সি. কে. নন্দন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
সি. কে. নন্দন
ব্যক্তিগত তথ্য
জন্ম (1963-10-14) ১৪ অক্টোবর ১৯৬৩ (বয়স ৫৫)
দিল্লি, ভারত
ভূমিকাউইকেট-রক্ষক, আম্পায়ার
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯৮৩-১৯৮৮কর্ণাটক
আম্পায়ারিং তথ্য
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা এফসি
ম্যাচ সংখ্যা
রানের সংখ্যা ৪৩
ব্যাটিং গড় ৮.৬০
১০০/৫০ ০/০
সর্বোচ্চ রান ২০
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৪/২
উৎস: ক্রিকেটআর্কাইভ, ২২ জানুয়ারি ২০১৬

সি. কে. নন্দন (কন্নড়: c.k ನಂದನ್; জন্ম: ১৪ অক্টোবর, ১৯৬৩) দিল্লিতে জন্মগ্রহণকারী ভারতের সাবেক ক্রিকেটার। বর্তমানে তিনি ক্রিকেট আম্পায়ারের দায়িত্ব পালন করছেন। ১৯৯৯ সালে আম্পায়ার হিসেবে তার অভিষেক ঘটে। ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে কর্ণাটকের প্রতিনিধিত্ব করেছেন। ১৯৮৩ থেকে ১৯৮৮ সময়কালে দলের পক্ষে তিনটি খেলায় অংশ নিয়েছেন তিনি। দলে তিনি মূলতঃ উইকেট-রক্ষকের দায়িত্ব পালন করতেন।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেকের পূর্বে কর্ণাটকের বিদ্যালয় ও অনূর্ধ্ব-২২ দলে খেলেছেন। এছাড়াও বেঙ্গালুরু বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয়ের খেলায় অংশ নেন।[১] ডিসেম্বর, ১৯৮৩ সালে রঞ্জি ট্রফিতে হায়দ্রাবাদের বিপক্ষে খেলার পর দল থেকে বাদ পড়েন।[২] অভিষেকে তিনি ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলেন ও সদানন্দ বিশ্বনাথ উইকেট-রক্ষণের দায়িত্বে ছিলেন।[৩] ১৯৮৪-৮৫ মৌসুমে রঞ্জি ট্রফি'র সেমি-ফাইনালে দিল্লির বিপক্ষে খেলেন। ঐ খেলায় কর্ণাটকের প্রথম পছন্দের উইকেট-রক্ষকদ্বয় সদানন্দ বিশ্বনাথসৈয়দ কিরমানী অনুপস্থিত ছিলেন। দিল্লির একমাত্র ইনিংসে নন্দন তিন ক্যাচ ও এক স্ট্যাম্পিংস মোট চারটি আউটের সাথে নিজেকে জড়িয়ে রাখেন।[৪]

আম্পায়ার[সম্পাদনা]

১৯৯৯-২০০০ মৌসুমে রঞ্জি ট্রফিতে আম্পায়ার হিসেবে অভিষেক ঘটে তার। হরিয়ানা-জম্মু ও কাশ্মিরের মধ্যকার দু'টি খেলা পরিচালনা করেন তিনি।[৫][৬] এরপর থেকেই রঞ্জি ট্রফি, ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগের খেলাসহ ভারতের বিভিন্ন ঘরোয়া প্রতিযোগিতায় আম্পায়ারের দায়িত্ব পালন করছেন। ডিসেম্বর, ২০০৩ সালে মহিলাদের ওডিআইয়ে ভারত-নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার খেলায় আম্পায়ারের দায়িত্বে ছিলেন যা অদ্যাবধি তার একমাত্র আন্তর্জাতিক হিসেবে রয়েছে।[৭] ২০১১-১২ মৌসুমের শুরুতে সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজ ভারত সফরে আসলে ওডিআই সিরিজে নন্দন মাঝে-মধ্যেই সংরক্ষিত আম্পায়ারের দায়িত্ব পালন করতেন।[৮] এরপর ২০১২-১৩ মৌসুমে সফরকারী ইংল্যান্ডের মধ্যকার টেস্ট সিরিজেও একই দায়িত্বে ছিলেন।[৯] ২০১৪ সালে বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত এশিয়া কাপে চূড়ান্ত খেলাসহ চারটি খেলায় তৃতীয় আম্পায়ার ছিলেন।[১০] ৫ অক্টোবর, ২০১৫ তারিখে ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকার মধ্যকার টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিকের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তিনি তার প্রথম খেলা পরিচালনা করেন।[১১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Miscellaneous matches played by CK Nandan – CricketArchive. Retrieved 25 May 2015.
  2. First-class matches played by CK Nandan – CricketArchive. Retrieved 25 May 2015.
  3. Hyderabad v Karnataka, Ranji Trophy 1983/84 (South Zone) – CricketArchive. Retrieved 25 May 2015.
  4. Karnataka v Delhi, Ranji Trophy 1984/85 (Semi-Final) – CricketArchive. Retrieved 25 May 2015.
  5. CK Nandan as umpire in first-class matches – CricketArchive. Retrieved 25 May 2015.
  6. CK Nandan as umpire in List A matches – CricketArchive. Retrieved 25 May 2015.
  7. CK Nandan as umpire in women's ODI matches – CricketArchive. Retrieved 25 May 2015.
  8. CK Nandan as reserve umpire in ODI matches – CricketArchive. Retrieved 25 May 2015.
  9. CK Nandan as reserve umpire in Test matches – CricketArchive. Retrieved 25 May 2015.
  10. CK Nandan as TV umpire in ODI matches – CricketArchive. Retrieved 25 May 2015.
  11. "South Africa tour of India, 2nd T20I: India v South Africa at Cuttack, Oct 5, 2015"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০১৫ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]