রুপি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
যেসব দেশের সরকারি মুদ্রার নাম রুপি

রুপি বলতে বোঝায় ভারতীয় মুদ্রা, ইন্দোনেশীয়, মালদ্বীপ, মরিশাস, নেপালি, পাকিস্তানি, সিশেলস, শ্রীলঙ্কা এবং পুরনো আফগানিস্তান, তিব্বত, বার্মা এবং ব্রিটিশ পূর্ব আফ্রিকা, জার্মান পূর্ব আফ্রিকা এবং ট্রুসিয়াল রাজ্যসমূহে প্রচলিত মুদ্রা

মালদ্বীপে মুদ্রার একক হলো রুফিয়াহ যা সংস্কৃত শব্দ রুপিয়ার সহজাত। ভারতীয় রুপি () এবং পাকিস্তানি রুপিকে (রুপি) ১০০ পয়সায় ভাগ করা যায়। মরিশীয় ও শ্রীলঙ্কার রুপি ভাগ করা হয় ১০০ সেন্টে। আর নেপালি রুপিকে ভাগ করা হয় ১০০ পয়সা বা ৪ সুখা অথবা ২ মোহরে।

বুৎপত্তি[সম্পাদনা]

"রুপি" শব্দটি এসেছে সংস্কৃত রুপিয়া থেকে, যার অর্থ "পেটা রুপা, রৌপ্যমুদ্রা"।[১] এটি এসেছে বিশেষ্য শব্দ রূপা থেকে, যার অর্থ "রূপ, গঠন, সাদৃশ্য, ছবি"। আবার রূপা শব্দটির উৎস ভাবা হয় দ্রাবিড় শব্দ উরুপ্পু, যার অর্থ "দেহের একটি সদস্য"।[২]

শের শাহ সুরি ১৫৪০ থেকে ১৫৪৫ পর্যন্ত তার স্বল্প শাসনকালে উত্তর ভারতে প্রচলন করেন প্রথম রুপিয়া, ১৭৮ গ্রেন ওজনের রৌপ্যমুদ্রা।[৩] এছাড়াও তিনি দাম নামের তাম্রমুদ্রা এবং ১৬৯ গ্রেন ওজনের মোহর বা স্বর্ণমুদ্রা চালু করেন।[৪]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

খ্রিষ্টপূর্ব ৩য় শতকে চাকা ও হাতির প্রতীকযুক্ত রুপিয়ারুপা নামক মৌর্য সাম্রাজ্যের রৌপ্যমুদ্রা
ফরাসি ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি পন্ডিচেরীতে উত্তর ভারতীয় বাণিজ্যের জন্য মুহাম্মদ শাহের (১৭১৯-১৭৪৮) নামে রুপি প্রচলন করে।

ভারতীয় রুপি প্রথম পরিচিত, প্রচলিত এবং কথিত হয় রুপিয়া নামে, শের শাহ সুরির (১৫৪০-১৫৪৫) এই রৌপ্যমুদ্রা মুঘল শাসকেরাও বহাল রাখেন।[৫] রুপির ইতিহাসের সূচনা প্রাচীন ভারতে সিরকা খ্রিষ্টপূর্ব ৩য় শতকে। চীনা ওয়েন, মধ্যপ্রাচ্যের মুদ্রা এবং লিডিয়ান স্টাটার সহ বিশ্বের সবচেয়ে পুরাতন কিছু মুদ্রা প্রাচীন ভারতে প্রচলিত ছিল।[৬] শব্দটি এসেছে সংস্কৃত শব্দ রূপয়া থেকে যার অর্থ রৌপ্যমুদ্রা,[৭] আর সেটা এসেছে সংস্কৃত রূপ মানে "সুন্দর গঠন" থেকে।[৮]

১৮৯১সালের পূর্বে আফগানিস্তানে আফগান রুপি হিসেবে কাবুলী রুপি এবং কান্দাহারি রুপি ব্যবহৃত হতো। আফগান রুপিকে ৬০ পয়সায় ভাগ করা হতো। ১৯২৫ সালে এর পরিবর্তে আফগান আফগানী মুদ্রা প্রচলিত হয়।

২০ শতকের মধ্যভাগ পর্যন্ত তিব্বতের সরকারি মুদ্রাকে তিব্বতী রুপিও বলা হতো।[৯]

ভারতীয় রুপি দুবাই এবং কাতারে সরকারি মুদ্রা হিসেবে চালু ছিল ১৯৫৯ সাল পর্যন্ত, যখন ভারত নতুন গাল্ফ রুপি ("এক্সটার্নাল রুপি"ও বলা হয়) প্রচলন করে স্বর্ণপাচার রোধ করার জন্য।[১০] ১৯৬৬ সাল পর্যন্ত গাল্ফ রুপি বৈধ মুদ্রা হিসেবে চলে, এরপর ভারত তাৎপর্যপূর্ণভাবে ভারতীয় রুপির মূল্যহ্রাস করে এবং অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা বজায় রাখার জন্য নতুন কাতার-দুবাই রিয়াল প্রতিষ্ঠা করা হয়।[১০]

পূর্ব আফ্রিকার উপকূল এবং দক্ষিণ আরব[সম্পাদনা]

পূর্ব আফ্রিকা, আরব এবং মেসোপটেমিয়ায় রুপি ও এর সম্পূরক মুদ্রাসমূহ বিভিন্ন সময় প্রচলিত ছিল। পূর্ব আফ্রিকায় রুপির ব্যবহার উত্তরে সোমালিয়া থেকে দক্ষিণে নাটাল উপনিবেশ পর্যন্ত ধিস্তৃত হয়েছিল। মোজাম্বিতে ব্রিটিশ ভারতীয় রুপিসমূহ ওভারস্ট্যাম্প করা হতো। ব্রিটিশ পূর্ব আফ্রিকা কোম্পানি সেখানে রুপি ও এর ভগ্নাংশ এবং পয়সা প্রবর্তন করে।

প্রথম বিশ্বযুদ্ধের পরপরই রুপার দাম বেড়ে যাওয়ায় রুপির মূল্যমান হয়ে যায় দুই শিলিং স্টার্লিং। এই সুযোগে ১৯২০ সালে ব্রিটিশ পূর্ব আফ্রিকায় নতুন ফ্লোরিন মুদ্রা চালু করা হয় এবং এটিকে স্টার্লিংয়ের মানে তোলা হয়। অল্পকাল পরেই, ফ্লোরিনকে দুই শিলিংয়ে ভাগ করা হয়। ব্রিটিশ ভারতে অবশ্য এরকম স্টার্লিংয়ে আত্তীকরণ করা হয়নি। সোমালিয়ায় ইতালীয় ঔপনিবেশিক কর্তৃপক্ষ ঠিক একই মানের উদ্রা রুপিয়া চালু করে এবং পয়সার নাম দেয় 'বেসা'।

স্ট্রেইটস সেটলমেন্টস[সম্পাদনা]

স্ট্রেইটস সেটলমেন্টগুলো ছিল মূলত ব্রিটিশ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির আউটলাইয়ার। আর ১৯ শতকে ব্রিটিশদের আগমনের পূর্বে স্পেনীয় ডলার সেখানকার কর্তৃত্ব নিয়ে নেয়। ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি এর বদলে রুপি চালু করতে চাইলেও স্থানীয় জনগণ তার বিরোধিতা করে। যখন ১৮৬৭ সালে কোম্পানির কাছ থেকে ব্রিটিশ সরকার এসব স্ট্রেইট সেটলমেন্টের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেয়, মুদ্রা হিসেবে রুপি প্রচলনের চেষ্টা বাদ দেয়া হয়।

ডিনোমিনেশন[সম্পাদনা]

আগে রুপিকে (11.66 g, .917 খাঁটি রুপা) ভাগ করা হতো ১৬ আনা, ৬৪ পয়সা বা ১৯২ পাইতে। রুপিকে দশমিকে রূপান্তরের পূর্বপর্যন্ত ব্রিটিশ ভারতের সব মুদ্রারই ভিন্ন ভিন্ন নাম ছিল। এক পয়সা সমান ছিল দুই ঢেলা, তিন পাই এবং ছয় দামারিস। দুই পয়সা (টাকা), দুই আনা (দাওয়ান্নি), চার আনা (চাওয়ান্নি, বা রুপির এক-চতুর্থাংশ), আট আনা (আটানি, বা অর্ধ রুপি) প্রভৃতি ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়েছে ১৯৬১ সালে দশমিকায়ন করার পূর্বে। এসব মুদ্রার নামগুলো দিয়ে উর্দু আনাতে তাদের মূল্যমান বোঝা যায়, টাকা (দুই পয়সা বা অর্ধ আনা) বাদে। পূর্ব পাকিস্তানে (বর্তমান বাংলাদেশ) "রুপি"র বদলে টাকা শব্দটি ব্যবহার করা হতো, কিন্তু পশ্চিম পাকিস্তানে টাকা বলতে বোঝানো হতো দুই পয়সা।

টঙ্কা একটি প্রাচীন সংস্কৃত শব্দ, যার অর্থ টাকা। বছরে বছরে রুপির মূল্যমান কমে যাওয়ায় দশমিক রুপির ভগ্নাংশের প্রচলন বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। বর্তমানে[কখন?] ব্যাংক নোট এবং ৫ ও ১০ রুপির কিছু কয়েন কদাচিৎ ব্যবহৃত হয়, বরং কাগজী মুদ্রাই অর্থ লেনদেনের প্রায় একমাত্র উপায়। রুপির ভগ্নাংশগুলোর এখন কেবল ঐতিহাসিক মূল্য আছে, ব্যবহার নেই। পশ্চিম পাকিস্তানে এক টাকা মানে ছিল দুই পয়সা কিন্তু পূর্ব পাকিস্তানে রুপিকে টাকা বলা হতো। ১৯৭১ সালে স্বাধীনতার পর, বাংলাদেশের মুদ্রাকে সরকারিভাবে টাকা বলা হতে থাকে।

১৯ শতকের শুরুর দিকে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির রুপিগুলো অস্ট্রেলিয়ায় সীমিত সময়ের জন্যে ব্যবহৃত হয়েছিল। মুদ্রার দশমিকায়ন করা হয় সিলনে (শ্রীলঙ্কা) ১৯৬৯ সালে, ভারতে ১৯৫৭ সালে এবং পাকিস্তানে ১৯৬১ সালে। এভাবে, একটি ভারতীয় রুপিকে এখন ১০০ পয়সায় ভাগ করা যায়। এই পয়সাকে প্রায়ই বলা হয় নয়া পয়সা, মানে "নতুন টাকা"। ভারতীয় মুদ্রার প্রচলন নিয়ন্ত্রণ করে ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাঙ্ক এবং পাকিস্তানে স্টেস ব্যাঙ্ক অফ পাকিস্তান। রুপির সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত প্রতীক হলো "Rs"। তবে ভারত ২০১০ সালের ১৫ জুলাই রুপির জন্য নতুন একটি প্রতীক গ্রহণ করেছে।

ভারতের অধিকাংশ অঞ্চলে রুপিকে বলা হয় রুপায়া, রুপায়ে বা সংস্কৃত রৌপ্য হতে উদ্ভূত অন্য যেকোনো শব্দ। বাংলা ও আসামি ভাষায়, আসাম, ত্রিপুরা এবং পশ্চিমবঙ্গে রুপিকে বলা হয় টাকা, এবং সেভাবেই ভারতীয় ব্যাংকনোটে লেখা আছে। ওড়িশা অঞ্চলে একে বলা হয় টাঁকা/তংখা। ভারতে মুদ্রা প্রচলন করা হয় ১, ২, ৫, ১০, ২০, ৫০, ১০০, ৫০০ এবং ২০০০ রুপির মূল্যমানে, অবশ্য শেষ নোটদুটি সম্প্রতি ভারত সরকার বাতিল করেছে।

বড় অঙ্কের রুপির মূল্য হিসাব করতে ব্যবহার করা হয় লাখ (১০০,০০০ = ১ লাখ, ১০০ লাখ = ১ কোটি/ক্রোড়, ১০০ কোটি/ক্রোড় = ১ আরব, ১০০ আরব = ১ খারাব/খ্রাব, ১০০ খারাব/খ্রাব = ১ নিল/নীল, ১০০ নিল/নীল = ১ পদ্মা, ১০০ পদ্মা = ১ শঙ্খ, ১০০ শঙ্খ = ১ উদপাধা, ১০০ উদপাধা = ১ অঙ্ক/আঁক)। কোটির বেশি অর্থের শব্দগুলো সাধারণত টাকার ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়না, যেমন Rs ১০ খারাবের পরিবর্তে বলা হয় Rs ১ লাখ কোটি (১ ট্রিলিয়নের সমান)।

প্রতীক[সম্পাদনা]

রুপি চিহ্ন "₨" হলো একটি মুদ্রা চিহ্ন যা ব্যবহার করে শ্রীলঙ্কা, নেপাল, মরিশাস, সিশেলিয়াস, পাকিস্তানি এবং মালদ্বীপে অর্থের একক বোঝানো হয়। এই চিহ্নটি ল্যাটিন বর্ণ "Rs" বা "Rs."-এর অনুরূপ এবং প্রায়ই পরবর্তী চিহ্নগুলো ব্যবহৃত হয়।

রুপি প্রতীকটি ইউনিকোড ক্যারেক্টারে এনকোড করা হয় U+20A8 হিসেবে (কিছু ফন্ট, যেমন মাইক্রোসফট সানস শেরিফ, চিহ্নটির বদলে ইউনিকোডের ভুল প্রতীক "Rp" ব্যবহার করে)। অর্থের পরিমাণ লেখার ক্ষেত্রে অঙ্কগুলোর পূর্বে উপসর্গ হিসেবে এই চিহ্ন বসিয়ে রুপির মুদ্রামান বোঝানো যায়, যেমন- "Re: ১" (এক এককের জন্য), বা "Rs. ১৪০" (এক রুপির বেশি হলে)। রুপি চিহ্নটি আগে ব্যবহৃত হতো ভারতীয় রুপি বোঝাতে। কিন্তু ২০১০ সালের ১৫ জুলাই থেকে এর বদলে ব্যবহার করা শুরু হয় ভারতীয় টাকার প্রতীক, ₹। নতুন চিহ্নটির গডন হলো দেবনাগরী অক্ষর र (রা) এবং লাতিন বড়হাতের অক্ষর R তার খাড়া দাগটি ছাড়া, সমান্তরাল দাগগুলো ওপরে (তাদের মধ্যে ফাঁকা অংশসহ)। এসব বৈশিষ্ট্য ত্রিরঙা ভারতীয় পতাকার ইঙ্গিতপূর্ণ বলে বলা হয়েছে।[১১] আর এটি সাম্যের চিহ্ন তুলে ধরেছে যা ভারতীয়দের অর্থনৈতিক বৈষম্য দূর করার ইচাছার প্রতীক।

ইংরেজিতে রুপিকে সংক্ষেপে লেখা হয় Re. (একবচন), Rs. (বহুবচন) এবং ভারতীয় রুপির ক্ষেত্রে ₹ (ভারতীয় টাকার প্রতীক)। শ্রীলঙ্কার রুপিকে সিংহলি ভাষায় "රු" প্রতীকে চিহ্নিত করা হয়।

মূল্যমান[সম্পাদনা]

রুপির ইতিহাস খুঁজে পাওয়া যায় প্রাচীন ভারতে খ্রিষ্টপূর্ব ৬ষ্ঠ শতকে। চীনা ওয়েন এবং লিডিয়ান স্টাটার সহ বিশ্বের সবচেয়ে পুরাতন কিছু মুদ্রা প্রাচীন ভারতে প্রচলিত ছিল।

রুপি মুদ্রা তখন থেকেই ব্যবহৃত হচ্ছে, এমনকি ব্রিটিশ ভারতেও, যখন এতে থাকত ৯১.৭% রুপার ১১.৬৬ গ্রাম এবং এক ট্রয় আউন্সের ০.৩৪৩৭ গ্রামের এএসইউ[স্পষ্টকরণ প্রয়োজন][১২] (বর্তমান মূল্যে ১০ মার্কিন ডলারের সমান)।[১৩] ১৯ শতকের শেষাংশে, স্বর্ণ বিনিময় স্ট্যান্ডার্ড অনুসারে ভারতীয় একটি রৌপ্য রুপির মূল্য স্থির করা হয় এক শিলিং এশং চার পেন্স ব্রিটিশ মুদ্রা, অর্থাৎ ১৫ রুপিতে এক পাউন্ড স্টার্লিং

রুপার পরিমাণের ভিত্তিতে রুপির মূল্যায়ন ১৯ শতকে তীব্র প্রভাব ফেলেছিল, যেহেতু তখন বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী অর্থনীতিগুলো চলতো স্বর্ণের পরিমাপে। কিন্তু আমেরিকা ও বিভিনান ইউরোপীয় উপনিবেশে বিপুল পরিমাণ রুপা আবিষ্কারের পর স্বর্ণের তুলনায় এর মূল্যমান অনেক কমে যায়।

দেশ মুদ্রা ISO 4217 কোড মার্কিন ডলারের মূল্য
(২০১৬ সালের ডিসেম্বরে)
 India ভারতীয় রুপি INR 7001677300000000000৬৭.৭৩
 Indonesia ইন্দোনেশীয় রুপিয়াহ IDR Rp 7004130240000000000১৩,০২৪
 Maldives লদ্বীপিয় রুফিয়া MVR Rf 7001128000000000000১২.৮০
 Mauritius মরিশীয় রুপি MUR Rs 7001356500000000000৩৫.৬৫
 Nepal নেপালি রুপি NPR रू 7002106760000000000১০৬.৭৬
 Pakistan পাকিস্তানি রুপি PKR Rs 7002104670000000000১০৪.৬৭
 Seychelles সিশেলয়িস রুপি SCR SR 7001132000000000000১৩.২০
 Sri Lanka শ্রীলঙ্কান রুপি LKR රු 7002147040000000000১৪৭.০৪

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Etymology of rupee"। etymonline.com। ২০ সেপ্টেম্বর ২০০৮। সংগৃহীত ২০ সেপ্টেম্বর ২০০৮ 
  2. Robert Caldwell। "A comparative grammar of the Dravidian or South-Indian family of languages"।  The book states: Tamil noun uruppu, a member of the body, the body itself, a form — e.g., the sign of a case is called the uruppu of the case. Dr Gundert does not doubt that the Sanskrit rdpa is derived from this Dravidian uruppu, even though uriivu may be a tadbhava of rUpa. -- archive.org.
  3. Picture of original Mughal rupiya introduced by Sher Shah Suri
  4. Mughal Coinage at RBI Monetary Museum. Retrieved 4 May 2008.
  5. "Mughal Coinage"। "Sher Shah issued a coin of silver which was termed the RUPIYA. This weighed 178 grains and was the precursor of the modern rupee. It remained largely unchanged till the early 20th Century" 
  6. Subodh Kapoor (জানুয়ারি ২০০২)। The Indian encyclopaedia: biographical, historical, religious ..., Volume 6। Cosmo Publications। পৃ: ১৫৯৯। আইএসবিএন 81-7755-257-0 
  7. Turner, Sir Ralph Lilley (১৯৮৫) [London: Oxford University Press, ১৯৬২–১৯৬৬.]। "A Comparative Dictionary of the Indo-Aryan Languages"Includes three supplements, published 1969–1985.। Digital South Asia Library, a project of the Center for Research Libraries and the University of Chicago। সংগৃহীত ২৬ আগস্ট ২০১০। "rū'pya 10805 rū'pya 'beautiful, bearing a stamp' ; 'silver'" 
  8. Turner, Sir Ralph Lilley (১৯৮৫) [London: Oxford University Press, ১৯৬২–১৯৬৬.]। "A Comparative Dictionary of the Indo-Aryan Languages"Includes three supplements, published 1969–1985.। Digital South Asia Library, a project of the Center for Research Libraries and the University of Chicago। সংগৃহীত ২৬ আগস্ট ২০১০। "rūpá 10803 'form, beauty'" 
  9. Theodore Roosevelt; Kermit Roosevelt (১৯২৯)। Trailing the giant panda। Scribner। "... The currency in general use was what was known at the Tibetan rupee ..." 
  10. Richard F. Nyrop (২০০৮)। Area Handbook for the Persian Gulf States। Wildside Press। আইএসবিএন 1-4344-6210-2। "... The Indian rupee was the principal currency until 1959, when it was replaced by a special gulf rupee to halt gold smuggling into India ..." 
  11. "Indian Rupee Joins Elite Currency Club"। Theworldreporter.com। ১৭ জুলাই ২০১০। 
  12. Krause, Chester L., and Clifford Mishler (২০০৪)। Standard Catalog of World Coins: 1801–1900। Colin R. Bruce II (senior editor) (4th সংস্করণ)। Krause Publications। আইএসবিএন 0873497988 
  13. "Equivalent of 0.343762855 troy ounce of silver in U.S. dollar"। xe.com। ২ অক্টোবর ২০০৬। সংগৃহীত ২ অক্টোবর ২০০৬ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

  •  চিসাম, হিউ, সম্পাদক (১৯১১)। "rupee"। ব্রিটিশ বিশ্বকোষ (১১তম সংস্করণ)। কেমব্রিজ ইউনিভার্সিটি প্রেস [[বিষয়শ্রেণী:উইকিসংকলনের তথ্যসূত্রসহ ১৯১১ সালের এনসাইক্লোপিডিয়া ব্রিটানিকা থেকে উইকিপিডিয়া নিবন্ধসমূহে একটি উদ্ধৃতি একত্রিত করা হয়েছে]]