হিথ ডেভিস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
হিথ ডেভিস
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামহিথ টি-ইহি-ও-টি-রঙ্গী ডেভিস
জন্ম (1971-11-30) ৩০ নভেম্বর ১৯৭১ (বয়স ৪৯)
লোয়ার হাট, ওয়েলিংটন, নিউজিল্যান্ড
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি ফাস্ট
ভূমিকাবোলার, কোচ
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ১৮৯)
২ জুন ১৯৯৪ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ টেস্ট১৮ সেপ্টেম্বর ১৯৯৭ বনাম জিম্বাবুয়ে
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ৯০)
১৮ এপ্রিল ১৯৯৪ বনাম শ্রীলঙ্কা
শেষ ওডিআই১৪ মে ১৯৯৭ বনাম ভারত
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ১১ ৭১ ৪৭
রানের সংখ্যা ২০ ১৩ ৫৩৮ ১৪০
ব্যাটিং গড় ৬.৬৬ ৬.৫০ ১১.৪৪ ১২.৭২
১০০/৫০ ০/০ ০/০ ০/০ ০/০
সর্বোচ্চ রান * * ৩৮* ২১
বল করেছে ১,০১০ ৪৩২ ১১,৬৮২ ১,৯৯৮
উইকেট ১৭ ১১ ২১৫ ৪৫
বোলিং গড় ২৯.৩৫ ৩৯.৬৩ ৩১.১৩ ৩৬.৮০
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ৫/৬৩ ৪/৩৫ ৫/৩২ ৪/৩৫
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৪/– ২/– ২৬/– ১২/–
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ২৮ অক্টোবর ২০২০

হিথ টি-ইহি-ও-টি-রঙ্গী ডেভিস (ইংরেজি: Heath Davis; জন্ম: ৩০ নভেম্বর, ১৯৭১) ওয়েলিংটনের লোয়ার হাট এলাকায় জন্মগ্রহণকারী সাবেক নিউজিল্যান্ডীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৯০-এর দশকের মাঝামাঝি সময়কালে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে নিউজিল্যান্ডের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।[১][২][৩]

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর নিউজিল্যান্ডীয় ক্রিকেটে অকল্যান্ড ও ওয়েলিংটন দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি ফাস্ট বোলিং করতেন। এছাড়াও, ডানহাতে নিচেরসারিতে ব্যাটিং করতেন হিথ ডেভিস

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৯৯১-৯২ মৌসুম থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত হিথ ডেভিসের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। আঘাতের কারণে তার আন্তর্জাতিক খেলোয়াড়ী জীবন সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে হয়েছিল। পাশাপাশি ওয়াইড বলসহ নো-বলও এতে প্রভাব বিস্তার করেছে। দ্রুতগতিসম্পন্ন বোলার ছিলেন। তবে, এক ইনিংসে চৌদ্দটি নো-বল করে তার সাফল্যকে ম্লান করে দেয়। বোলিংয়ে ছন্দ আনয়ণে তাকে যথেষ্ট প্রতিকূলতার মুখোমুখি হতে হয়। এরফলে, বলের উপর নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলতেন।

তিন বছর জাতীয় দল থেকে দূরে থাকার পর অতিরিক্ত পা অগ্রসর করার ন্যায় সমস্যা কাটিয়ে তুলতে সচেষ্ট হন। তবে, প্রাদেশিক পর্যায়ের ক্রিকেটে প্রকৃত উত্তরণে তাকে বেশ সময় নিতে হয়। উইকেট লাভসহ চমৎকার স্ট্রাইক রেট থাকা সত্ত্বেও বোলিংয়ের ছন্দ ফিরে আনার সমাধান করতে পারেননি। ক্রিকেট একাডেমিতে ডেনিস লিলিডেল হ্যাডলি’র ছত্রচ্ছায়ায় আসেন।

১৯৯৬-৯৭ মৌসুমে ওয়েলিংটনের পক্ষে বেশ ভালোমানের বোলিং করতে শুরু করেন। তবে, তার পেস কিছুটা কমে গিয়েছিল। বলে তিনি সর্বদাই সুইং করাতেন না। তবে, বাউন্সের মাধ্যমে ব্যাটসম্যানদেরকে তটস্থ করে রাখতেন।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে পাঁচটিমাত্র টেস্ট ও এগারোটি একদিনের আন্তর্জাতিকে অংশগ্রহণ করেছেন হিথ ডেভিস। ২ জুন, ১৯৯৪ তারিখে নটিংহামে স্বাগতিক ইংল্যান্ড দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। ১৮ সেপ্টেম্বর, ১৯৯৭ তারিখে হারারেতে স্বাগতিক জিম্বাবুয়ে দলের বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন তিনি।

১৯৯৪ সালে দলের সাথে ইংল্যান্ড গমন করেন। অতিরিক্ত পা অগ্রসর করার ন্যায় সমস্যায় ভুগেন। তবে, বলে নিখুঁততা ছিল। এছাড়াও, বেশ নিচেরদিকে নিয়ে যেতেন তার মাথাকে। ঐ সফরে একটি টেস্টে অংশ নেন। প্রথম বলেই চারটি ওয়াইড রান দেন। খুব দ্রুত উইকেট পেলেও ঐটিই তার স্বার্থকতা ছিল। প্রায় তিন বছর নিউজিল্যান্ড দলের বাইরে ছিলেন।

১৯৯৭ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে খেলার জন্যে তাকে নিউজিল্যান্ড দলে রাখা হয়। ঐ সিরিজের তৃতীয় টেস্টে অংশ নেন। ১৯৯৬-৯৭ মৌসুমে তিন টেস্টে অংশ নেয়ার পর দেখা যায় যে তিনি তার সমস্যা থেকে উত্তরণ ঘটিয়েছেন। ১৯৯৭ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজে গোড়ালী ও হাঁটুর ব্যথায় তাকে খুঁড়িয়ে চলতে দেখা যায়। তাসত্ত্বেও তিনি বেশ বোলিং করেছিলেন।

ক্রিকেট থেকে অবসর গ্রহণের পর কোচিং জগতের দিকে ধাবিত হন। বর্তমানে তিনি ব্রিসবেনে বসবাস করছেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. List of New Zealand Test Cricketers
  2. "New Zealand Test Batting Averages"। ESPNCricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৮ অক্টোবর ২০২০ 
  3. "New Zealand Test Bowling Averages"। ESPNCricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৮ অক্টোবর ২০২০ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]