ফ্রিদেল ডি ওয়েট

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ফ্রিদেল ডি ওয়েট
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামফ্রিদেল ডি ওয়েট
জন্ম (1980-06-26) ২৬ জুন ১৯৮০ (বয়স ৪১)
ডারবান, নাটাল প্রদেশ, দক্ষিণ আফ্রিকা
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি ফাস্ট-মিডিয়াম
ভূমিকাবোলার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ৩০৫)
১৬ ডিসেম্বর ২০০৯ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ টেস্ট৩ জানুয়ারি ২০১০ বনাম ইংল্যান্ড
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
২০১১হ্যাম্পশায়ার
২০০৫ - ২০১২হাইভেল্ড লায়ন্স
২০০৪ - ২০০৭নর্থ ওয়েস্ট
২০০১ - ২০০৩নর্দার্নস
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি এলএ টি২০
ম্যাচ সংখ্যা ৫২ ৬৩ ১৬
রানের সংখ্যা ২০ ৯৩১ ২৭৯ ৪৩
ব্যাটিং গড় ১০.০০ ১৬.৬২ ২৫.৩৬ ১৪.৩৩
১০০/৫০ –/– –/১ –/১ –/–
সর্বোচ্চ রান ২০ ৫৬ ৫৬* ১৭
বল করেছে ৪২৬ ১০,৪০১ ২,৮০৫ ৩২২
উইকেট ২০৬ ৭১ ১৭
বোলিং গড় ৩১.০০ ২৩.৮০ ৩১.৫৯ ২৫.৮২
ইনিংসে ৫ উইকেট ১০
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ৪/৫৫ ৭/৬১ ৫/৫৯ ২/১৮
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১/– ২২/– ১১/– ৫/–
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ২২ নভেম্বর ২০২০

ফ্রিদেল ডি ওয়েট (ইংরেজি: Friedel de Wet; জন্ম: ২৬ জুন, ১৯৮০) নাটাল প্রদেশের ডারবান এলাকায় জন্মগ্রহণকারী সাবেক দক্ষিণ আফ্রিকান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ২০০০-এর দশকের শেষদিকে অত্যন্ত সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটে লায়ন্স, নর্থ ওয়েস্ট ও নর্দার্নস দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ ডান ফাস্ট-মিডিয়াম বোলার হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, ডানহাতে নিচেরসারিতে ব্যাটিং করতেন তিনি।

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

রাস্টেনবার্গের গ্রেনসাগ হাই স্কুলে অধ্যয়ন করেন। এরপর, উচ্চতর পড়াশোনার উদ্দেশ্য নিয়ে প্রিটোরিয়াভিত্তিক টেকনোলজি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন।

২০০১-০২ মৌসুম থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত ফ্রিদেল ডি ওয়েটের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। প্রিটোরিয়াভিত্তিক টেকনোলজি বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নকালীন অবস্থাতেই ২০০০-০১ মৌসুমে টাইটান্সের পক্ষে প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবনের সূত্রপাত ঘটে তার। এছাড়াও, ইউসিবিএসএ ন্যাশনাল একাডেমির পক্ষে খেলেছেন তিনি। এরপর তিনি রাস্টেনবার্গে চলে যান। সেখানে তিনি নর্থ ওয়েস্ট শৌখিন দলে দুই মৌসুম খেলেন। পরবর্তীতে, ২০০৫-০৬ মৌসুমে লায়ন্সের পক্ষে খেলার জন্যে চুক্তিবদ্ধ হন। ঐ মৌসুম শেষে ১৮.৪৭ গড়ে ৪২ উইকেট পান।

২০০৬-০৭ মৌসুমে ২০.২১ গড়ে ৬১ উইকেট দখল করেন। তন্মধ্যে, ছয়বার পাঁচ-উইকেট পেয়েছিলেন তিনি। এরফলে, ঘরোয়া আসরে শীর্ষ উইকেট সংগ্রাহকে পরিণত হন। ২০০৬-০৭ মৌসুমে লায়ন্সের পক্ষে ২২.০০ গড়ে ৪৮ উইকেট লাভ করেন।

কাউন্টি ক্রিকেটে অংশগ্রহণ[সম্পাদনা]

২০০৭-০৮ মৌসুমে দক্ষিণ আফ্রিকা এ দলের সদস্যরূপে ভারত গমন করেন। ২০০৮ সালে কোলপ্যাক খেলোয়াড় হিসেবে নিবন্ধিত হন ও মিডলসেক্সের পক্ষে খেলার জন্যে চুক্তিবদ্ধ হন। ৫ জানুয়ারি, ২০১১ তারিখে ঘোষণা করা হয় যে, ২০১১ সালে তিনি কোলপ্যাক খেলোয়াড় হিসেবে হ্যাম্পশায়ারের পক্ষে খেলবেন।[১]

এছাড়াও, ২০০৮ সালে ল্যাঙ্কাশায়ার লীগে কোর্লি ক্রিকেট ক্লাবের পক্ষে খেলেছিলেন। ১৩-এর অল্প অধিক গড়ে ৫৬ উইকেট পেয়েছিলেন তিনি। ২০১২ সালে ক্রমাগত পিঠের আঘাতের কারণে ক্রিকেট খেলা থেকে তার অবসর গ্রহণের কথা জানান।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে দুইটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করেছেন ফ্রিদেল ডি ওয়েট। সবগুলো টেস্টই ইংল্যান্ডের বিপক্ষে খেলেছিলেন তিনি। ১৬ ডিসেম্বর, ২০০৯ তারিখে সেঞ্চুরিয়নে সফরকারী ইংল্যান্ড দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। এরপর, ৩ জানুয়ারি, ২০১০ তারিখে কেপ টাউনে একই দলের বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন তিনি। তাকে কোন ওডিআইয়ে অংশগ্রহণ করার সুযোগ দেয়া হয়নি।

ডিসেম্বর, ২০০৯ সালে অপ্রত্যাশিতভাবে দক্ষিণ আফ্রিকার টেস্ট দলের সদস্যরূপে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ খেলার জন্যে আমন্ত্রিত হন ও ইংল্যান্ড গমন করেন। [২] প্রথম টেস্ট শুরুর পূর্বে ডেল স্টেইন আঘাতের কবলে পড়লে তিনি এ সুযোগ পান। প্রথম ইনিংসে ২০ রান করেন। এরপর, ইংল্যান্ডের প্রথম ইনিংসে অ্যালাস্টেয়ার কুকের উইকেট লাভ করেন তিনি।[৩]

দ্বিতীয় ইনিংসে তিনি আরও চার উইকেট পান। তন্মধ্যে, খেলার শেষ ঘণ্টায় দ্বিতীয় নতুন বলে তিনটি উইকেট লাভ করেছিলেন ও দক্ষিণ আফ্রিকাকে জয়ের দিকে নিয়ে যান। তবে, নয় উইকেট খোঁয়ানোর পরও সৌভাগ্যবশতঃ ইংল্যান্ড দল খেলাটি ড্রয়ের দিকে নিয়ে যেতে সক্ষম হয়। তার সাত ওভারে তখন বেশ ব্যতিব্যস্ত হতে দেখা যায় ইংল্যান্ড দলকে। এক পর্যায়ে ৬৯ রান সংগ্রহকারী জোনাথন ট্রটের উইকেটসহ ৩/১১ পেয়েছিলেন। তবে, সিরিজের তৃতীয় টেস্ট শুরুর পূর্বে পিঠের আঘাতে তাকে মাঠের বাইরে অবস্থান করতে হয়েছিল।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Hampshire bring in bowler De Wet"BBC News। ৫ জানুয়ারি ২০১১। 
  2. ইএসপিএনক্রিকইনফোতে ফ্রিদেল ডি ওয়েট (ইংরেজি)
  3. Brett, Oliver (১৭ ডিসেম্বর ২০০৯)। "Graeme Swann keeps England in touch with South Africa"। BBC Sport। সংগ্রহের তারিখ ১৭ ডিসেম্বর ২০০৯ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]