্পায়ার জন হ্যাম্পশায়ার শ্রীলঙ্কার ইনিংসে তাকে বোলিং করা থেকে বিরত রাখেন। এরপর, ক্রিস গেইল শেষ তিন বল করে ওভার শেষ করেন।[১]

পরিসংখ্যান[সম্পাদনা]

# পরসংখ্যান খেলা প্রতিপক্ষ মাঠ শহর দেশ সাল
৫/৪৪  কেনিয়া সিম্বা ইউনিয়ন গ্রাউন্ড নাইরোবি কেনিয়া ২০০১

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Frindall, Bill (২০০৯)। Ask BeardersBBC Books। পৃষ্ঠা 138আইএসবিএন 978-1-84607-880-4 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]