মহিলা যৌন উত্তেজনাজনিত ব্যাধি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

নারীদের যৌন উত্তেজনা উঠার ক্ষেত্রে সমস্যা বা ফিমেল সেক্সুয়াল এ্যারাওজাল ডিসঅর্ডার হচ্ছে নারীদের সঙ্গী (অপর একজন নারী বা পুরুষ) দের সাথে দৈহিক মিলন যোনিতে কোনো উত্তেজনা না আসা বা কোনো পুলক লাভ না করা। এর কারণ হিসেবে অনেক কিছু থাকতে পারে যেমন রক্ষণশীল মন-মানসিকতা, যৌনতাকে ঘৃণা করা, সঙ্গীর শরীর পছন্দ না হওয়া কিংবা জীবনের অন্য কোনো বিষণ্ণতা বা হতাশা থেকেও যৌন উত্তেজনা না উঠতে পারে। তাছাড়া কোনো মানসিক রোগ থেকে থাকলেও নারীদের যৌন উত্তেজনা উঠতে সমস্যা হতে পারে।[১][২]

কারণসমূহ[সম্পাদনা]

সুনির্দিষ্টভাবে নারীদের এই সমস্যাটা বলা না গেলেও নিম্নলিখিত কারণগুলো মৌলিকঃ

  1. মানসিক সমস্যাঃ কোনো কোনো নারী তার ব্যক্তিত্ব খারাপ এরকম হীনমন্যতায় ভুগতে পারেন, হতে পারে সেই নারীটি সমাজ দ্বারা অনেক ঘৃণিত, তার কোনো বন্ধু-বান্ধবী নেই, সে কখনো কারো ভালোবাসা-আদর ভালোমত পায়নি কিংবা অল্প বয়সে কোনো ব্যক্তি দ্বারা যৌনপীড়নের শিকার হয়েছে, এরূপ হলে নারীটির মনে যৌনতার প্রতি এক প্রকারের অনীহা বা ঘৃণা জন্মাতে পারে।[৩][৪][৫]
  2. সঙ্গীর শরীর পছন্দ না হওয়াঃ কোনো কোনো ক্ষেত্রে এটা হতে পারে যে একজন নারী তার প্রেমিক বা স্বামীকে ভালবাসলেও তার শরীর পছন্দ করেননা।[৬]
  3. রক্ষণশীল সমাজের ভয়ঃ একটি রক্ষণশীল পুরুষতান্ত্রিক বা ধর্মবাদী সমাজে বাস করে একজন নারীর মনে যৌনতার প্রতি ভয় আসতে পারে।[৭]
  4. যোনিতে সমস্যাঃ নারীর যোনিতে কোনো সমস্যা থেকে থাকলে এবং ওটি চিকিৎসা করানো না হয়ে থাকলে যৌন উত্তেজনায় সমস্যা হতে পারে।[৮][৯]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Female Sexual Arousal Disorder"। BehaveNet। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-০৫-১৬ 
  2. Hartley, H. (2006). The 'Pinking' Of Viagra Culture: Drug Industry Efforts To Create And Repackage Sex Drugs For Women. Sexualities, 363-378.
  3. Nobre, Pedro J.; Pinto‐Gouveia, José (২০০৬)। "Dysfunctional sexual beliefs as vulnerability factors for sexual dysfunction"। Journal of Sex Research43 (1): 68–75। ডিওআই:10.1080/00224490609552300পিএমআইডি 16817069 
  4. Serina, Sandhu। "One in three women watch porn at least once a week, survey finds"The Independent। The Independent। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-১২-২১ 
  5. Hales E and Yudofsky JA, eds, The American Psychiatric Press Textbook of Psychiatry, Washington, DC: American Psychiatric Publishing, Inc., 2003
  6. Witting, Katarina; Santtila, Pekka; Alanko, Katarina; Harlaar, Nicole; Jern, Patrick; Johansson, Ada; Pahlen, Bettina von der; Varjonen, Markus; Ålgars, Monica (২০০৮)। "Female Sexual Function and Its Associations with Number of Children, Pregnancy, and Relationship Satisfaction"। Journal of Sex & Marital Therapy34 (2): 89–106। ডিওআই:10.1080/00926230701636163পিএমআইডি 18224545 
  7. Wallen, Kim (২০০১)। "Sex and Context: Hormones and Primate Sexual Motivation"। Hormones and Behavior40 (2): 339–57। ডিওআই:10.1006/hbeh.2001.1696পিএমআইডি 11534996 
  8. Hawton, K (১৯৯৩)। Sex Therapy। Oxford, UK: Oxford University Press। [পৃষ্ঠা নম্বর প্রয়োজন]
  9. Melman et al. 1988[যাচাই প্রয়োজন]