ম্যাসাচুসেট্‌স ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
ম্যাসাচুসেটস ইন্সটিটিউট অফ টেকনোলজি
MIT Seal.png
নীতিবাক্য "Mens et Manus" (Latin for "Mind and Hand")
ধরন ব্যক্তি-মালিকানাধীন
স্থাপিত ১৮৬১ (১৮৬৫-তে উদ্বোধিত)
বৃত্তিদান $১১ বিলিয়ন (২০১৩)[১]
আচার্য ফিলিপ ক্লে
সভাপতি লিও রাফায়েল রেইফ
প্রভোস্ট ক্রিস এ. ক্যায়সার
অ্যাকাডেমিক কর্মকর্তা
১,০১৮
স্নাতক ৪,৩৮৪
স্নাতকোত্তর ৬,৫১০
অবস্থান কেমব্রিজ, ম্যাসাচুসেট্‌স, যুক্তরাষ্ট্র
শিক্ষাঙ্গন নগরাঞ্চল, ১৬৮ একর (০.৭ কিমি)
নোবেল লরিয়েট ৭৮
রঙসমূহ Cardinal Red and Gray         
সংক্ষিপ্ত নাম এমআইটি
ম্যাসকট Beaver
ওয়েবসাইট web.mit.edu
MIT Logo

ম্যাসাচুসেট্‌স ইন্সটিটিউট অফ টেকনোলজি (এমআইটি) মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেট্‌স অঙ্গরাজ্যের কেমব্রিজে অবস্থিত একটি বেসরকারি প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, যেটাকে পৃথিবীর সবথেকে মর্যাদাপূর্ণ একটি বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে গণ্য করা হয়।[২][৩][৪][৫]

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ক্রমবর্ধমান শিল্পায়ন প্রতিক্রিয়ার ফলশ্রুতিতে ১৮৬১ সালে প্রতিষ্ঠিত, এমআইটি ইউরোপীয় পলিটেকনিক বিশ্ববিদ্যালয় মডেল গ্রহণ করে এবং ফলিত বিজ্ঞান ও প্রকৌশলে পরীক্ষাগার কর্মসূচীর উপর জোর দেয়। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ এবং স্নায়ুযুদ্ধের সময় গবেষকরা কম্পিউটার, রাডার এবং নিষ্ক্রিয় নির্দেশিকার উপর কাজ করেন। জেমস কিলান-এর অধীনে যুদ্ধোত্তর প্রতিরক্ষা গবেষণা এর আওতায় অনুষদ এবং ক্যাম্পাস দ্রুত সম্প্রসারণে অবদান রাখে। ১৯১৬ সালে বর্তমান ১৬৮-একর (৬৮.০ হেক্টর) ক্যাম্পাস চালু করা হয় এবং চার্লস নদী অববাহিকার উত্তর তীর বরাবর ১ মাইল (১.৬ কিমি) প্রসারিত করা হয়।

প্রতিষ্ঠানটি ঐতিহ্যগতভাবে ভৌত বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিদ্যায় গবেষণা এবং শিক্ষার জন্য পরিচিত, পাশাপাশি সাম্প্রতিক কালে জীববিদ্যা, অর্থনীতি, ভাষাবিদ্যা, এবং ব্যবস্থাপনার জন্যও পরিচিত। এমআইটি আমেরিকান বিশ্ববিদ্যালয়ের এসোসিয়েশনের (এএইউ) সদস্য এবং আমস্টারডাম ইনস্টিটিউট ফর এডভান্সড মেট্রোপলিটন সলিউশন (এএমস ইনস্টিটিউট) এর প্রতিষ্ঠাতা সদস্য। বিগত কয়েক বছর ধরে, এমআইটির স্কুল অব ইঞ্জিনিয়ারিং বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর তালিকায় প্রথম স্থান দখল করে আসছে, এবং ইনস্টিটিউটটি বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে প্রায়শই স্থান করে নিয়েছে।[২][৩][৪][৫] প্রকৌশলীর ৩১টি ক্রীড়া ইভেন্টে প্রতিযোগিতা করে, যার বেশীরভাগ দল এনসিএএ ডিভিশন তিন এর নিউ ইংল্যান্ড উইমেনস এন্ড মেন্স অ্যাথলেটিক কনফারেন্স-এ প্রতিযোগিতা করে; ইএআরসি এবং ইএডব্লিউআরসির অংশ হিসেবে ডিভিশন এক রোয়িং প্রোগ্রাম প্রতিযোগীতায় অংশ নেয়।

২০১৫ সাল অনুযায়ী, ৮৫ জন নোবেল বিজয়ী, ৫২ জন ন্যাশনাল মেডেল অব সায়েন্স বিজেতা,৬৫ জন মার্শাল স্কলার, ৪৫ জন রোডস স্কলার, ৩৮ জন ম্যাকআর্থার ফেলো, ৩৪ জন মহাকাশচারী, ১৯ জন টুরিং পুরস্কার বিজয়ী, ১৬ জন মার্কিন বিমান বাহিনীর প্রধান বিজ্ঞানী এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্ষেত্রসমূহে ৬ জন পদক বিজয়ী এমআইটির সাথে সম্বন্ধযুক্ত রয়েছেন।

স্কুলটির একটি শক্তিশালী উদ্যোক্তা সংস্কৃতি রয়েছে, এবং এমআইটির প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের প্রতিষ্ঠিত কোম্পানিসমূহের সামগ্রিক আয় বিশ্বের একাদশ বৃহত্তম অর্থনীতি হিসেবে স্থান করে নিয়েছে।[৬][৭]

গ্রন্থাগার[সম্পাদনা]

এমআইটি'র গ্রন্থাগারসমূহে ২৯ লক্ষ মুদ্রিত গ্রন্থ রয়েছে।[৮] রয়েছে ২৪ লক্ষ মাইক্রোফর্ম(ক্ষুদ্রাকারে ছবি তোলার ফিল্মবিশেষ), ৪৯,০০০ ছাপানো বা ইলেক্ট্রনিক জার্নাল কপি, ৬৭০টি রেফারেন্স ডাটাবেইস!

গবেষণা[সম্পাদনা]

ঐতিহ্য এবং শিক্ষার্থীদের কার্যক্রম[সম্পাদনা]

কার্যক্রম[সম্পাদনা]

র‍্যাংকিং[সম্পাদনা]

কৃতি শিক্ষার্থী[সম্পাদনা]

কৃতি শিক্ষক[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

  1. "MIT releases endowment figures for 2013"। MIT News। সংগৃহীত সেপ্টেম্বর ১৩, ২০১৩ 
  2. Altaner, David (মার্চ ৯, ২০১১)। "Harvard, MIT Ranked Most Prestigious Universities, Study Reports"। Bloomberg। সংগৃহীত ২০১৫-০৪-০১ 
  3. Morgan, John। "Top Six Universities Dominate THE World Reputation Rankings"। ""The rankings suggest that the top six - Harvard University, Massachusetts Institute of Technology, the University of Cambridge, University of California, Berkeley, Stanford University and the University of Oxford - form a group of globally recognised "super brands"." 
  4. "Massachusetts Institute of Technology"। Encyclopedia.com। "It has long been recognized as an outstanding technological institute and its Sloan School of Management has notable programs in business, economics, and finance." 
  5. "Massachusetts Institute of Technology"। Encyclopædia Britannica। সংগৃহীত নভেম্বর ১৮, ২০১৪। "Massachusetts Institute of Technology (MIT), privately controlled coeducational institution of higher learning famous for its scientific and technological training and research." 
  6. "Entrepreneurial Impact The Role of MIT"http://www.kauffman.org/। Ewing Marion Kauffman Foundation। ২০০৯-০২-১৭। সংগৃহীত ২০১৫-০৬-০২ 
  7. [Nobel total: 85 (List generated 10-07-2015) http://web.mit.edu/ir/pop/awards/nobel.html]
  8. http://web.mit.edu/annualreports/pres09/2009.13.00.pdf
Great Dome, Massachusetts Institute of Technology, Cambridge MA.jpg