২০১৬ ফিফা অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা বিশ্বকাপ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
২০১৬ ফিফা অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা বিশ্বকাপ
كأس العالم للسيدات تحت 17 سنة 2016
টুর্নামেন্টের বিবরণ
স্বাগতিক দেশ জর্দান
তারিখসমূহ৩০ সেপ্টেম্বর – ২১ অক্টোবর ২০১৬
দলসমূহ১৬ (৬টি কনফেডারেশন থেকে)
ভেন্যু(সমূহ) (৩টি আয়োজক শহরে)
শীর্ষস্থানীয় অবস্থান
চ্যাম্পিয়ন উত্তর কোরিয়া (২য় শিরোপা)
রানার-আপ জাপান
তৃতীয় স্থান স্পেন
চতুর্থ স্থান ভেনেজুয়েলা
প্রতিযোগিতার পরিসংখ্যান
ম্যাচ খেলেছে৩২
গোল সংখ্যা১০৪ (ম্যাচ প্রতি ৩.২৫টি)
উপস্থিতি১,০৪,০৯৫ (ম্যাচ প্রতি ৩,২৫৩ জন)
শীর্ষ গোলদাতাস্পেন লোরেনা নাভারো
(৮ গোল)
2014
2018
সর্বশেষ হালনাগাদ: ১৭ অক্টোবর ২০১৬

২০১৬ ফিফা অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা বিশ্বকাপ হল যুব মহিলাদের জন্য ফিফা কর্তৃক আয়োজিত আন্তর্জাতিক ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপ ফিফা অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা বিশ্বকাপের ৫ম আসর। প্রতিযোগিতা ৩০ সেপ্টেম্বর থেকে ২১ অক্টোবর ২০১৬ সালে জর্দানে অনুষ্ঠিত হয়। এটি ছিল রক্ষনশীল মধ্য প্রাচ্যের দেশে আয়োজিত প্রথম মহিলা বিশ্বকাপ। প্রতিযোগিতায় ১৬টি জাতীয় অনূর্ধ্ব ১৭ জাতীয় মহিলা ফুটবল দল অংশগ্রহণ করে এবং চ্যাম্পিয়ন হয় উত্তর কোরিয়া।

স্বাগতিক নির্বাচন[সম্পাদনা]

মে ২০১৩ ডেডলাইন অনুযায়ী ২০১৬ ফিফা অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা বিশ্বকাপের জন্য নিম্নলিখিত চারটি দেশ তাদের দাবি পেশ করেছিল:[১]

৫ ডিসেম্বর ২০১৩ সালে ফিফা কার্যনির্বাহী কমিটি জর্দানকে আয়োজক দেশ হিসাবে ঘোষণা করে।[২]

বাছাইকৃত দল[সম্পাদনা]

চুড়ান্ত লড়াইয়ের জন্য ১৬টি যোগ্যতা অর্জন করেছে। জর্দান স্বাগতিক হিসাবে সরাসরি যোগ্যতা অর্জন করে। অন্য ১৫টি দল ৬টি মহাদেশীয় প্রতিযোগিতা থেকে বাছাই করা হয়েছে। বাছাইকৃত দলসমূহের নাম জুন ২০১৪ তে প্রকাশিত হয়।[৩]

কনফেডারেশন যোগ্যতা নির্ধারণ প্রতিযোগিতা যোগ্য দল
এএফসি (এশিয়া) স্বাগতিক  জর্দান1
২০১৫ এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ মহিলা চ্যাম্পিয়নশিপ‎  জাপান
 উত্তর কোরিয়া
সিএএফ (আফ্রিকা) ২০১৬ অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব — আফ্রিকা‎  ক্যামেরুন1
 ঘানা
 নাইজেরিয়া
কনকাকাফ (উত্তর, মধ্য আমেরিকা ও ক্যারিবিয়ান ফুটবল ফেডারেশন) ২০১৬ কনকাকাফ অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা চ্যাম্পিয়নশিপ‎  কানাডা
 মেক্সিকো
 মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
কনমেবল (দক্ষিণ আমেরিকা) ২০১৬ দক্ষিণ আমেরিকান অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপ‎  ব্রাজিল
 প্যারাগুয়ে
 ভেনেজুয়েলা
ওএফসি (ওশেনিয়া) ২০১৬ ওএফসি অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা চ্যাম্পিয়নশিপ‎  নিউজিল্যান্ড
উয়েফা (ইউরোপ) ২০১৬ উয়েফা অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা চ্যাম্পিয়নশিপ‎  ইংল্যান্ড
 জার্মানি
 স্পেন
1.^ খেলায় দলের অভিষেক

মাঠ[সম্পাদনা]

তিনটি স্বাগতিক শহর হল আম্মান ইরবিদ ও জারকা। স্বাগতিক শহরের স্টেডিয়াম ও অবকাঠামোর উন্নয়ন করা হয়েছিল। অবকাঠামোগত উন্নয়ন দায়িত্ব ছিল গ্রেটার আম্মান মিউনিসিপালিটি ও ইয়ুথ হায়ার কাউন্সিলের উপর, উন্নয়ন ব্যয়ের ৩০% মিউনিসিপালিটি এবং ৭০% কাউন্সিল বহন করেছিল।[৪]

আম্মান আম্মান
আম্মান আন্তর্জাতিক স্টেডিয়াম কিং আব্দুল্লাহ দ্বিতীয় স্টেডিয়াম
Sport City Amman JO 78.jpg
ধারণক্ষমতা: ২০,০০০ ধারণক্ষমতা: ১৮,০০০
জারকা ইরবিদ
প্রিন্স মোহাম্মদ স্টেডিয়াম আল হাসান স্টেডিয়াম
تطوير الملعب2.JPG Irbid5.jpg
ধারণক্ষমতা: ১৭,০০০ ধারণক্ষমতা: ১৫,০০০

মনোগ্রাম[সম্পাদনা]

মাস্কট[সম্পাদনা]

২৮ মে ২০১৬ তারিখে ফিফার এক সংবাদ সম্মেলনে, এ প্রতিযোগিতার মাস্কট আসিলা উন্মোচন করা হয়। আসিলা হল একটি অ্যারাবিয়ান ওরিক্স, যা জর্দানের জাতীয় পশু।

স্কোয়াড[সম্পাদনা]

যেসকল খেলোয়াড়ের জন্ম ১ জানুয়ারি ১৯৯৯ বা তার পরে এবং ৩১ ডিসেম্বর ২০০১ এর পূর্বে সেসকল খেলোয়াড় ২০১৬ ফিফা অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা বিশ্বকাপে খেলতে পারবে।[৫] ফিফা ডেডলাইন অনুযায়ী প্রতিটি দল ২২ জন খেলোয়াড় নথিভুক্ত করতে পারবে, যার মধ্যে তিনজন গোলরক্ষক অবশ্যই থাকতে হবে। ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৬ তারিখে খেলোয়াড়দের নাম ঘোষণা করা হয়েছিল।[৬]

অফিসিয়াল কর্মকর্তা[সম্পাদনা]

এই প্রতিযোগিতার জন্য ফিফা সর্বমোট ১৬ জন রেফারি, ১ জন রিজার্ভ রেফারি এবং ২৮ জন সহকারী রেফারি নিয়োগ করেছিল।[৭]

কনফেডারেশন রেফারি সহকারী রেফারি
এএফসি

অস্ট্রেলিয়া কেট জেচিভিজ
দক্ষিণ কোরিয়া পার্ক জি ইয়ং
জাপান ইয়োজশিমি ইয়ামাশিতা
দক্ষিণ কোরিয়া ওহ হাইওন জিয়োনং (রিজার্ভ)

অস্ট্রেলিয়া রেনাই কোঘইল
ভারত উভেনা ফার্নান্দেস
জাপান মাইকো হাজিও
দক্ষিণ কোরিয়া লী সিউল জি
চীন লিয়াং জিয়নপিং
ভিয়েতনাম Truong Thi Le Trinh

সিএএফ

টোগো Aissata Ameyo Amegee
ইথিওপিয়া Ledya Tafesse

ক্যামেরুন Josiane Mbakop
মালি Fanta Idrissa Kone

কনকাকাফ

কানাডা Marie-Soleil Beaudoin
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র Ekaterina Koroleva
এল সালভাদোর Miriam Patricia León Serpas

এল সালভাদোর Thelma Beltran
মেক্সিকো Yudilia Briones
জ্যামাইকা Princess Brown
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র Kathryn Nesbitt
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র Deleana Quan
জ্যামাইকা Stephanie-Dale Yee Sing

কনমেবল

আর্জেন্টিনা Laura Fortunato
ব্রাজিল Regildenia de Holanda Moura
কলম্বিয়া Viviana Muñoz
কলম্বিয়া Yeimy Martinez

বলিভিয়া Liliana Bejarano
প্যারাগুয়ে Nilda Gamarra
কলম্বিয়া Luzmila Gonzalez
আর্জেন্টিনা Daiana Milone
ব্রাজিল Tatiane Sacilotti
চিলি Leslie Vasquez

ওএফসি

ফিজি ফিনাউ ভুলিভুলি

উয়েফা

মাল্টা Esther Azzopardi
পর্তুগাল Sandra Braz Bastos
রাশিয়া Anastasia Pustovoitova
চেক প্রজাতন্ত্র Olga Zadinová

ইতালি Lucia Abruzzese
ইউক্রেন Oleksandra Ardasheva
জার্মানি Christina Biehl
সুইজারল্যান্ড Susanne Kueng
রাশিয়া Ekaterina Kurochkina
স্কটল্যান্ড Kylie McMullan
স্লোভাকিয়া Slavomira Majkuthová
পোল্যান্ড Katarzyna Wojs

ড্র[সম্পাদনা]

চুড়ান্ত লড়াইয়ের জন্য গ্রুপ নির্ধারণ ড্র ৩০ মে ২০১৬ তারিখে স্থানীয় সময় ১৮:০০ টায় EEST (ইউটিসি+৩) আম্মানের আল হুসেইন কালচারাল সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয়।[৮][৯] সিডিংয়ে দলসমূহকে পূর্ববর্তী ফিফা অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা বিশ্বকাপে সাফল্য ও কনফেডারেশন প্রতিযোগিতা অনুযায়ী চারটি পাত্রে সাজানো হয়, জর্দান স্বাগতিক হওয়ায় স্বয়ংক্রিয়ভাবে এ১ স্থানে থাকে। একটি গ্রুপে একই কনফেডারেশনের দুটি দল রাখা হয়নি।[১০]

Pot 1 Pot 2 Pot 3 Pot 4

গ্রুপ পর্ব[সম্পাদনা]

গ্রুপ এ[সম্পাদনা]

অব দল খে ড্র হা স্বগো বিগো গোপা পয়েন্ট যোগ্যতা অর্জন
 মেক্সিকো ১০ +৮ নকআউট পর্ব
 স্পেন +৮
 নিউজিল্যান্ড −২
 জর্দান (H) ১৫ −১৪
উৎস: FIFA
(H) স্বাগতিক।
মেক্সিকো ৫–০ নিউজিল্যান্ড
এসপিনোসা গোল 18'
ওভালি গোল 36'
লোপেজ গোল 68'
অ্যাভালোস গোল 81'
টোরেস গোল 87'
প্রতিবেদন
জর্দান ০–৬ স্পেন
প্রতিবেদন লেরেনা গোল 6'27'42'47' (পেনাল্টি)79'
পিনা গোল 89'

স্পেন ২–০ নিউজিল্যান্ড
লাইয়া গোল 80'
পিনা গোল 85'
প্রতিবেদন
জর্দান ১–৪ মেক্সিকো
আবু সাবাহ গোল 6' প্রতিবেদন এনরিগ গোল 13'
ক্যাজারেস গোল 17'
ওভালি গোল 54'
জারেস গোল 85'

নিউজিল্যান্ড ৫–০ জর্দান
তাওহারু গোল 5'90'
ব্লাকি গোল 28'76'90+2'
প্রতিবেদন
স্পেন ১–১ মেক্সিকো
ইভা গোল 58' প্রতিবেদন এসপিনোসাগোল 56'

গ্রুপ বি[সম্পাদনা]

অব দল খে ড্র হা স্বগো বিগো গোপা পয়েন্ট যোগ্যতা অর্জন
 জার্মানি +৩ নকআউট পর্ব
 ভেনেজুয়েলা +২
 কানাডা −১
 ক্যামেরুন −৪
উৎস: FIFA
ভেনেজুয়েলা ১–২ জার্মানি
কাজোর্লা গোল 61' প্রতিবেদন গউইন গোল 7'
Bühl গোল 74'
ক্যামেরুন ২–৩ কানাডা
Djoubi গোল 17'
Dabda গোল 42'
প্রতিবেদন Huitema গোল 3'
Stratigakis গোল 78' (পেনাল্টি)
Taylor গোল 83'
দর্শক সংখ্যা: 4,200
রেফারি: Sandra Braz (Portugal)

ভেনেজুয়েলা 2–1 ক্যামেরুন
Castellanos গোল 20'90+4' প্রতিবেদন Takounda গোল 90+3'
দর্শক সংখ্যা: 1,275
রেফারি: Yoshimi Yamashita (জাপান)
জার্মানি 1–1 কানাডা
Gwinn গোল 45+2' প্রতিবেদন Rose গোল 20'
দর্শক সংখ্যা: 3,384
রেফারি: Regildenia Moura (Brazil)

কানাডা 0–2 ভেনেজুয়েলা
প্রতিবেদন Castellanos গোল 30'
Moreno গোল 74'
দর্শক সংখ্যা: 2,704
রেফারি: Olga Zadinová (Czech Republic)
জার্মানি 2–0 ক্যামেরুন
Gwinn গোল 15'
Oberdorf গোল 72'
প্রতিবেদন

Group C[সম্পাদনা]

অব দল খে ড্র হা স্বগো বিগো গোপা পয়েন্ট যোগ্যতা অর্জন
 উত্তর কোরিয়া +৪ নকআউট পর্ব
 ইংল্যান্ড +১
 ব্রাজিল −১
 নাইজেরিয়া −৪
উৎস: FIFA
নাইজেরিয়া 0–1 ব্রাজিল
প্রতিবেদন Micaelly গোল 42'
দর্শক সংখ্যা: 4,500
রেফারি: Olga Zadinová (Czech Republic)
ইংল্যান্ড 3–3 উত্তর কোরিয়া
Brazil গোল 20'
Stanway গোল 33'
Russo গোল 90+4'
প্রতিবেদন Sung Hyang-sim গোল 29'
Kim Pom-ui গোল 67'
Ko Kyong-hui গোল 84'
দর্শক সংখ্যা: 2,500
রেফারি: Ledya Tafesse (Ethiopia)

নাইজেরিয়া 0–0 ইংল্যান্ড
প্রতিবেদন
দর্শক সংখ্যা: 664
রেফারি: Ekaterina Koroleva (United States)
ব্রাজিল 0–1 উত্তর কোরিয়া
প্রতিবেদন Ri Hae-yon গোল 71'
দর্শক সংখ্যা: 2,463
রেফারি: Anastasia Pustovoitova (Russia)

উত্তর কোরিয়া 3–0 নাইজেরিয়া
Ri Hae-yon গোল 30'45'83' প্রতিবেদন
ব্রাজিল 1–2 ইংল্যান্ড
Kerolin গোল 36' প্রতিবেদন Stanway গোল 45+3' (পেনাল্টি)60' (পেনাল্টি)

Group D[সম্পাদনা]

অব দল খে ড্র হা স্বগো বিগো গোপা পয়েন্ট যোগ্যতা অর্জন
 জাপান ১৩ +১১ নকআউট পর্ব
 ঘানা −৩
 মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র +৩
 প্যারাগুয়ে ১২ −১১
উৎস: FIFA
ঘানা 0–5 জাপান
প্রতিবেদন Ueki গোল 7'
Endo গোল 18'21'
Takarada গোল 26'
Chiba গোল 83'
দর্শক সংখ্যা: 1,083
রেফারি: Miriam Patricia Leon Serpas (El Salvador)
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র 6–1 প্যারাগুয়ে
Tagliaferri গোল 11'
Kuhlmann গোল 14'49'87'
Pickett গোল 69'
Sanchez গোল 82'
প্রতিবেদন Fretes গোল 53'
দর্শক সংখ্যা: 2,078
রেফারি: Anastasia Pustovoitova (Russia)

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র 1–2 ঘানা
Tagliaferri গোল 5' প্রতিবেদন Gi. Acheampong গোল 63'
Owusu-Ansah গোল 84' (পেনাল্টি)
দর্শক সংখ্যা: 2,000
রেফারি: Laura Fortunato (Argentina)
প্যারাগুয়ে 0–5 জাপান
প্রতিবেদন Takahashi গোল 4'
Nojima গোল 29'39' (পেনাল্টি)44'
Takarada গোল 89'
দর্শক সংখ্যা: 2,600
রেফারি: Esther Azzopardi (Malta)

জাপান 3–2 মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
Ueki গোল 53'
Kanno গোল 75'
Miyazawa গোল 77'
প্রতিবেদন Sanchez গোল 33'90+1' (পেনাল্টি)
দর্শক সংখ্যা: 2,580
রেফারি: Yeimy Martinez (Colombia)
প্যারাগুয়ে 0–1 ঘানা
প্রতিবেদন Owusu-Ansah গোল 68'
দর্শক সংখ্যা: 1,703
রেফারি: Finau Vulivuli (Fiji)

নকআউট পর্ব[সম্পাদনা]

নকআউট পর্বে, যদি কোনো খেলা নির্ধারিত সময়ে শেষ না হয় বা ড্র হয় তাহলে পেনাল্টি শটের দ্বারা বিজয়ী নির্ধারণ করা হয় (কোনো অতিরিক্ত সময় দেওয়া হয় নাই)।[৫]

 
কোয়াটার-ফাইনালসেমি-ফাইনালফাইনাল
 
          
 
১২ অক্টোবর — আম্মান আন্তর্জাতিক স্টেডিয়াম
 
 
 মেক্সিকো1
 
১৭ অক্টোবর — আম্মান কিং আব্দুল্লাহ স্টেডিয়াম
 
 ভেনেজুয়েলা2
 
 ভেনেজুয়েলা0
 
১৩ অক্টোবর — আল হাসান স্টেডিয়াম, ইরবিদ
 
 উত্তর কোরিয়া3
 
 উত্তর কোরিয়া2
 
২১ অক্টোবর — আম্মান আন্তর্জাতিক স্টেডিয়াম
 
 ঘানা1
 
 উত্তর কোরিয়া (পেনাল্টি)0 (5)
 
১২ অক্টোবর— আম্মান আন্তর্জাতিক স্টেডিয়াম
 
 জাপান0 (4)
 
 জার্মানি1
 
১৭ অক্টোবর — আম্মান কিং আব্দুল্লাহ স্টেডিয়াম
 
 স্পেন2
 
 স্পেন0
 
১৩ অক্টোবরr — আল হাসান স্টেডিয়াম, ইরবিদ
 
 জাপান3 তৃতীয় স্থান
 
 জাপান3
 
২১ অক্টোবর — আম্মান আন্তর্জাতিক স্টেডিয়াম
 
 ইংল্যান্ড0
 
 ভেনেজুয়েলা0
 
 
 স্পেন4
 

কোয়ার্টার ফাইনাল[সম্পাদনা]

মেক্সিকো ১–২ ভেনেজুয়েলা
এনরিগুয়ে গোল 34' প্রতিবেদন কাস্টেলানোস গোল 35'39'

জার্মানি ১–২ স্পেন
ওবেরডর্ফ গোল 90+4' প্রতিবেদন নাতালিয়া গোল 9'
ইভা গোল 36'

উত্তর কোরিয়া ২–১ ঘানা
কিম পম উই গোল 33' (পেনা.)
জা উন ইয়ং গোল 90+4'
প্রতিবেদন জি. অ্যাচেমপোং গোল 81'
দর্শক সংখ্যা: ৪৯৩
রেফারি: লৌরা ফোর্টনাটো (আর্জেন্টিনা)

জাপান ৩–০ ইংল্যান্ড
এন্দো গোল 3'
উয়েকি গোল 45+1'80'
প্রতিবেদন

সেমি ফাইনাল[সম্পাদনা]

ভেনেজুয়েলা ০–৩ উত্তর কোরিয়া
প্রতিবেদন কিম পম-উই গোল 15'
জা উন ইয়ং গোল 71'
রি হে উন গোল 89'

স্পেন ০–৩ জাপান
প্রতিবেদন তাকাহাসি গোল 14'76' (পেনাল্টি)
লুসিয়া গোল 48' (আ.গো.)

তৃতীয় স্থান নির্ধারণী খেলা[সম্পাদনা]

ভেনেজুয়েলা ০–৪ স্পেন
প্রতিবেদন ইভা গোল 17'
লোরেনা গোল 53'78'87'
দর্শক সংখ্যা: ৩,২০০
রেফারি: লেডিয়া তাফেসি (ইথিওপিয়া)

ফাইনাল[সম্পাদনা]

বিজয়ী[সম্পাদনা]

২০১৬ ফিফা অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা বিশ্বকাপ
উত্তর কোরিয়া
উত্তর কোরিয়া
দ্বিতীয় শিরোপা

পুরস্কার[সম্পাদনা]

প্রতিযোগিতা শেষে নিম্ন পুরস্কার সমূহ প্রদান করা হয়েছিল:

গোল্ডেন বল সিলভার বল ব্রোঞ্জ বল
জাপান ফুকা নাগানো উত্তর কোরিয়া সুং হায়ং সিম ভেনেজুয়েলা দিয়েনা ক্যাস্টেল্যানস


স্বর্ণ জুতা রৌপ্য জুতা ব্রোঞ্জ জুতা
স্পেন লোরেনা নাভারো উত্তর কোরিয়া রি হে ইওন ভেনেজুয়েলা দিয়ানা কাস্টেলানোস


ফিফা ফেয়ার প্লে পুরস্কার গোল্ডেন গ্লোভ
 জাপান স্পেন নোয়েলিয়া রামোস

গোলস্কোর[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "FIFA Executive Committee fully backs resolution on the fight against racism and discrimination" (ইংরেজি ভাষায়)। FIFA.com। ২৮ মে ২০১৩। 
  2. "FIFA launches 2014 FIFA World Cup Legacy Trust" (ইংরেজি ভাষায়)। FIFA.com। ৫ ডিসেম্বর ২০১৩। 
  3. "Decisions taken by the FIFA Executive Committee concerning women's competitions 2016" (PDF)। FIFA.com। ২৩ জুন ২০১৪। 
  4. "U-17 Women World Cup organisers to intensify marketing push"The Jordan News। The Jordan Times। ৯ মার্চ ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ৪ জুন ২০১৬ 
  5. "Regulations – FIFA U-17 Women's World Cup Jordan 2016" (PDF)। FIFA.com। 
  6. "Squads announced for Jordan 2016"। FIFA.com। ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৬। 
  7. "FIFA U-17 Women's World Cup Jordan 2016 Appointments of Match Officials" (PDF)। FIFA.com। 
  8. "Relive the FIFA U-17 Women's World Cup Jordan 2016 draw"। FIFA.com। ২৯ মে ২০১৬। 
  9. "Draw sets the scene for Jordan 2016"। FIFA.com। ৩০ মে ২০১৬। 
  10. "Official mascot, draw procedure announced for Jordan 2016"। FIFA.com। ২৮ মে ২০১৬। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]