আফগানিস্তান ইসলামি রাষ্ট্র

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আফগানিস্তান ইসলামি রাষ্ট্র

دولت اسلامی افغانستان
দাওলাতে ইসলামিয়ে আফগানিস্তান
১৯৯২–২০০১
আফগানিস্তানের প্রতীক
প্রতীক
নীতিবাক্য: লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ, মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ
لا إله إلا الله محمد رسول الله
"আল্লাহ ছাড়া কোনো উপাস্য নেই, মুহাম্মদ আল্লাহর রাসুল"
সঙ্গীত: قلعه اسلام قلب اسیا
আফগানিস্তানের অবস্থান
রাজধানীকাবুল
(১৯৯২–১৯৯৬)
উত্তর আফগানিস্তান
(১৯৯৬–২০০১)
প্রচলিত ভাষাপশতু, দারি
ধর্ম
ইসলাম (সুন্নি)
সরকারইসলামি প্রজাতন্ত্র
রাষ্ট্রপতি 
• ১৯৯২
সিবগাতউল্লাহ মুজাদ্দেদি
• ১৯৯২–২০০১
বুরহানউদ্দিন রব্বানী
প্রধানমন্ত্রী 
• ১৯৯২
আবদুস সবুর ফরিদ কোহিস্তানি (প্রথম)
• ১৯৯৭–২০০১
রাভান ফারহাদি (শেষ)
ঐতিহাসিক যুগগৃহযুদ্ধ / সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ
২৪ এপ্রিল ১৯৯২
১৩ নভেম্বর ২০০১
মুদ্রাআফগান আফগানি (AFA)
আইএসও ৩১৬৬ কোডAF
পূর্বসূরী
উত্তরসূরী
আফগানিস্তান গণতান্ত্রিক প্রজাতন্ত্র
আফগানিস্তান ইসলামি আমিরাত
আফগান অন্তর্বর্তীকালীন প্রশাসন

আফগানিস্তান ইসলামি রাষ্ট্র[১] (ফার্সি: دولت اسلامی افغانستان‎‎, দাওলাতে ইসলামিয়ে আফগানিস্তান) ছিল আফগানিস্তানের রাষ্ট্রীয় নাম। আফগানিস্তান গণতান্ত্রিক প্রজাতন্ত্রের পতনের পর এই রাষ্ট্র গঠিত হয়।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

বুরহানউদ্দিন রব্বানী রাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি ছিলেন। পরবর্তীতে তালেবানরা ১৯৯৬ সালে আফগানিস্তানের অধিকাংশ অঞ্চল দখল করার পর আফগানিস্তান ইসলামী আমিরাত প্রতিষ্ঠা করে। নর্দার্ন অ্যালায়েন্স নামে পরিচিত সামরিক বাহিনী সরকার কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। এই বাহিনী তালেবানের প্রতিপক্ষ ছিল। ২০০১ সাল পর্যন্ত আফগানিস্তান ইসলামি রাষ্ট্র জাতিসংঘে আফগানিস্তানের প্রতিনিধি ছিল। এরপর "আফগানিস্তান ইসলামী প্রজাতন্ত্র" প্রতিষ্ঠিত হয় এবং আমেরিকা ও ন্যাটোর সহায়তায় আফগান অন্তর্বর্তী সরকার নিয়ন্ত্রণ গ্রহণ করে।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Directorate of Intelligence (২০০১)। "CIA -- The World Factbook -- Afghanistan" (mirror)। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-০৬-০৬note - the self-proclaimed Taliban government refers to the country as Islamic Emirate of Afghanistan 

পূর্বসূরী
আফগানিস্তান প্রজাতন্ত্র
আফগানিস্তান ইসলামি রাষ্ট্র
১৯৯২ – ১৯৯৬
উত্তরসূরী
আফগানিস্তান ইসলামি আমিরাত