রবিন বাইনো

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
রবিন বাইনো
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামমাইকেল রবিন বাইনো
জন্ম (1941-02-23) ২৩ ফেব্রুয়ারি ১৯৪১ (বয়স ৭৮)
ব্ল্যাক রক, সেন্ট মাইকেল, বার্বাডোস
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনবামহাতি মিডিয়াম
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ৫৬
রানের সংখ্যা ১১১ ৩৫৭২
ব্যাটিং গড় ১৮.৫০ ৪১.০৫
১০০/৫০ -/- ৬/২০
সর্বোচ্চ রান ৪৮ ১৯০
বল করেছে ৩০ ৪৮৬
উইকেট
বোলিং গড় ৫.০০ ২৭.৩৩
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ১/৫ ২/৭
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৪/- ৪৫/-
উৎস: ক্রিকইনফো, ১১ মে ২০১৮

মাইকেল রবিন বাইনো (ইংরেজি: Robin Bynoe; জন্ম: ২৩ ফেব্রুয়ারি, ১৯৪১) বার্বাডোসের সেন্ট মাইকেলের ব্ল্যাক রক এলাকায় জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা সাবেক ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ছিলেন। ১৯৫৯ থেকে ১৯৬৭ সময়কালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে বার্বাডোসের প্রতিনিধিত্ব করেছেন। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, বামহাতে মিডিয়াম বোলিংয়ে পারদর্শীতা দেখিয়েছেন রবিন বাইনো

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

১৯৫৮-৫৯ মৌসুমে ভারত ও পাকিস্তান সফরে যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল। ঐ সফরে তিনি কেবলমাত্র দুইটি প্রথম শ্রেণীর খেলার সুযোগ পান।[১] ঐ সফরে খুব কমই সফলতা পেয়েছেন রবিন বাইনো। প্রথম-শ্রেণীর খেলায় ৭৬ রান তুলেন। ১৮ বছর বয়সে সিরিজের শেষ টেস্টে অভিষেক ঘটে তার। ২৬ মার্চ, ১৯৫৯ তারিখে স্বাগতিক পাকিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট অভিষেক ঘটে রবিন বাইনোর। এ সময় তিনি জেরি আলেকজান্ডারের সাথে ইনিংস উদ্বোধনে মাঠে নামেন। কিন্তু খেলায় তিনি মাত্র এক রান করে আউট হন ও একটি ক্যাচ নিয়েছিলেন।

১৯৫০-এর দশকের শেষার্ধ্বে ও ১৯৬০-এর দশকের শুরুর দিক পর্যন্ত প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে সীমিত আকারে অংশ নিয়েছেন। ১৯৬৩-৬৪ মৌসুমে বার্বাডোসের সদস্য থাকাবস্থায় জ্যামাইকার বিপক্ষে ১২০ রান তুলে প্রথমবারের মতো সেঞ্চুরির সন্ধান পান।[২]

পরবর্তীতে আরও দুইটি সেঞ্চুরি হাঁকালে ভারত সফরের জন্য দ্বিতীয়বারের মতো তার ডাক আসে। ১৯৬৬-৬৭ মৌসুমে ভারত সফরে প্রথম-শ্রেণীর খেলাগুলোয় আবারও সীমিত সাফল্য পান। তবে এবার তিন টেস্টের সিরিজের প্রত্যেকটিতে তার অংশগ্রহণ ছিল। কনরাড হান্টের সাথে ব্যাটিং উদ্বোধনে নামেন। তবে, মাদ্রাজের চিপকে অনুষ্ঠিত তৃতীয় টেস্টে কিছুটা ভূমিকা রাখতে সমর্থ হন। খেলায় তিনি ৪৮ ও ৩৬ রান তুলেন। এছাড়াও, খেলোয়াড়ী জীবনের একমাত্র টেস্ট উইকেট লাভ করেছিলেন।[৩]

এরপর থেকেই প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে কেবলমাত্র বার্বাডোসের পক্ষে খেলতে থাকেন। ১৯৭১-৭২ মৌসুমের শেল শীল্ড প্রতিযোগিতা পর্যন্ত তার খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। ঐ মৌসুমেই ত্রিনিদাদ ও টোবাগো দলের বিপক্ষে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ১৯০ রান তুলেন।[৪]

অবসর[সম্পাদনা]

১৯৬৯ সালে বার্বাডোস দলের সদস্যরূপে ইংল্যান্ড গমন করেন। কিন্তু, ঐ মৌসুমের শুরুতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের ইংল্যান্ড সফরে তাকে রাখা হয়নি।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "First-Class Matches Played by Robin Bynoe"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-০৩-২৪ 
  2. "Barbados v Jamaica, 1963–64"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-০৩-২৪ 
  3. "India v West Indies, 1966–67"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-০৩-২৪ 
  4. "Barbados v Trinidad and Tobago, Shell Shield, 1971–72"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-০৩-২৪ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]