অস্কার দোস সান্তোস জুনিয়র

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search
এই নিবন্ধের শিরোনামের সাথে মিল আছে এমন নিবন্ধের এমন নিবন্ধের জন্য অস্কার (দ্ব্যর্থতা নিরসন) দেখুন।
অস্কার
Oscar dos Santos 2012 CL.jpg
২০১২ সালে চেলসির হয়ে খেলছেন অস্কার।
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম অস্কার দোস সান্তোস জুনিয়র
(Oscar dos Santos Emboaba Júnior)[১]
জন্ম (১৯৯১-০৯-০৯) ৯ সেপ্টেম্বর ১৯৯১ (বয়স ২৭)
জন্ম স্থান আমেরিকানা, সাঁউ পাঁওলো, ব্রাজিল
উচ্চতা ১.৮০ মি (৫ ফু ১১ ইঞ্চি)[২]
মাঠে অবস্থান অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার
ক্লাবের তথ্য
বর্তমান ক্লাব চেলসি
জার্সি নম্বর ১১
যুব পর্যায়ের খেলোয়াড়ী জীবন
১৯৯৮-২০০৪ ইউনিয়া বার্বারেন্সে
২০০৪-২০০৯ সাঁউ পাঁওলো
জ্যেষ্ঠ পর্যায়ের খেলোয়াড়ী জীবন*
বছর দল উপস্থিতি (গোল)
২০০৮-২০১০ সাঁউ পাঁওলো ১১ (০)
২০১০-২০১২ ইন্টার্নাসিয়নাল ৩৬ (১)
২০১২– চেলসি ১৩০ (১২)
জাতীয় দল
২০০৯-২০১২ ব্রাজিল অনূর্ধ্ব ২০ ২৫ (৬)
২০১২ ব্রাজিল অনূর্ধ্ব ২৩ (১)
২০১১– ব্রাজিল ৪৮ (১২)
  • পেশাদারী ক্লাবের উপস্থিতি ও গোলসংখ্যা শুধুমাত্র ঘরোয়া লিগের জন্য গণনা করা হয়েছে এবং ২২ নভেম্বর ২০১৬ তারিখ অনুযায়ী সঠিক।

† উপস্থিতি(গোল সংখ্যা)।

‡ জাতীয় দলের হয়ে খেলার সংখ্যা এবং গোল ১৭ নভেম্বর ২০১৬ তারিখ অনুযায়ী সঠিক।

অস্কার দোস সান্তোস জুনিয়র (পর্তুগিজ: Oscar dos Santos Emboaba Júnior; জন্ম: ১৯৯১ সালে ৯ই সেপ্টেম্বর; আমেরিকানা, সাঁউ পাঁওলো, ব্রাজিল) হচ্ছেন ব্রাজিলীয় ফুটবলার যিনি বর্তমানে প্রিমিয়ার লীগ ক্লাব চেলসিব্রাজিলের হয়ে খেলছেন। তিনি মূলত অ্যাটাকিং মিডফিল্ডারউইঙ্গার হিসেবে খেলে থাকেন।

সাঁউ পাঁওলোর হয়ে অস্কার তার খেলোয়াড়ি জীবনের সূচনা করেন, যেখানে তিনি ২০০৮ সালে ব্রাজিলীয় সিরি এ জিতেন। চুক্তিতে অনিয়মের জন্য সাঁউ পাঁওলোর বিরুদ্ধে কোর্টে যান, পরবর্তী তিন বছর তিনি ইন্টারনাসিয়নালে কাটান। জাতীয় দল ও ক্লাবের হয়ে সফলতার জন্য অস্কার ইংরেজ ক্লাব চেলসি ২০১২ সালে তাকে কিনে নেয়।

অস্কার ব্রাজিলের হয়ে অনূর্ধ্ব ২০ দলে খেলেছেন, এছাড়া তিনি ২০১২ অলিম্পিকের ফুটবল দলেও ছিলেন। ২০১১ সালের ২০ আগস্ট প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে তিনি অনূর্ধ্ব বিশ বিশ্বকাপের ফাইনালে পর্তুগালের বিপক্ষে হ্যাট্রিক করেন[৩]। তিনি জাতীয় দলের হয়ে প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেন আর্জেন্টিনার বিপক্ষে। তিনি জাতীয় দলের হয়ে ব্রাজিলে হতে যাওয়া ২০১৪ ফিফা বিশ্বকাপের দলে জায়গা করে নিয়েছেন।

তার খেলার ধরন ও দক্ষতা ২০০৭ সালে ব্যালন ডি'অর জয়ী কাকার সাথে তুলনা করা হয়।[৪][৫][৬]

ক্যারিয়ার[সম্পাদনা]

ক্লাব[সম্পাদনা]

সর্বশেষ ২০১৪ সালের ১১ মে[৭][৮][৯] অবধি পর্যন্ত হালনাগাদকৃত পরিসংখ্যান:
ক্লাব মৌসুম লীগ কাপ লীগ কাপ মহাদেশীয় অন্যান্য 1 সর্বমোট
উপস্থিতি গোল উপস্থিতি গোল উপস্থিতি গোল উপস্থিতি গোল উপস্থিতি গোল উপস্থিতি গোল
সাঁউ পাঁওলো ২০০৯ ১১ ১৪
সর্বমোট ১১ ১৪
ইন্টারনাসিয়নাল ২০১০
২০১১ ২৬ ১০ ১১ ৪৪ ১৩
২০১২ ২০
সর্বমোট ৩৬ ১১ ২০ ১৩ ৭০ ১৯
চেলসি ২০১২-১৩ ৩৪ ১৫ ৬৪ ১২
২০১৩-১৪ ৩৩ ১০ ৪৭ ১১
সর্বমোট ৬৭ ১২ ১০ ২৫ ১১১ ২৩
ক্যারিয়ার সর্বমোট ১১৪ ২৩ ১০ ২৬ ৪০ ১১ ১৯৫ ৪২

আন্তর্জাতিক Md Lished Mia[সম্পাদনা]

সর্বশেষ ২০১৪ সালের ৫ মার্চ অবধি পর্যন্ত হালনাগাদকৃত পরিসংখ্যান:
জাতীয় দল মৌসুম উপস্থিতি গোল
ব্রাজি; ২০১১
২০১২ ১০
২০১৩ ১৬
২০১৪
সর্বমোট ৪৩ ১১

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Barclays Premier League Squad Numbers 2013/14"। Premier League। ১৬ আগস্ট ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ১৭ আগস্ট ২০১৩ 
  2. "Player Profile: Oscar"। Premier League। সংগ্রহের তারিখ ২৪ ডিসেম্বর ২০১৩ 
  3. "Cometh the hour, cometh the Oscar"। FIFA। ২১ আগস্ট ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ২২ আগস্ট ২০১১ 
  4. "Chelsea target Oscar is living up to Kaka comparisons"। Goal.com। ১২ জুলাই ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১২ 
  5. Malyon, Ed (২৫ জুলাই ২০১২)। "Chelsea and Tottenham target Oscar: What fans can expect from the new Kaka by South American football expert Ed Malyon"Daily Mirror। সংগ্রহের তারিখ ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১২ 
  6. "Chelsea's Oscar – 'the new Kaka'?"। Hereisthecity.com। ২০ সেপ্টেম্বর ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১২ 
  7. Oscar ক্যারিয়ার তথ্য
  8. http://espnfc.com/player/_/id/173667?cc=5739
  9. http://www.premierleague.com/en-gb/players/profile.statistics.html/oscar

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]