২০০৯-এর বিডিআর বিদ্রোহ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান

টেমপ্লেট:Use dmy dates

২০০৯-এর বিডিআর বিদ্রোহ
চিত্র:BDR mutiny cctv footage.jpg
সিসিটিভি ফুটেজে দেখাচ্ছে বিডিআর সদস্যরা পিলখানায় টহল দিচ্ছে
তারিখ ২৫ ফেব্রুয়ারি –২ মার্চ ২০০৯
অবস্থান ঢাকা, বাংলাদেশ
অবস্থা বিডিয়ার জওয়ানদের আত্নসমপর্ন
বিবদমান পক্ষ
বাংলাদেশ বাংলাদেশ সেনাবাহিনী
বাংলাদেশ বাংলাদেশ রাইফেলস
বাংলাদেশ বাংলাদেশ পুলিশ
Mutineers from the Bangladesh Rifles
নেতৃত্ব প্রদানকারী

বাংলাদেশজেনারেল. মঈন উদ্দিন আহমেদ

বাংলাদেশমেজর.জেনারেল আসহাব উদ্দিন চৌধুরী
শক্তিমত্তা
অজানা ১,২০০ বিদ্রোহী
প্রাণহানি ও ক্ষয়ক্ষতি
৫৭ নিহত,[১] ৬ নিখোজ[২] ৮ জন নিহত,[২] 200 captured[৩]
৭ বেসামরিক নিহত[৪][৫]
বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সদস্যরা ধানমন্ডির ৮এ সড়কের কাছে সাতমসজিদ সড়কে 14.5 ADMG কামান স্থাপন করছে। কামানগুলো পিলখানার দিকে তাক করা। ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০০৯.
সাত মসজিদ সড়কে স্টেট ইউনিভার্সিটির কাছে ব্যারিকেড দেয়া হয়েছে। ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০০৯

২০০৯ সালের ২৫শে ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ রাইফেলস এর সদস্যরা বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা পিলখানা এলাকায় অবস্থিত বিডিআর সদরদপ্তরে বিডিআর থেকে সেনাবাহিনীর কর্মকর্তাদের কর্তৃত্বের অবসান, রেশন ও বেতনবৈষম্য দূর করাসহ বেশ কিছু দাবিতে সশস্ত্র বিদ্রোহ করে। বিডিআর এর প্রায় ১৫,০০০ সদস্য সম্মিলিতভাবে তাদের উর্ধ্বস্থানীয় ৫৭ জন কর্মকর্তাকে হত্যা এবং কয়েকজনকে জিম্মি করে। নিহতদের তালিকায় রয়েছেন তৎকালীন বিডিআরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল শাকিল আহমেদ। সামরিক কর্মকর্তা ছাড়াও বিডিআর এর গুলিতে কয়েকজন বেসামরিক নাগরিকও নিহত হন।[৬] সদরদপ্তরের ভিতর এই হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়, তবে বিদ্রোহীরা ভিতরে আটকে পড়া শিশু ও মহিলাদের বেরিয়ে যাওয়ার সুযোগ দেন।

২৫শে ফেব্রুয়ারি মধ্যরাতে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিদ্রোহীদের সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করলে বিডিআর এর সদস্যদের একাংশ আত্মসমর্পণ করে। ২৬শে ফেব্রুয়ারি সকালে দেশের বিভিন্ন সীমান্ত এলাকায় অবস্থিত বিডিআর ক্যাম্পে পুনরায় উত্তেজনার খবর পাওয়া যায়। ঐদিন প্রধানমন্ত্রী জাতীর উদ্দেশ্যে দেয়া ভাষণে বিডিআরকে আবারও তাদের দাবি দাওয়া মেনে নেওয়ার আশ্বাস প্রদান করেন। ২৬শে ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় বিদ্রোহী বিডিআর এর সকল সদস্যগণ তাদের অস্ত্র জমা দেন এবং বাংলাদেশ পুলিশ বিডিআর সদর দপ্তর তাদের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে নেয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "657 jailed for Peelkhana mutiny, 9 freed"bdnews24.com। ২৭ জুন ২০১১। আসল থেকে ১৯ আগস্ট ২০১১-এ আর্কাইভ করা। সংগৃহীত ২৭ নভেম্বর ২০১৫ 
  2. Julfikar Ali Manik (3 March 2009) "6, not 72, army officers missing", The Daily Star Internet edition. Retrieved 6 November 2013
  3. "Bangladesh mutineers 'arrested'"BBC News। ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০০৯। সংগৃহীত ২৩ এপ্রিল ২০১০ 
  4. "Dhaka mutineers surrender weapons, troops move in"। Reuters। ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০০৯। 
  5. "Dozens killed in Bangladesh mutiny - World news - South and Central Asia | NBC News"। MSNBC। ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০০৯। সংগৃহীত ৭ নভেম্বর ২০১২ 
  6. "বিডিআর জওয়ানদের বিদ্রোহ নিহতের সংখ্যা ১৫ বলে দাবি * মহাপরিচালক শাকিল বেঁচে নেই * জিম্মি কর্মকর্তাদের পরিণতি অজানা"Prothom Alo। ২৬ ফেব্রুয়ারি: 1। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]