ভীম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
জাভা দ্বীপের ছায়াচিত্রে প্রদর্শিত ভীমের প্রতিকৃতি

ভীম মহাভারতের একটি চরিত্র। পঞ্চ পাণ্ডব ভ্রাতাদের মধ্যে ভীম ২য়।ঋষি দুর্বাষা হতে প্রাপ্ত বরের মাধ্যমে বায়ু দেবকে আহ্বান করে তার বরে ভীমের জন্ম হয়। বিশাল দেহ ও প্রবল শক্তির জন্য ভীম বিখ্যাত। পাণ্ডব ভাইদের বনবাসের সময়ে ভীম হিড়িম্বা নামের রাক্ষসীকে বিয়ে করেন, এবং তাদের ঘটোৎকচ নামের একটি পুত্র সন্তান হয়।

জন্ম ও শৈশব জীবন[সম্পাদনা]

ভীমের পিতা পান্ডু একদা শিকারে গিয়ে হরিণ মারতে গিয়ে ভুল বশত মিলনরত এক সাধুকে মেরে ফেলেন। মৃত্যুর আগে সাধু তাকে অভিশাপ দেন যে যদি তিনি স্ত্রী সহবাস করেন তাহলে তার মৃত্যু ঘটবে। এই অভিশাপের কারণে পান্ডু সন্তানের পিতা হতে অক্ষম ছিলেন। হত্যাকান্ডের প্রায়শ্চিত্ত হিসেবে পান্ডু হাস্তিনাপুরের সিংহাসন ত্যাগ করেন এবং তার অন্ধ ভাই,ধৃতরাষ্ট্র, রাজ্যের দায়িত্ব গ্রহণ করেন।[১] পান্ডুর অক্ষমতার পরও পান্ডবরা একটি অসাধারণ উপায়ে জন্মগ্রহণ করে। তার স্ত্রী, রাণী কুন্তি, কিশোরী বয়সে দুর্বাসা মুনি থেকে দেবতাদের আহ্বান করার ক্ষমতা অর্জন করেন। ধর্মের দ্বারা যুধিষ্ঠির লাভের পর পাণ্ডু এক শক্তিমান পুত্র চাইলেন। দেবতাদের মধ্যে পবন দেব বা বায়ু দেব সবচাইতে শক্তিশালী ছিলেন। তিনি কুন্তীর সাথে মিলিত হলের তার ঔরসে ভীমের জন্ম হয়। অবশ্য অনেক কাহিনীকারের মতে ইনি পবন দেবতা নন, দেবসুলভ গন্ধর্ব, যিনি কুন্তীকে পরিচয় দিয়েছিলেন তিনি পবন, তার রাজ্যের ইন্দ্র বা রাজা। কুন্তী এনার সাথে দুইবার শারীরিক সম্পর্ক করেন ও ভীমারজ্জুনের জন্ম দেন। ( মহাভারত বিশেষজ্ঞের মতে)

তথসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Lochtefeld, James G. (২০০২)। The illustrated encyclopedia of Hinduism. (1st. ed. সংস্করণ)। New York: Rosen। পৃ: 194–196। আইএসবিএন 9780823931798