মনসুরুল আলম খান

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ডক্টর

মনসুরুল আলম খান
মনসুরুল আলম খান.jpg
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম২৫ জানুয়ারি ১৯৫৫
চট্টগ্রাম, পাকিস্তান
(বর্তমান বাংলাদেশ)
মৃত্যু৩ অক্টোবর ২০১৪
নর্থ শোর মেডিকেল সেন্টার, নিউইয়র্ক, যুক্তরাষ্ট্র
দাম্পত্য সঙ্গীনাইমা খান
সন্তানইভান খান
পিতামাতাখানে আলম খান (পিতা)
প্রাক্তন শিক্ষার্থীনিউ ইয়র্ক বিশ্ববিদ্যালয়
পুরস্কারএকুশে পদক
ডাকনামমনসুর খান

মনসুরুল আলম খান (২৫ জানুয়ারি ১৯৫৫–৩ অক্টোবর ২০১৪) যিনি ড. মনসুর খান নামে পরিচিত ছিলেন। ছিলেন বাংলাদেশি শিক্ষাবিদ ও সাহিত্যিক। শিক্ষায় তার অবদানের জন্য বাংলাদেশ সরকার ২০১২ সালে তাকে রাষ্ট্রের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মান একুশে পদক-এ ভূষিত করেন।[১][২]

প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

মনসুরুল আলম খানের জন্ম চট্টগ্রামে ২৫ জানুয়ারি ১৯৫৫ সালে। তার পিতা খানে আলম খান ছিলেন মুক্তিযুদ্ধা ও ঢাকার বিভাগীয় কমিশনার। জাতিসংঘে বাংলাদেশ মিশনের তিনি উপদেষ্টা ছিলেন। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন।

তার স্ত্রী নাইমা খান। এই দম্পতীর একমাত্র ছেলে ইভান খান একজন চিকিৎসক।[২]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

মনসুরুল আলম খানের কর্মজীবন শুরু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা দিয়ে। তিনি চাকরি করেছেন লন্ডন পলিটেকনিক বিশ্ববিদ্যালয়, নিউইয়র্ক বিশ্ববিদ্যালয়, নিউজার্সি স্টেট বিশ্ববিদ্যালয়, সেটি ইউনিভার্সিটি অব নিউইয়র্কে। তিনি ২০০৫ থেকে ৩ অক্টোবর ২০১৪ সাল পর্যন্ত ঢাকা আহছানিয়া মিশন যুক্তরাষ্ট্রের সভাপতি ছিলেন।

পুরস্কার[সম্পাদনা]

মৃত্যু[সম্পাদনা]

মনসুরুল আলম খান ৩ অক্টোবর ২০১৪ সালে বোনম্যারো ক্যান্সারে অক্রান্ত হয়ে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের নর্থ শোর মেডিকেল সেন্টারে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন। লং আইল্যান্ড সিটির ওয়াশিংটন মেমোরিয়াল কবরস্থান তাকে সমাহিত করা হয়।[১][৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "মনসুরুল আলম খান"দৈনিক প্রথম আলো। ৩ অক্টোবর ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ২৫ অক্টোবর ২০২১ 
  2. "ড.মনসুরুল আলমকে একুশে মনোনয়নে যুক্তরাষ্ট্রে উল্লাস"বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম। ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ২৫ অক্টোবর ২০২১ 
  3. "চলে গেলেন শিক্ষাবিদ ড. মনসুর খান"জাগোনিউজ২৪.কম। ২ অক্টোবর ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ২৫ অক্টোবর ২০২১