মামনুন হুসাইন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
মামনুন হুসাইন
পাকিস্তানের রাষ্ট্রপতি
অধিকৃত অফিস
৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৩
প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফ
পূর্বসূরী আসিফ আলি জারদারি
সিন্ধের গভর্নর
অফিসে
১৯ জুন, ১৯৯৯ – ১২ অক্টোবর, ১৯৯৯
পূর্বসূরী মঈনুদ্দিন হায়দার
উত্তরসূরী আজিম দাউদপোতা
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম (১৯৪০-১২-২৩) ২৩ ডিসেম্বর ১৯৪০ (বয়স ৭৭)[১][২] অথবা
(১৯৪০-০৩-০২) ২ মার্চ ১৯৪০ (বয়স ৭৭)[৩][৪]
আগ্রা, ব্রিটিশ ভারত (বর্তমান ভারত)
রাজনৈতিক দল পাকিস্তান মুসলিম লীগ (এন)
বাসস্থান আইওয়ান-ই-সদর (দাপ্তরিক)
প্রাক্তন ছাত্র ব্যবসায় প্রশাসন ইনস্টিটিউট, করাচী
ধর্ম ইসলাম
ওয়েবসাইট সরকারী ওয়েবসাইট

মামনুন হুসাইন (উর্দু: ممنون حسین‎‎; জন্ম: ২ মার্চ অথবা ২৩ ডিসেম্বর, ১৯৪০) ব্রিটিশ ভারতের আগ্রায় জন্মগ্রহণকারী পাকিস্তানের বিশিষ্ট টেক্সটাইল ব্যবসায়ীরাজনীতিবিদ[৫] ২০১৩ সালের নির্বাচনে তিনি পাকিস্তানের দ্বাদশ রাষ্ট্রপতি হিসেবে আসীন রয়েছেন। ৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৩ তারিখে আইওয়ান-ই-সদরে শপথ গ্রহণের মাধ্যমে তিনি সাবেক রাষ্ট্রপতি আসিফ আলি জারদারি’র স্থলাভিষিক্ত হন।[৬]

রাজনৈতিক জীবন[সম্পাদনা]

১৯৯৯ সালে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্য সিন্ধ প্রদেশের গভর্নর ছিলেন। এর পূর্বে তাঁর কোন রাজনৈতিক সম্পৃক্ততা ছিল না। রাজনীতিতে তিনি কম পরিচিত ব্যক্তিত্ব ছিলেন।[৭][৮] কিন্তু নওয়াজ শরীফের সুনজরে থাকায় তাঁকে গভর্নর করা হয়।[৯] কিন্তু, ১৯৯৯ সালের সামরিক অভ্যুত্থানের কারণে তিনি ক্ষমতাচ্যূত হন। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের একান্ত বিশ্বস্ত ও অনুগত হিসেবে পরিচিত তিনি।[১০] নওয়াজ শরীফের নেতৃত্বাধীন পিএমএল-এনের পক্ষ থেকে তাঁকে রাষ্ট্রপতি প্রার্থী হিসেবে মনোনীত করা হয়। অতঃপর ৩০ জুলাই, ২০১৩ তারিখে পাকিস্তানের রাষ্ট্রপতি হিসেবে নির্বাচিত হন। ৪৩২ ভোট পান মামনুন; প্রতিপক্ষ একমাত্র প্রার্থী ওয়াজিহুদ্দিন আহমেদ পান মাত্র ৭৭ ভোট[১১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

রাজনৈতিক দপ্তর
পূর্বসূরী
মঈনুদ্দিন হায়দার
সিন্ধের গভর্নর
১৯৯৯
উত্তরসূরী
আজিম দাউদপোতা
পূর্বসূরী
আসিফ আলি জারদারি
পাকিস্তানের রাষ্ট্রপতি
২০১৩-বর্তমান
নির্ধারিত হয়নি