ভারতীয় পাঁচশত এবং এক হাজার টাকা নোটের মুদ্রারহিতকরণ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
১০০ টাকার নোটের জন্য হাওড়ার একটি এটিএমের বাইরে জনসাধারণের ভিড়। ৮ই নভেম্বর. ২০১৬.

ভারতীয় পাঁচশত এবং এক হাজার টাকা নোটের মুদ্রারহিতকরণ ভারতে ক্রমবর্ধমান দুর্নীতি ও কালো টাকা সমস্যার সমাধানের অভিমুখে ভারত সরকার কর্তৃক গৃহীত একটি পদক্ষেপ। ৮ই নভেম্বর ২০১৬ এর মধ্যরাত থেকে বৈধ টেন্ডার হিসাবে সমস্ত ৫০০ এবং ১০০০ ভারতীয় টাকার নোটগুলি গ্রহণ করা আইনত বন্ধ করে দেওয়া হয়৷ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী টেলিভিশনের মাধ্যমে সারা দেশের জনগণের উদ্দেশ্যে ৮ই নভেম্বর ২০১৬-এ এই পদক্ষেপের ঘোষণাটি করেন৷[১] তাঁর ভাষণে নরেন্দ্র মোদী ভারতে বিদ্যমান সমস্ত ৫০০ এবং ১০০০ টাকার নোটগুলিকে অকার্যকর নোট বলে ঘোষণা করেন এবং নতুন ৫০০ এবং ২০০০ টাকার নোট প্রচলনের ঘোষণাও করেন৷
জাল নোট ব্যবহারের দ্বারা তথাকথিত সন্ত্রাসবাদ অর্থায়ন ও দেশে কালো টাকা প্রতিরোধ করার ভারত সরকার দ্বারা এটি একটি প্রচেষ্টা৷[২]

কার্যপ্রণালী[সম্পাদনা]

একটি ব্যাঙ্কের বাইরে জনসাধারণের ভিড়। ১০ই নভেম্বর ২০১৬.

প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার পরবর্তীতে ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গভর্নর উর্জীৎ প্যাটেল বর্তমানে (৮ই নভেম্বরের পূর্ববর্তী সময় অবধি ছাপা) দেশে প্রচলন ৫০০ এবং ১০০০ টাকার নোটগুলি অনায়াসে বিনিময়ের পদ্ধতি সংক্রান্ত বিস্তারিত বিবরণ দিয়ে একটি সংবাদ লিপি দেন।[৩] ৮ নভেম্বর, ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাঙ্ক নিম্নলিখিতগুলি ঘোষণা করে:

  1. ৩০-এ ডিসেম্বর ২০১৬ অবধি সমস্ত ব্যাঙ্কগুলিকে তাদের গ্রাহকদের জন্য এটিএম থেকে টাকা উত্তোলনের পরিষেবা বিনামূল্যে প্রদান করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে৷ ১৮ই নভেম্বর ২০১৬ পর্যন্ত ব্যাঙ্কগুলি তাদের গ্রাহকদের জন্য এটিএম এ প্রতি কার্ডে টাকা উত্তোলনের পরিমাণ সীমা দিনে ২০০০ টাকা মাত্র নির্ধারণ করতে পারে৷
  2. সকল ব্যাঙ্ক ৯ নভেম্বর ২০১৬ তারিখে জনসাধারণের জন্য বন্ধ থাকবে৷

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]