মুক্ত-সংস্কৃতি আন্দোলন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
Lawrence Lessig standing at a podium with a microphone, with a laptop computer in front of him.
লরেন্স লেসিগ, মুক্ত সংস্কৃতি আন্দোলনের প্রভাবশালী কর্মী, ২০০৫ সালে।

মুক্ত-সংস্কৃতি আন্দোলন একটি সামাজিক আন্দোলন যা অন্যের সৃজনশীল কাজগুলিকে বিনামূল্যে সামগ্রী [১][২] বা উন্মুক্ত সামগ্রী হিসাবে বিতরণ, সংশোধন এবং প্রচার করার অবাধ স্বাধীনতা প্রদাণ করা| [৩][৪][৫] জ্ঞান-বিজ্ঞান, শিক্ষা কিংবা গবেষণার স্বার্থে কোন প্রকার ক্ষতিপূরণ ছাড়াই, ইন্টারনেট এবং অন্যান্য ধরনের মিডিয়ার ব্যবহার সর্বসাধারণের জন্য নিশ্চিত করা মুক্ত-সংস্কৃতি আন্দোলনের অন্যতম মূখ্য বিষয়। যেখানে সৃজনশীল কর্ম বা সামগ্রীর মূল প্রণেতা তার প্রণীত সৃজনশীল কাজগুলির উপর কোন রকম বিধিনিষেধ আরোপ না করা এবং জনকল্যাণের স্বার্থে সবার জন্য উন্মুক্ত ব্যবহার করার সম্মতি প্রদান করা।

এই আন্দোলনটি কোন সৃজনশীল কর্মের উপর অতিরিক্ত-সীমাবদ্ধতা ও কপিরাইট আইন বিবেচনা করে তাতে আপত্তি জানায়। আন্দোলনের অনেক সদস্য যুক্তি দেখান যে এই জাতীয় আইন সৃজনশীলতাকে বাধা দেয়। [৬] যার ফলে মুক্ত জ্ঞান-বিজ্ঞান চর্চা ও তার বিকাশকে বাধাগ্রস্থ করছে। তারা এই সিস্টেমটিকে " অনুমতি সংস্কৃতি " বলে। [৭]

লরেন্স লেসিগ কর্তৃক শুরু করা ক্রিয়েটিভ কমন্স হল এমন একটি সংস্থা যা সকল পর্যায়ের ব্যক্তি বা গোষ্ঠীকে বিভিন্ন শর্তে শেয়ারিং এবং রিমিক্সিংয়ের অনুমতি দেয় এমন লাইসেন্স সরবরাহ করে এবং বিভিন্ন ক্রিয়েটিভ কমন্স-লাইসেন্সকৃত কাজের একটি অনলাইন অনুসন্ধানও সরবরাহ করে।

মুক্ত সংস্কৃতি আন্দোলন, মুক্ত ধারণা ও মুক্ত-উৎস-সফ্টওয়্যার আন্দোলনের পাশাপাশি মুক্ত ও অ্যাক্সেস (ওএ), রিমিক্স সংস্কৃতি, হ্যাকার সংস্কৃতি সহ অন্যান্য আন্দোলন এবং তাদের দর্শনগুলির সমন্বয়সাধন করা হয়েছে। যেমন, জ্ঞান আন্দোলনের অ্যাক্সেস, কপিলিফ্ট আন্দোলন এবং পাবলিক ডোমেন মুভমেন্ট ইত্যাদি।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

প্রাথমিক পর্যায়[সম্পাদনা]

১৯৬০ এর দশকের শেষদিকে, স্টুয়ার্ট ব্র্যান্ড হোল আর্থ ক্যাটালগ প্রতিষ্ঠা করেছিল এবং যুক্তি দিয়েছিলেন যে প্রযুক্তি নিপীড়নের পরিবর্তে স্বাধীন হতে পারে। তিনি " তথ্য মুক্ত হতে চায় " স্লোগানটি দিয়ে ১৯৮৪ সালে একটি প্রতিরোধ গড়ে তুলেন। যেখানে তিনি বলেন সরকারী নিয়ন্ত্রণ দ্বারা তথ্যের অ্যাক্সেসকে সীমাবদ্ধ করে ফেলে।

মুক্ত-সংস্কৃতি আন্দোলন গঠনের পটভূমি[সম্পাদনা]

১৯৯৮ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসসে সনি বোনো কপিরাইট টার্ম এক্সটেনশন আইন নামে একটি আইন পাস করা হয়, যাতে রাষ্ট্রপতি ক্লিনটন স্বাক্ষর করেন। এই আইনটি বিশ বছর অতিরিক্ত কপিরাইট সুরক্ষা প্রসারিত করেছিল, যার ফলে স্রষ্টার মৃত্যুর পরে সত্তর বছর পর্যন্ত কপিরাইটের মেয়াদ বহাল থাকবে। বিলটির জন্য ডিজনির মতো সংগীত এবং ফিল্ম কর্পোরেশনগুলিও প্রচুর তদবির করেছিল এবং এটিকে মিকি মাউস সুরক্ষা আইন হিসাবেও বলা হয়ে থাকে। লরেন্স লেসিগ দাবি করেছেন যে এই কপিরাইট হল সাংস্কৃতিক উৎকর্ষ সাধন, গবেষণা ও জ্ঞান ভাগাভাগি এবং প্রযুক্তিগত উদ্ভাবনের ক্ষেত্রে একটি অন্যতম বাধা। এছাড়াও এটি ব্যক্তিগত স্বার্থ - যেমন জনসাধারণের কল্যাণের বিরোধী। [৮] ১৯৯৯ সালে তিনি বিভিন্ন কলেজ ক্যাম্পাসে ঘুরে এবিষয়ে প্রায় শতাধিক বকৃতা দেন এবং এ আন্দোলনের সূচনা করেছিলেন। এটির জন্য স্বার্থমোর কলেজের শিক্ষার্থীদের মাধ্যমে মুক্ত-সংস্কৃতির চর্চার প্রথম অধ্যায়ের সূচনা লাভ করে।

১৯৯৯ সালে লেসিগ সনি বোনো কপিরাইট আইনকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সুপ্রিম কোর্টে যান। জয়ের প্রতি দৃঢ় বিশ্বাস থাকা সত্ত্বেও, "সীমাবদ্ধ" কপিরাইট শর্তাদি সম্পর্কে সংবিধানের বিভিন্ন উদ্ধৃতি দেন। এসত্যেও লেসিগ কেবল মাত্র দুটি মতবিরোধমূলক ভোট পেয়েছিলেন: বিচারপতি স্টিফেন ব্রেকার এবং জন পল স্টিভেন্সের কাছ থেকে।

ক্রিয়েটিভ কমন্সের প্রতিষ্ঠা[সম্পাদনা]

২০০১ সালে লেরিগ ক্রিয়েটিভ কমন্স চালু করেছিলেন যাতে বিকল্প " সাম রাইডস রিজার্ভ" লাইসেন্সিং সিস্টেম ডিফল্টে "সমস্ত অধিকার সংরক্ষিত" কপিরাইট সিস্টেমের জন্য। লেসিগ যে বিষয়ে দৃষ্টিপাত করেন তাহল ন্যায্য প্রকাশ্য ব্যবহার এবং মুক্ত সৃজনশীল কাজগুলোর অংশগ্রহণের স্বার্থে প্রণেতা ও তার সৃজনশীল কাজের সাথে সর্বসাধারণ এবং প্রণেতার সুরক্ষিত সংযোজনের ভারসাম্য রক্ষা করা যাহল রিমিক্স সংস্কৃতি । [৬]

"মুক্ত সংস্কৃতি" শব্দটি মূলত ২০০৩ সাল থেকে ইনফরমেশন সোসাইটি সম্পর্কিত ওয়ার্ল্ড সামিটের সময় ব্যবহৃত হয়েছিল। [৯] ২০০১ সাল থেকে ফ্রান্সের কোপিলিফ্ট এটিটিউট টিম দ্বারা ( মুক্ত আর্ট লাইসেন্স নামে নামকরণ করা হয়েছিল) এটি প্রবর্তিত হয় সম্পূর্ণ মুক্ত লাইসেন্সের আওতাই। যাতে করে সর্বসাধারণ সৃষ্টিশীল শৈল্পিক কার্যে অবাধে অংশগ্রহণ করতে পারে। এরপরে এটি ২০০৪ সালে লরেন্স লেসিগের মুক্ত সংস্কৃতি বইয়ে স্থান পায়। [১০]

আগস্ট ২০০৩-এ ওপেন কনটেন্ট প্রজেক্টে ডেভিড এ উইলে ১৯৯৮ সালের ক্রিয়েটিভ কমন্সকে আগামীর প্রকল্প হিসাবে ঘোষণা করেন এবং পরিচালক হিসাবে যোগদান করেন। [১১][১২]

"বিনামূল্যে সাংস্কৃতিক কাজের সংজ্ঞা"[সম্পাদনা]

২০০৫/২০০৬ সালে মুক্ত সংস্কৃতি আন্দোলন ক্রিয়েটিভ কমন্সকে স্বাধীনতার ন্যূনতম মান না থাকার জন্য এরিক মুলার [১৩] এবং বেনজামিন মাকো হিল সমালোচনা করা হয়। [১৪] " মুক্ত সাংস্কৃতিক কাজের সংজ্ঞা" মূলত এরিক মুলার, লরেন্স লেসিগ, বেনিয়ামিন মাকো হিল এবং রিচার্ড স্টালম্যান সহ অনেকের সহযোগীততে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। [১৫] ২০০৮ সালের ফেব্রুয়ারিতে বেশ কয়েকটি ক্রিয়েটিভ কমন্সের লাইসেন্সগুলি "বিনামূল্যে সাংস্কৃতিক কাজের জন্য অনুমোদিত" হয়েছিল। যেগুলোর নাম সিসি বিওয়াই এবং সিসি বিওয়াই-এসএ (পরে সিসি0 )। [১৬] ক্রিয়েটিভ কমন্স লাইসেন্সগুলো কোন প্রকার বাণিজ্যিক ব্যবহার এবং মৌলিক নয় এমন কাজের অনুমোদন করেনা।

২০১৪ সালের অক্টোবরে ওপেন নলেজ ফাউন্ডেশন তাদের মুক্ত বিষয়বস্তু এবং মুক্ত জ্ঞানের জন্য তার "ওপেন" শব্দটির সজ্ঞায়ন এভাবে করেন যে, "মুক্ত সাংস্কৃতিক কাজের সংজ্ঞা" এবং "ফ্রি"এর সংজ্ঞা একে অন্যের সমার্থক এমনকি মুক্ত উৎস এবং ফ্রি সফটওয়্যার সংজ্ঞার ক্ষেত্রেও । [১৭] অতএব, সিসি বিওয়াই, সিসি বিওয়াই-এসএ এবং সিসি0 এর জন্য একই তিনটি ক্রিয়েটিভ কমন্স লাইসেন্সের উন্মুক্ত সামগ্রী এবং বিনামূল্যে সামগ্রী। [১৮][১৯][২০] ওপেন নলেজ ফাউন্ডেশন অতিরিক্তভাবে ডেটা এবং ডেটাবেসগুলির জন্য তিনটি বিশেষ লাইসেন্স সংজ্ঞায়িত করেছে, তাহলো, ওপেন ডেটা কমন্স পাবলিক ডোমেন ডেডিকেশন এবং লাইসেন্স (পিডিডিএল), ওপেন ডেটা কমন্স অ্যাট্রিবিউশন লাইসেন্স (ওডিসি-বিওয়াই) এবং ওপেন ডেটা কমন্স ওপেন ডেটাবেস লাইসেন্স (ওডিবিএল)।

সংগঠন[সম্পাদনা]

লরেন্স লেসিগ প্রতিষ্ঠিত এই সংগঠনটি সাধারণত সংগঠিত করে ক্রিয়েটিভ কমন্স (সিসি) এর মুক্ত সংস্কৃতির চার্চাকে। সিসি যা প্রসার ও প্রচার করে তাহলো সাংস্কৃতিক সম্প্রসারণ, বৈজ্ঞানিক অগ্রগতি এবং মৌলিক উদ্ভাবনী সৃজনশীল কাজকে।

ছাত্র সংগঠন FreeCulture.org, লেসিগ দ্বারা অনুপ্রাণিত এবং প্রতিষ্ঠিত ২০০৩ দ্য বিল্ডিং ব্লক পুনঃব্যবহারের ও সৃজনশীল কাজের রেমিক্স করার জন্য একটি প্রতীক, এর প্রতীক হিসেবে ব্যবহার করা হয় রিমিক্স সংস্কৃতি ।

প্রশ্নকপিরাইট আর্গানাইজেশন হ'ল আরেকটি সংস্থা যার কার্যক্রম হল "একচেটিয়া বিতরণের মাধ্যমে সৃষ্ট অর্থনৈতিক, শৈল্পিক এবং সামাজিক ক্ষয়ক্ষতি তুলে ধরা এবং শিল্পী ও শ্রোতাদের জন্য কীভাবে স্বাধীনতা-ভিত্তিক বিতরণ আরও ভাল হয়" তা পর্যবেক্ষণ করা।[২১]

প্রশ্নকপিরাইট আর্গানাইজেশন তাদের সংগঠনের মাধ্যমে পরিচিত হন শিল্পী নিনা প্যালের সঙ্গে। যিনি তার অ্যানিমেশন সীতা সিং দ্যা ব্লুস এর মাধ্যমে বহু পুরস্কার লাভ করেন। উন্মুক্ত বিতরণ প্রকল্পের অধীনে এই অ্যানিমেশন ফিল্মটি অন্যতম একটি উদাহরণ। [২২] এই প্রকল্পের নামকরণ করা হয় " সীতা ডিসট্রিবিউশন প্রজেক্ট "। [২৩] এই সংগঠনটির ওয়েবসাইটে বিভিন্ন কপিরাইট, পেটেন্ট এবং ট্রেডমার্ক সম্পর্কিত বিভিন্ন সংস্থান, প্রকাশনা এবং অন্যান্য রেফারেন্স রয়েছে।

ছাত্রদের সংগঠন স্টুডেন্টস ফর ফ্রি কালচারকে মাঝে মাঝে বিভ্রান্তিকরভাবে "মুক্ত সংস্কৃতি আন্দোলন" বলা হয়, তবে এটি এর সরকারী নাম নয়। সংগঠনটি বৃহত্তর আন্দোলনের একটি উপ-অধ্যায়। প্রথম অধ্যায়টি ১৯৯৮ সালে স্বার্থমোর কলেজে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল এবং ২০০৮ সালের মধ্যে এই সংস্থাটির বর্তমান অধ্যায়ের সংখ্যা ছাব্বিশটি। [২৪]

মুক্ত-সংস্কৃতি আন্দোলন মুক্ত এবং ওপেন সোর্স সফ্টওয়্যার আন্দোলকে তাদের আদর্শ হিসেবে গ্রহণ করে এবং তাদের সফ্টওয়্যার থেকে সমস্ত সাংস্কৃতিক এবং সৃজনশীল কাজেকে প্রসারিত করার লক্ষে কাজ করে। ক্রিয়েটিভ কমন্স প্রথম দিকে রিচার্ড স্টলম্যান (প্রতিষ্ঠাতা মুক্ত সফটওয়্যার ফাউন্ডেশন এবং মুক্ত সফটওয়্যার আন্দোলন)সমর্থিত সংগঠন ছিল। পরবর্তীতে উন্নয়নশীল দেশ এবং নমুনা লাইসেন্স সহ বেশ কয়েকটি লাইসেন্স প্রবর্তনের কারণে তিনি তার সমর্থন প্রত্যাহার করে নেন।[২৫] পরে ক্রিয়েটিভ কমন্স এই লাইসেন্সগুলির ক্ষেত্রে কিছুটা সমর্থন পুনরুদ্ধার করতে পেরেছিল।

১৯৯৪ সালের প্রথম দিকে রাম সমুদ্রালার দ্বারা ফ্রি মিউজিক দর্শন [২৬] দ্বারা ওয়েব জনপ্রিয়তার সাথে সাথে মুক্ত-সংস্কৃতি আন্দোলনের একটি অংশ মুক্ত সঙ্গীত আন্দোলন শুরু হয়েছিল। এই আন্দোলনের অনুপ্রেরণা ছিল রিচার্ডের স্টলম্যানের বিনামূল্যে সফ্টওয়্যার ধারণা। যা উন্মুক্ত শিল্প এবং উন্মুক্ত তথ্য আন্দোলনের সাথে সম্মিলিতভাবে "মুক্ত-সংস্কৃতি আন্দোলন" হিসাবে পরিচিতি লাভ করে। মুক্ত সংগীত দর্শন তিনটি বিষয়ের উপর বিশেষ দৃষ্টিপাত করেন যা স্বেচ্ছায় অনুলিপি প্রচারকে উৎসাহিত করা, রেকর্ডিং ও রচনার অনুলিপিগুলো যাতে নির্ভুল হয় এবং সহজেই ইন্টারনেটের মাধ্যমে বিতরণ করা যায়। পরবর্তী বিনামূল্যে সংগীত আন্দোলনের বিষয়ে বিলবোর্ড,[২৭] ফোর্বস,[২৮] লেবির মূল সংগীত ম্যাগাজিন,[২৯] ফ্রি র‌্যাডিকাল,[৩০] ওয়াইয়ার্ড [৩১][৩২] এবং নিউইয়র্ক টাইমস এর মত ম্যাগাজিন গুলোতে বিভিন্ন বিষয় নিয়মিত প্রকাশিত হয়।[৩৩] ওপেন সোর্স সফ্টওয়্যার এবং লিনাক্স দ্বারা চালিত এক্সপ্লোজিং অব দ্যা ওয়েবের পাশাপাশি, পি 2 পি এবং লসী কমপ্রেশনের উত্থান এবং সঙ্গীত শিল্পের প্রচেষ্টা সত্ত্বেও ফ্রি সংগীত একবিংশ শতাব্দীর গোড়ার দিকে মূলত বাস্তবে পরিণত হয়েছিল। [৩৪] ইলেক্ট্রনিক ফ্রন্টিয়ার ফাউন্ডেশন এবং লরেন্স লেসিগের ক্রিয়েটিভ কমন্সের মতো সংস্থাগুলি কপিরাইট এবং কপিলিফ্টের বিভিন্ন ধরনের অনেক লাইসেন্স তৈরি করছিল। যার ফলে সংগীত কেন সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত হওয়া উচিত সে ধরনের আর কোন প্রশ্ন কারোর ছিলনা, বরং ইন্টারনেটের যুগে সংগীতজ্ঞদের সৃজনশীলতার বিকাশ বৃহৎ পরিসরে ঘটতে থাকে এবং বিভিন্ন মডেল তৈরির মাধ্যমে তাদের উপার্জনের পথ আরো সুগম হয়। [৩৫][৩৬][৩৭]

রিসেপশন[সম্পাদনা]

এফএসএফ থেকে সংশয়বাদ[সম্পাদনা]

প্রথম দিকেমুক্ত সফটওয়্যার ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা রিচার্ড স্টলম্যান সফটওয়্যারের উন্মুক্ততার বিষয়টি খুব একটা গুরুত্বের সঙ্গে দেখেননি।.[৩৮] উদাহরণস্বরূপ ম্যানুয়াল এবং বইগুলির জন্য স্টালম্যান ১৯৯০ এর দশকে বলেছিলেন:

একটি সাধারণ নিয়ম হিসাবে আমি বিশ্বাস করি না যে সমস্ত ধরণের নিবন্ধ এবং বই সংশোধন করার অনুমতি সর্বসাধারণের কাছে থাকা অপরিহার্য। লেখার বিষয়গুলি সাধারণত সফ্টওয়্যারগুলির মতো হয় না। যেমন উদাহরণ হিসেবে বলা যায় যে, আমি মনে করি না আপনি বা আমি এই জাতীয় নিবন্ধ সংশোধন করার অনুমতি দিতে বাধ্য, যা আমাদের ক্রিয়া এবং আমাদের দৃষ্টিভঙ্গি বর্ণনা করে।

একইভাবে, ১৯৯৯ সালে স্টলম্যান বলেছিলেন যে তিনি " সামাজিক ভাবে ফ্রি সফটওয়্যারের জন্য আবশ্যকীয় ফ্রি হার্ডওয়্যার ডিজাইনের প্রয়োজন নেই"। [৩৯] জোশুয়া পিয়ার্সের মতো অন্যান্য লেখকরা যুক্তি দিয়েছেন যে ওপেন-সোর্স-উপযুক্ত প্রযুক্তির ক্ষেত্রে টেকসই বিকাশের জন্য ওপেন সোর্স হার্ডওয়ারের নীতিগত আবশ্যকতা অবশ্যই রয়েছে। [৪০]

পরে, স্টলম্যান তার অবস্থানটি কিছুটা পরিবর্তন করেছিলেন এবং ২০০৯ সালে ফ্রি তথ্য ভাগ করে নেওয়ার পক্ষে পরামর্শ দিয়েছিলেন। [৪১] তবে, ২০১১ সালে স্টালম্যান মেগাআপলোডের প্রতিষ্ঠাতার গ্রেপ্তারের বিষয়ে মন্তব্য করেছিলেন, "আমি মনে করি ব্যবহারিক ব্যবহারের জন্য তা অবশ্যই মুক্ত হতে হবে, তবে এটি সংগীতের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য নয়, যেহেতু সংগীত ব্যবহারিক ব্যবহারের জন্য নয় বরং প্রশংসার জন্য।" [৪২] ফলোআপে স্ট্যালম্যান যে তিনটি বিষয় উল্লেখ করেন তাহল- ব্যবহারিক ব্যবহারের কাজগুলি বিনামূল্যে হওয়া উচিত, দৃষ্টিভঙ্গি উপস্থাপনের কাজগুলি ভাগ করে নেওয়া যায় তবে পরিবর্তনযোগ্য নয় এবং শিল্প বা বিনোদনমূলক কাজগুলি কপিরাইটযুক্ত হওয়া উচিত (তবে কেবল ১০ বছরের জন্য)। [৪৩] ২০১২ সালের একটি প্রবন্ধে স্ট্যালম্যান যুক্তি দিয়েছিলেন যে সফ্টওয়্যার হিসাবে ভিডিও গেমগুলি তাদের শিল্পকর্মের চেয়ে মুক্ত হওয়া উচিত। [৪৪] ২০১৫ সালে স্টলম্যান বিনামূল্যে হার্ডওয়্যার ডিজাইনের পক্ষে ছিলেন। [৪৫]

কপিরাইট সমর্থক[সম্পাদনা]

মুক্ত-সংস্কৃতি আন্দোলনের বিরুদ্ধে সোচ্চার সমালোচনা সাধারণত কপিরাইট সমর্থকদের কাছ থেকে আসে।

বিশিষ্ট টেকনোলজিস্ট এবং সংগীতশিল্পী জারন ল্যানিয়ার তার ২০১০ সালের বই ইউ আর নট এ গ্যাজেটে ফ্রি কালচারের এই দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে আলোচনা করেছেন। ল্যানিয়ারের উদ্বেগগুলির মধ্যে ব্যক্তিবিহীন বেনামি মিডিয়ার (যেমন উইকিপিডিয়া) প্রতি হতাশা এবং মধ্যবিত্ত সৃজনশীল শিল্পীদের অর্থনৈতিক মর্যাদাও অন্তর্ভুক্ত ছিল।

ওয়েব ২.০-এর সমালোচক অ্যান্ড্রু কেন তার ক্রেস্ট অফ অ্যামেচারে কিছু মুক্ত সংস্কৃতি ধারণার সমালোচনা করেছেন এবং লেসিগকে "বুদ্ধিভিত্তিক সম্পত্তির সাম্যবাদী" হিসাবে বর্ণনা করেছেন। [৪৬]

নিউজ মিডিয়া ইন্ডাস্ট্রির বাজারের শেয়ারের পতনের জন্য মুক্ত সংস্কৃতিকে দায়ী করা হয়েছে তবে ক্লে শির্কির মতো পণ্ডিতরা দাবি করেছেন যে বাজারটি শুধু সংস্কৃতি নয়, সাংবাদিকতা শিল্পকেউ হত্যা করছে। [১০]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "What does a free culture look like?"। Students of Free culture। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-১০-২৪ 
  2. "What is free culture?"। Students of Free culture। ২০১২-০৯-১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-১০-২৪ 
  3. The Alternative Media Handbook by Kate Coyer, Tony Dowmunt, Alan Fountain
  4. Open Access: What You Need to Know Now by Walt Crawford
  5. Open Content - A Practical Guide to Using Creative Commons Licences by Wikimedia Deutschland by Till Kreutzer (2014)
  6. Larry Lessig (২০০৭-০৩-০১)। "Larry Lessig says the law is strangling creativity"। ted.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০২-২৬ 
  7. Robert S. Boynton: The Tyranny of Copyright? ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০০৯ তারিখে The New York Times, January 25, 2004
  8. Lessig, Lawrence (২০০৪)। Free Culture: The Nature and Future of Creativity। Penguin। পৃষ্ঠা 368। আইএসবিএন 9781101200841। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ১৫, ২০১৪ 
  9. WSIS (2001). "PCT WORKING GROUP EVENT" ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২৯ জুলাই ২০১৩ তারিখে
  10. Quart, Alissa (2009). "Expensive Gifts", Columbia Journalism Review, 48(2).
  11. David A. Wiley (৩০ জুন ২০০৩)। "OpenContent is officially closed. And that's just fine."। opencontent.org। ২০০৩-০৮-০২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০২-২১I'm closing OpenContent because I think Creative Commons is doing a better job of providing licensing options which will stand up in court. 
  12. Creative Commons Welcomes David Wiley as Educational Use License Project Lead by matt on creativecommons.org (June 23rd, 2003)
  13. Erik Moeller (২০০৬)। "The Case for Free Use: Reasons Not to Use a Creative Commons -NC License" (PDF)। Open Source Jahrbuch। 
  14. Benjamin Mako Hill (জুন ২৯, ২০০৫)। "Towards a Standard of Freedom: Creative Commons and the Free Software Movement"। Mako.cc.। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-১২-০৩ 
  15. Definition of Free Cultural Works. Freedomdefined.org (2008-12-01). Retrieved on 2011-12-03.
  16. "Approved for Free Cultural Works"। ২০০৮-০২-২০। 
  17. Open Definition 2.1 on opendefinition.org
  18. licenses on opendefinition.com
  19. Creative Commons 4.0 BY and BY-SA licenses approved conformant with the Open Definition by Timothy Vollmer on creativecommons.org (December 27th, 2013)
  20. Open Definition 2.0 released by Timothy Vollmer on creativecommons.org (October 7th, 2014)
  21. A Clearinghouse For New Ideas About Copyright. QuestionCopyright.org. Retrieved on 2011-12-03.
  22. Nina Paley at HOPE 2010. YouTube. Retrieved on 2011-12-03.
  23. The Sita Sings the Blues Distribution Project. QuestionCopyright.org (2009-09-15). Retrieved on 2011-12-03.
  24. Hayes, Christopher (2009). "Mr. Lessig Goes to Washington", The Nation, June 16, 2008
  25. interview for LinuxP2P (6 February 2006)
  26. Samudrala, Ram (১৯৯৪)। "The Free Music Philosophy"। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-১০-২৬ 
  27. Nielsen Business Media, Inc. (18 July 1998). Billboard. Nielsen Business Media, Inc. ISSN 0006-2510. Retrieved 3 December 2011. উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ অবৈধ; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে "billboard_jul181998" নাম একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ অবৈধ; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে "billboard_jul181998" নাম একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে
  28. Penenberg A. Habias copyrightus. ''Forbes'', July 11 1997. Forbes.com. Retrieved on 2011-12-03. উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ অবৈধ; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে "forbes_jul111997" নাম একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ অবৈধ; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে "forbes_jul111997" নাম একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে
  29. Durbach D. Short fall to freedom: The free music insurgency. ''Levi's Original Music Magazine'', November 19, 2008. Web.archive.org (2010-06-01). Retrieved on 2011-12-03. উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ অবৈধ; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে "levi_nov192008" নাম একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ অবৈধ; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে "levi_nov192008" নাম একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে
  30. Ballin M. Unfair Use. ''The Free Radical'' 47, 2001. Freeradical.co.nz. Retrieved on 2011-12-03. উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ অবৈধ; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে "free_radical_2001" নাম একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ অবৈধ; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে "free_radical_2001" নাম একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে
  31. Oakes C. Recording industry goes to war against web sites. Wired, June 10 1997. Wired.com. Retrieved on 2011-12-03.
  32. Stutz M. They (used to) write the songs. Wired, June 12 1998. Freerockload.ucoz.com. Retrieved on 2011-12-03.
  33. Napoli L. Fans of MP3 forced the issue. ''The New York Times'', December 16 1998. Nytimes.com. Retrieved on 2011-12-03. উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ অবৈধ; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে "nyt_dec161998" নাম একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ অবৈধ; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে "nyt_dec161998" নাম একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে
  34. Alternate Kinds of Freedom by Troels Just. Troelsjust.dk. Archived on 2014-09-03.
  35. Schulman BM. The song heard 'round the world: The copyright implications of MP3s and the future of digital music. ''Harvard Journal of Law and Technology'' 12: 3, 1999. Archived 2012-04-09 at the Wayback Machine. (PDF) . Retrieved on 2011-12-03. উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ অবৈধ; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে "schulman_1999a" নাম একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ অবৈধ; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে "schulman_1999a" নাম একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে
  36. Samudrala R. The future of music. 1997. Ram.org. Retrieved on 2011-12-03.
  37. Story of a Revolution: Napster & the Music Industry. ''MusicDish'', 2000. (PDF) . Retrieved on 2011-12-03. উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ অবৈধ; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে "napster_compendium" নাম একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ অবৈধ; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে "napster_compendium" নাম একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে
  38. Brett Watson (১৯৯৯-০২-১০)। "Philosophies of Free Software and Intellectual Property"। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০২-২৪Is Software special? [...] So restricting modification is not necessarily evil when it comes to "articles and books"? Or does he just mean that we aren't obliged to let others misrepresent us? Alas, no mention of restricting verbatim duplication. Even Stallman's story on "The Right to Read" does not address the issue directly, despite being about IPR issues other than software. It extrapolates a dystopian future from our current position and acts as a warning about current trends, but offers no comment on the status quo. [...] There is a striking lack of discussion from the usual leaders with regards to the application of copyright in areas other than software. Raymond is mute, and Stallman mumbles. They both seem to view software as a special case: Raymond tacitly, and Stallman explicitly. 
  39. Richard Stallman -- On "Free Hardware" on linuxtoday.com "I see no social imperative for free hardware designs like the imperative for free software." (Jun 22, 1999)
  40. Joshua M. Pearce, "The Case for Open Source Appropriate Technology", Environment, Development and Sustainability, 14, pp. 425-431 (2012)
  41. Stallman, Richard (২০০৯)। "Ending the War on Sharing" 
  42. Boot up: Google and Facebook work on antiphishing tool, Richard Stallman on MegaUpload arrests, and more on The Guardian (January 30, 2012)
  43. Correcting The Guardian's paraphrase by Richard Stallman (Jan 22, 2012)
  44. Nonfree DRM'd Games on GNU/Linux: Good or Bad? on fsf.org by Richard Stallman "Nonfree game programs (like other nonfree programs) are unethical because they deny freedom to their users. (Game art is a different issue, because it isn't software." (May 31, 2012)
  45. Hardware Designs Should Be Free. Here’s How to Do It by Richard Stallman on wired.com (03.18.2015)
  46. Keen, Andrew (May 16, 2006). Web 2.0; The second generation of the Internet has arrived. It's worse than you think. The Weekly Standard

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

Resources