ভাভা পরমাণু অনুসন্ধান কেন্দ্র

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(ভাবা পারমাণবিক গবেষণা কেন্দ্র থেকে পুনর্নির্দেশিত)
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
হোমি ভাবা পারমাণবিক গবেষণা কেন্দ্র
Bhabha Atomic Research Centre Logo.png
হোমি ভাবা পারমাণবিক গবেষণা কেন্দ্রের লোগো
সংক্ষেপেবি এ আর সি
নীতিবাক্যরাষ্ট্রের সেবায় পরমাণু
গঠিত৩ জানুয়ারি ১৯৫৪ (1954-01-03)
প্রতিষ্ঠাতাহোমি জে . ভাভা
আইনি অবস্থাকর্মক্ষম
উদ্দেশ্যনিউক্লিয়ার গবেষণা
সদরদপ্তরট্রমবে , মুম্বাই , মহারাষ্ট্র
স্থানাঙ্ক১৯°০১′০১″ উত্তর ৭২°৫৫′৩০″ পূর্ব / ১৯.০১৭° উত্তর ৭২.৯২৫° পূর্ব / 19.017; 72.925স্থানাঙ্ক: ১৯°০১′০১″ উত্তর ৭২°৫৫′৩০″ পূর্ব / ১৯.০১৭° উত্তর ৭২.৯২৫° পূর্ব / 19.017; 72.925
নির্দেশক
কে এন ব্যাস
প্রধান প্রতিষ্ঠান
পারমাণবিক শক্তি অধিদপ্তর
বাজেট
৩,১৫৯ কোটি (US$৪২৬.৪৮ মিলিয়ন) (2015–2016)
ওয়েবসাইটbarc.gov.in
প্রাক্তন নাম
পারমাণবিক শক্তি বাস্তবায়ন , ট্রমবে

ভাবা পারমাণবিক গবেষণা কেন্দ্র (BARC) - হচ্ছে ভারতের একটি প্রথম সারির পারমাণবিক গবেষণা কেন্দ্র যার সদর দফতর ট্রমবে, মুম্বাই, মহারাষ্ট্রতে অবস্থিত। বিএআরসি একটি বহু বিভাগীয় গবেষণা কেন্দ্র যার অবকাঠামো ব্যাপকভাবে উন্নত এবং এখানে পারমাণবিক বিজ্ঞান, প্রকৌশল এবং সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রে গবেষণার সুবিধা আছে।

বিএআরসি এর মুখ্য উদ্দেশ্য হল পারমাণবিক শক্তির শান্তিপূর্ণ অ্যাপ্লিকেশন যেমন প্রাথমিকভাবে বিদ্যুৎ উৎপাদন। এখানে পরমাণু বিদ্যুৎ উৎপাদনের সমস্ত পর্যায়ের প্রক্রিয়া আছে যেমন চুল্লির তাত্ত্বিক নকশা বানানো, কম্পিউটারে মডেলিং এবং সিমুলেশন, ঝুঁকি বিশ্লেষণ, চুল্লীর নতুন জ্বালানী উপকরণের উন্নয়ন ও টেস্টিং ইত্যাদি। তদুপরি এখানে ব্যয়িত জ্বালানীর প্রক্রিয়াকরণ, এবং পারমাণবিক বর্জ্যের নিরাপদ নিষ্পত্তি নিয়েও গবেষণা করা হয়। অন্যান্য গবেষণা ফোকাস এলাকাগুলি হল শিল্প, চিকিৎসা, কৃষি ইত্যাদির জন্য আইসোটোপের অ্যাপ্লিকেশনের বা প্রয়োগ।  এছাড়া বিএআরসি দেশ জুড়ে গবেষণা চুল্লির পরিচালনা করে থাকে।[১]

ভারত সরকার ৩রা জানুয়ারি ১৯৫৪ সালে পরমাণু শক্তি সংস্থা, ত্রম্বে (AEET) তৈরি করে। এটি প্রতিষ্ঠিত হয় পারমাণবিক চুল্লি এবং পরমাণু শক্তি কমিশনের প্রযুক্তিগত গবেষণা এবং উন্নয়ণ কর্মকাণ্ড একত্রীকরণের জন্য। সব বিজ্ঞানী ও প্রকৌশলীরা যারা চুল্লী নকশা এবং উন্নয়ন, যন্ত্রানুষঙ্গের, ধাতুবিদ্যা এবং উপাদান বিজ্ঞান ইত্যাদি বিষয়ে নিযুক্ত রয়েছে তাদেরকে নিজ নিজ কর্মসূচী অনুযায়ী টাটা ইনস্টিটিউট অফ ফান্ডামেন্টাল রিসার্চ (TIFR) থেকে AEET তে স্থানান্তরিত করা  হয়েছিল, যেখানে TIFR তার আসল লক্ষ্য বিজ্ঞান ভিত্তিক প্রাথমিক গবেষণা কেই অক্ষত রেখেছে। ১৯৬৬ সালে হমি জে ভাবার মৃত্যুর পর ২২ শে জানুয়ারি ১৯৬৭ সালে এই সেন্টারটির নামকরন করা হয় ভাবা পারমাণবিক গবেষণা কেন্দ্র হিসাবে। বিএআরসি এর সমস্ত পরিচালকেরা  অত্যন্ত যোগ্যতাসম্পন্ন ডক্টরেট তাদের নিজ নিজ বিষয়ে এবং একাডেমিয়া তে অবদানের জন্য আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত,এনারাই হলেন এই মর্যাদাপূর্ণ গবেষণা প্রতিষ্ঠানের মুকুট।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Milestones"। Bhabha Atomic Research Centre। ৭ ফেব্রুয়ারি ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-০২-১০