মুকুল চৌধুরী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মুকুল চৌধুরী
Photo of Mukul Chowdhury.jpg
জন্ম১৯৪৬ (সি.)
মৃত্যু৪ এপ্রিল, ২০০২ (বয়স ৫৬)
জাতীয়তাবাংলাদেশী
পেশাগীতিকার, শিল্পী
দাম্পত্য সঙ্গী
সন্তান২ ছেলে, ২ মেয়ে
সঙ্গীত কর্মজীবন
ধরন
  • চলচ্চিত্রের গান
  • ফোক
কার্যকাল১৯৭০-২০০১
সহযোগী শিল্পী

মুকুল চৌধুরী ছিলেন একজন বাংলাদেশী গীতিকারসঙ্গীত শিল্পী[১][২] তিনি রেডিও, টেলিভিশন এবং শতাধিক চলচ্চিত্রের জন্য অনেক গান লিখেছেন, যার মধ্যে রয়েছে 'ও মাধবি গো থেকো মর অন্তরে', 'তুমি আছো সবই আছে', 'এক চোর যায় চলে' ইত্যাদি।[৩][৪][৫][৬] ওরে নীল দরিয়া আমায় দে রে দে ছাড়িয়া গানটিও লিখেছেন তিনি।[৭]

প্রারম্ভিক জীবন এবং কর্মজীবন[সম্পাদনা]

মুকুল চৌধুরী এজিবি কলোনিতে (ঢাকা) থাকতেন। তিনি এবং আলম খান কলোনির মাঠে একসঙ্গে ফুটবল খেলতেন, তারপর তারা আত্মার বন্ধু হয়ে ওঠে। মুকুল ভাইব্রাফোন ভালো বাজাতেন এবং তিনি কবিতাও লিখতেন। একদিন আলম খান তাকে কিছু গান লেখার পরামর্শ দেন এবং পরদিন মুকুল কিছু গান লিখে তার কাছে নিয়ে আসেন। তার মধ্যে একটি ছিল 'ও মাধবী গো থেকো মর অন্তরে', যেটি তখন সুর করেছিলেন আলম খান এবং পরে গেয়েছিলেন রওশন আরা মুস্তাফিজ। পরবর্তী সময়ে তিনি ‘কেউ কারো নয়’ চলচ্চিত্রের জন্য 'ভালোবেসে গেলাম শুধু ভালোবাসা পেলাম না', 'সখী তুমি কার' চলচ্চিত্রের জন্য 'তুমি আছো সবি আছে' এবং ‘সারেং বউ’ চলচ্চিত্রের জন্য 'হীরামতি হীরামতি' সহ আরও অনেক জনপ্রিয় গান রচনা করেন।[২]

মুকুল চৌধুরী 'ওরে নীল দরিয়া আমায় দে রে দে ছাড়িয়া' গানের জন্য সুপরিচিত যা বাংলাদেশী সঙ্গীতের অন্যতম চিরসবুজ রচনা হিসাবে বিবেচিত। গানটির সুর ও প্রযোজনা করেছেন আলম খান এবং আবদুল্লাহ আল মামুন পরিচালিত বাংলাদেশী চলচ্চিত্র সারেং বৌয়ের জন্য আব্দুল জব্বার গেয়েছেন।[৮] ১৯৭৬-৭৭ সালে যখন পরিচালক আবদুল্লাহ আল মামুন তার চলচ্চিত্রের জন্য গান নিয়ে বসেন, তখন আলম খান মুকুল চৌধুরীকে একটি গানের জন্য কিছু লিখতে বলেন যা তিনি ইতিমধ্যে ১৯৬৯ সালে রচনা করেছেন কিন্তু কোথাও ব্যবহার করেননি। মুকুল চৌধুরী প্রথমে পুরো গল্পটি পড়েন এবং তারপর দুদিনের মধ্যে এই বিখ্যাত গানটির লিরিক্স নিয়ে আসেন।[৭]

মৃত্যু[সম্পাদনা]

মুকুল চৌধুরী ২০০২ সালে কলকাতায় ছিলেন যেখানে তিনি একটি স্থানীয় ক্লিনিকে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান।[৯]

স্মরণ[সম্পাদনা]

8ই মে, ২০০২ তারিখে ঢাকার কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরিতে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের পঞ্চম অধিবেশনটি চৌধুরীকে উৎসর্গ করা হয়েছিল। তার স্মরণে একটি স্মৃতিচারণ পর্ব অনুষ্ঠিত হয়। এরপর শুরু হয় স্বরশীলন আবৃত্তি একাডেমীর 'প্রজন্মের আতনাদ' নামে একটি মঞ্চায়ন। এরপর শুরু হয় সন্ধ্যার গানের আয়োজন। চৌধুরীর ছেলে মেয়েসহ সঙ্গীত পরিচালক আলম খান অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।[১০]

ডিস্কোগ্রাফি[সম্পাদনা]

বছর চলচ্চিত্র মন্তব্য
১৯৭০ কাঁচ কাটা হিরে প্রথম চলচ্চিত্র
১৯৭৬ গুন্ডা
কি যে করি
রাজ্ রানী
১৯৭৭ দাতা হাতেম তাই
১৯৭৮ কাপুরুষ
সারেং বৌ
১৯৭৯ জবাব
আরাধনা
কন্যা বদল
মেহের বানু
১৯৮০ জাদু নগর
প্রতিজ্ঞা
সখি তুমি কার
১৯৮১ বাধনহারা
১৯৮২ কেউ কারো নয়
নাতবৌ
১৯৮৩ মান সম্মান
১৯৮৮ তোলপাড়
১৯৯৫ ঘর দুয়ার
২০০১ ভেজা বিড়াল তার জীবনের বৈশিষ্ট্যযুক্ত শেষ গান "জীবন তো একটিই"
প্র/ন ছোট মা

নন-ফিল্মি গান[সম্পাদনা]

বছর গান গায়ক/গাইকা সুরকার সহশিল্পী তথ্য
১৯৭৮ “আমার প্রেমের তরী বইয়া চলে” ফেরদৌস ওয়াহিদ আলম খান সোলো [১১]
প্র/ন “পদ্মা নদীর তীরটি ঘেসে” সোলো [১২]
“চিঠি লিখাছি নিশি রাইতে” রুনা লায়লা সোলো [১৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. অপু, মাসুম। "আবদুল জব্বারের জনপ্রিয় তিন গানের গল্প"প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০৩-২৪ 
  2. অপু, মাসুম (১১ এপ্রিল ২০০২)। "মুকুল চৌধুরীর স্মরণে আলম খান"। দৈনিক প্রথম আলো। পৃষ্ঠা ১। 
  3. "Alam Khan working for newcomer singers"নিউ নেশন (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০৩-২৪ 
  4. আকবর, জাহিদ (২০২০-১১-০৪)। "মৃত্যুর পর রাজশাহীতে এন্ড্রু কিশোরের প্রথম জন্মোৎসব"দ্য ডেইলি স্টার। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০৩-২৪ 
  5. "গীতিকার মুকুল চৌধুরীর ইন্তেকাল"। দৈনিক সংবাদ। ৮ এপ্রিল ২০০২। পৃষ্ঠা ১। 
  6. ডটকম, ষ্টাফ রির্পোটার: গ্রাম বাংলা নিউজ টুয়েন্টিফোর (২০২১-০৩-০৩)। "সখী তুমি কার গো!"সত্যের সন্ধানে সারাক্ষণ। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০৩-২৪ 
  7. প্রতিবেদক, নিজস্ব। "আলম খানের গান ও গল্প"প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০৩-২৪ 
  8. "প্রথম আলো প্রথম আলো - গানের নেপথ্য নায়ক"web.archive.org। ২০১০-০৭-১৯। Archived from the original on ২০১০-০৭-১৯। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০৩-২৪ 
  9. বিজ্ঞপ্তি, প্রেস (৮ এপ্রিল ২০০২)। "বিশিষ্ট গীতিকার মুকুল চৌধুরী আর নেই"। দৈনিক ইনকিলাব। পৃষ্ঠা ১। 
  10. প্রতিবেদক, আনন্দ (২৩ মে ২০০২)। "পঞ্চমের আয়োজনে মুকুল চৌধুরীকে স্মরণে"। প্রথম আলো 
  11. "আমার প্রেমের তরী বইয়া চলে"বাংলা গানের কথা (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৮-১১-০১। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০৬-২৬ 
  12. "পদ্মা নদীর তীরটি ঘেসে"বাংলা গানের কথা (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৮-১১-০১। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০৬-২৬ 
  13. "চিঠি লিখাছি নিশি রাইতে"বাংলা গানের কথা (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৮-১১-০১। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০৬-২৬ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]