ইয়ান লেগাট

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ইয়ান লেগাট
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামইয়ান ব্রুস লেগাট
জন্ম (1930-06-07) ৭ জুন ১৯৩০ (বয়স ৮৯)
ইনভারকার্গিল, নিউজিল্যান্ড
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি মিডিয়াম
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
একমাত্র টেস্ট
(ক্যাপ ৬৭)
১ জানুয়ারি ১৯৫৪ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ৪০
রানের সংখ্যা ১৩১৯
ব্যাটিং গড় ০.০০ ২০.২৯
১০০/৫০ ০/০ ২/৪
সর্বোচ্চ রান ১৪২*
বল করেছে ২৪ ৫০৩২
উইকেট ৫৮
বোলিং গড় - ৩৫.৪৬
ইনিংসে ৫ উইকেট -
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং - ৫/৬০
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ২/- ৩৭/-
উৎস: ক্রিকইনফো, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

ইয়ান ব্রুস লেগাট (ইংরেজি: Ian Leggat; জন্ম: ৭ জুন, ১৯৩০) ইনভারকার্গিল এলাকায় জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা নিউজিল্যান্ডীয় সাবেক আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে সেন্ট্রাল ডিস্ট্রিক্টসের প্রতিনিধিত্ব করেছেন। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি মিডিয়াম পেস বোলার হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, ডানহাতে নিচেরসারিতে ব্যাটিংয়ে পারদর্শী ছিলেন ইয়ান লেগাট

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

১৯৪৪ থেকে ১৯৪৮ সময়কালে নেলসন কলেজে অধ্যয়ন করেন। সেখানেই নিজের ক্রীড়াশৈলী তুলে ধরেন। ফলশ্রুতিতে বিদ্যালয়ের প্রথম একাদশে ক্রিকেট ও রাগবি পঞ্চদশ দলে খেলেন।[১] তার কাকাতো ভাই গর্ডন লেগাট নিউজিল্যান্ডের পক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অংশ নিয়েছেন।

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৯৫০-৫১ মৌসুম থেকে ১৯৬১-৬২ মৌসুম পর্যন্ত সেন্ট্রাল ডিস্ট্রিক্টসের পক্ষে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে প্রতিনিধিত্ব করেন। ১৯৫২-৫৩ মৌসুমে ডুনেডিনে ওতাগোর বিপক্ষে নবম উইকেট জুটিতে হ্যারি কেভকে সাথে নিয়ে ২৩৯ রান তুলেন। তন্মধ্যে, দশ নম্বের ব্যাটিংয়ে নেমে লেগাট অপরাজিত ছিলেন ১৪২ রানে।[২] এটিই প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে তার প্রথম অর্ধ-শতক ছিল। পরবর্তী অর্ধ-শতকটি করেছিলেন ১৯৫৮-৫৯ মৌসুমে। এ ইনিংসের কল্যাণে ১৯৫২-৫৩ মৌসুমে ৫৩.০০ গড়ে ২১২ রান তুলেছিলেন। এছাড়াও, ৪০.১৪ গড়ে ৭ উইকেট পেয়েছিলেন।

১৯৫৯-৬০ মৌসুমে ক্যান্টারবারির বিপক্ষে ১১৫ রানের মনোজ্ঞ শতরানের ইনিংস খেলেন। একই দলের বিপক্ষে ১৯৬১-৬২ মৌসুমে নিজস্ব সেরা বোলিং পরিসংখ্যান ৫/৬০ গড়েন।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে একটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণের সৌভাগ্য হয় তার। ঘরোয়া ক্রিকেটে সফলতার কারণে ১৯৫৩-৫৪ মৌসুমে নিউজিল্যান্ড দলের সাথে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে যান। ১ জানুয়ারি, ১৯৫৪ তারিখে স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজের তৃতীয় টেস্টে অভিষেক ঘটে ইয়ান লেগাটের। দূর্ভাগ্যবশতঃ একমাত্র ইনিংসটিতে শূন্য রানে বিদায় নেন। এছাড়াও, তিন ওভার বোলিং করে কোন উইকেটও লাভ করতে পারেননি ইয়ান লেগাট। তবে দুইটি ক্যাচ তালুবন্দী করেছিলেন।[৩] সমগ্র সফরে আটটি প্রথম-শ্রেণীর খেলায় অংশ নিয়ে ১২.৫৪ গড়ে ১৩৮ রান করেন তিনি। এছাড়াও, ৩৩.৬০ গড়ে ৫ উইকেট পেয়েছিলেন।

১৯৫৮-৫৯ মৌসুমে টেস্টের পূর্ব-প্রস্তুতিমূলক খেলায় সাউথ আইল্যান্ডের সদস্যরূপে খেলেন। নর্থ আইল্যান্ডের বিপক্ষে ৪/২১ ও ৩/২৭ লাভ করেন।[৪] তবে, ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ খেলার জন্য তাকে মনোনীত করা হয়নি।

হক কাপ[সম্পাদনা]

১৯৪৭ থেকে ১৯৬৯ সময়কালে নেলসন দলের পক্ষে হক কাপে অংশগ্রহণ করেছিলেন। এ প্রতিযোগিতায় সর্বাধিক ২,৩৩৬ রান তুলে শীর্ষস্থানে আরোহণ করছেন। এছাড়াও, ১৬৬ উইকেট নিয়ে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছেন।[৫]

২০১১ সালে হক কাপের শতবার্ষিকী উদযাপিত হয়। এতে তাকে ১১জন খেলোয়াড়ের অন্যতম হিসেবে নির্বাচিত করা হয়েছিল।[৬]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]